বিশ্বনেতারা রাইসিকে যে বার্তা দিচ্ছেন

একেটিভি ডেস্ক

ইরানের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিজয়ী হয়েছেন দেশটির কট্টরপন্থী নেতা ইব্রাহিম রাইসি (৬০)। কিন্তু গত শনিবারের ওই নির্বাচনের ফল ঘিরে নানা সমালোচনা হচ্ছে। বলা হচ্ছে, ইরানের এবারের নির্বাচন প্রতিযোগিতামূলক ছিল না। গত শুক্রবারের নির্বাচনে ভোট পড়েছে ৪৮ দশমিক ৮ শতাংশ ভোট। ৬১ দশমিক ৯৫ শতাংশ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন ইব্রাহিম রাইসি। তবে ১৯৭৯ সালের বিপ্লবের পর দেশটিতে সবচেয়ে কম ভোটদানের ঘটনা ঘটেছে এবার।

রাইসি মূলত দেশটিতে কট্টরপন্থী ধর্মীয় নেতা ও বিচার বিভাগের প্রধান হিসেবে পরিচিত। তবে তার চেয়েও বড় কথা হচ্ছে, তিনি দেশটির সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনির ঘনিষ্ঠজন। তিনি আগামী আগস্ট মাসে মধ্যপন্থী হাসান রুহানির জায়গায় দায়িত্ব বুঝে নেবেন। রাইসি এমন এক সময় ক্ষমতায় আসছেন, যখন দেশটির জন্য গুরুত্বপূর্ণ পারমাণবিক চুক্তির পুনর্বহাল নিয়ে ভিয়েনায় আলোচনা চলছে। ইরান চাইছে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা থেকে মুক্তি পেতে, যার কারণে দেশটি অর্থনৈতিক সমস্যায় পড়েছে।

অন্যদিকে নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট রাইসির ওপরও মানবাধিকার লঙ্ঘনের দায়ে নিষেধাজ্ঞা দিয়ে রেখেছে যুক্তরাষ্ট্র। এ অবস্থায় তাঁর প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়া নিয়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ, নেতা ও সংস্থার পক্ষ থেকে প্রতিক্রিয়া জানানো হয়েছে। কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আল–জাজিরা থেকে কয়েকটি প্রতিক্রিয়া তুলে ধরা হলো
ইরানের বিদায়ী প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানিকে উদ্ধৃত করে দেশটির গণমাধ্যমে বলা হয়েছে,নতুন প্রেসিডেন্টের পাশে থাকার ও সহযোগিতার কথা বলেছেন রুহানি। তিনি বলেছেন, নতুন সরকার দায়িত্ব নিলে তিনি পাশেই থাকবেন।
যুক্তরাষ্ট্র
এদিকে ইরানের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন প্রসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, আফসোসের বিষয়, স্বচ্ছ ও অবাধ প্রক্রিয়ায় দেশটির প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে নাগরিকেরা ভোট দিতে পারেননি। তবে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন মুখপাত্র বলেছেন, ওয়াশিংটন তবু তেহরানের সঙ্গে ২০১৫ সালের পারমাণবিক চুক্তিতে পুনরায় যোগদানের বিষয়ে পরোক্ষ আলোচনা অব্যাহত রাখবে।

ইসরায়েল
ইরানে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়ী ইব্রাহিম রাইসিকে (৬০) নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ইসরায়েল। ইসরায়েলের নতুন প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেনেত রোববার প্রথম মন্ত্রিসভার বৈঠকে ইরানের নতুন প্রেসিডেন্টের নিন্দা করেন। তিনি বলেন, ‘খামেনি (ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা) যে লোকগুলোকে বেছে নিতে পারতেন, তাঁর মধ্যে তিনি তেহরানের ফাঁসিদাতাকে বেছে নিয়েছেন। ওই ব্যক্তি ইরান ও বিশ্বজুড়ে পরিচিতি হাজারো নিরীহ ইরানি নাগরিকের ফাঁসির হুকুমদাতা হিসেবে পরিচিত।’

পাকিস্তান
পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান রাইসির সঙ্গে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করে বলেছেন, পাকিস্তান ও ইরানের মধ্যে ভাতৃত্বের বন্ধন শক্তিশালী করবেন তিনি।

তুরস্ক
প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ায় রাইসিকে অভিনন্দন জানিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান। তিনি রাইসির মেয়াদে দুই প্রতিবেশী দেশের মধ্যে সহযোগিতার বন্ধন আরও দৃঢ় হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন।

সিরিয়া
সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদ রাইসির জয়ে অভিনন্দন জানিয়ে নতুন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে কাজ করার ও বন্ধন শক্তিশালী করার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

ইরাক
ইরাকের প্রেসিডেন্ট বাহরাম সালিহ রাইসিকে আন্তরিক অভিনন্দন জানিয়েছেন। এক বিবৃতিতে তিনি ইরানের সঙ্গে সম্পর্ক জোরদার করার আগ্রহের কথা বলেছেন। দেশটির প্রধানমন্ত্রী মুস্তাফা আল-খাদিমিও রাইসিকে টেলিফোনে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

ইয়েমেন
ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহী গ্রুপের প্রধান মাহদি আল-মাশাত রাইসিকে অভিনন্দন জানিয়ে বার্তা পাঠিয়েছেন।

কাতার

কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানি রাইসিকে অভিনন্দন বার্তা পাঠিয়ে তাঁর সফলতা কামনা করেছেন এবং দুই দেশের সম্পর্কোন্নয়নের কথা বলেছেন।

কুয়েত
কুয়েতের আমির শেখ নাওয়াফ আল আহমাদ আল সাবাহ রাইসিকে বার্তা পাঠিয়ে তাঁর সফলতা ও সুস্বাস্থ্য কামনা করেছেন। দুই দেশের একসঙ্গে উন্নতি ও সমৃদ্ধির কথাও বলেছেন বার্তায়।

অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল
আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের মহাসচিব অ্যাগনেস ক্যালামার্ড মানবতার বিরুদ্ধে রাইসির অপরাধ তদন্তের আহ্বান জানিয়েছেন।

হামাস
গাজায় হামাসের মুখপাত্র হাজেম কাশেম বলেছেন, ‘আমরা ইরানের গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় সফলতা, প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ও ইব্রাহিম রাইসিকে বিজয়ী হওয়ার জন্য অভিনন্দন জানাচ্ছি।’

সংযুক্ত আরব আমিরাত
দুবাইয়ের শাসক ও ভাইস প্রেসিডেন্ট শেখ মোহাম্মেদ বিন রশিদ আল মাখতুম এক টুইটে ইরানের জন্য শুভকামনা জানিয়েছেন। আবুধাবির যুবরাজ শেখ মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল নাহিয়ান রাইসিকে অভিনন্দন জানিয়ে বার্তা পাঠিয়েছেন।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচ
এইচআরডব্লিউর মধ্যপ্রাচ্যবিষয়ক পরিচালক মাইকেল পেজ এক বিবৃতিতে বলেছেন, রাইসি যে উপায়ে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন, সেটি ছিল নিপীড়ন ও অন্যায্য নির্বাচনের পথ।

Loading...