স্কুলছাত্রীর ‘আত্মহত্যায়’ প্ররোচনায় দুই তরুণের বিরুদ্ধে মামলা

সাদী আব্দুল্লাহ্

সবুজবাগ থানার পুলিশ জানায়, আত্মহত্যায় প্ররোচনার মামলার দুই আসামি হলেন শামীম ও ফাহিম। তাঁদের বয়স ২০ বছর।

গতকাল রোববার রাত সাড়ে আটটার দিকে বাসাবোর একটি বাসা থেকে ওই স্কুলছাত্রীর ঝুলন্ত নিথর দেহ উদ্ধার করা হয়। পরে তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে তাকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক। ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি এখন ঢাকা মেডিকেল কলেজের মর্গে আছে।

সবুজবাগ থানার আরেক এসআই রবীন্দ্রনাথ সরকার একেটিভিকে বলেন, ওই স্কুলছাত্রীর বাবা পরিবারের অন্য সদস্যদের নিয়ে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী এলাকায় থাকেন। স্কুলছাত্রী বাসাবোতে তার নানির বাসায় থেকে লেখাপড়া করত। কী কারণে মেয়েটি আত্মহত্যা করেছে, তা জানতে তদন্ত চলছে।

স্কুলছাত্রীর ফুফা বলেন, বাসাবো এলাকার এক তরুণ ওই স্কুলছাত্রীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে আপত্তিকর ভিডিও করেন। পরে সেই ভিডিও প্রচারের ভয় দেখিয়ে স্কুলছাত্রীকে দীর্ঘদিন ধরে ‘ব্ল্যাকমেল’ করে আসছিলেন ওই তরুণ। মেয়েটির কাছ থেকে ছেলেটি টাকাও আদায় করেছেন।

স্কুলছাত্রীর ফুফার ভাষ্য, আরও টাকা দাবির পরিপ্রেক্ষিতে মেয়েটি তা দিতে না পারায় ভিডিও ছড়িয়ে দেন ওই তরুণ। বিষয়টি মেয়েটির মা–বাবা জানতে পেরে তাকে বকাঝকা করেন। গতকাল রাতে মেয়েটি তার নানির বাসায় গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

Loading...