সিলেটে স্ত্রীকে হত্যা মামলায় স্বামীর ফাঁসি কার্যকর

নিজস্ব প্রতিবেদক

স্ত্রীকে হত্যার দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে এক ব্যক্তির ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ১১টায় মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়। সিরাজুল ইসলাম ওরফে সিরাজ (৫৫) নামের ওই ব্যক্তির বাড়ি হবিগঞ্জ সদর উপজেলার রাজনগরে।
সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার মুহাম্মদ মঞ্জুর হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের পর সিরাজুলের মরদেহ রাতেই স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। সিলেট শহরতলির বাদাঘাট এলাকায় সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগার স্থানান্তর হওয়ার পর এটিই প্রথম মৃত্যুদণ্ড কার্যকর। ২০১৮ সালের ১ নভেম্বর কারাগার বাদাঘাটে স্থানান্তরিত হয়।
কেন্দ্রীয় কারাগার সূত্র জানায়, ২০০৪ সালের ৭ মার্চ সাহিদা বেগম হত্যার ঘটনা ঘটে। হত্যা মামলাটির রায়ে ২০০৭ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি সিলেটের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে সিরাজুল ইসলামের মৃত্যুদণ্ডের আদেশ হয়। নিম্ন আদালতের এ রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করলে ২০১২ সালের ১ আগস্ট হাইকোর্ট দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের রায় বহাল রাখেন।
পরবর্তীকালে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ ২০২০ সালের ১৪ অক্টোবর এক আদেশে মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখেন। বিধি অনুযায়ী চলতি বছরের ২৫ মে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন নামঞ্জুর হলে গতকাল দিনগত রাত ১১টায় সিরাজুলের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়।
এর আগে গতকাল বিকেলে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে গিয়ে সিরাজুলের পরিবারের পক্ষে তাঁর এক ভাই শেষ দেখা করেন। সিরাজুলের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেন জল্লাদ শাহজাহান। মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার সময় সিলেটের জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, ডিআইজি প্রিজনস, পুলিশ সুপার, সিভিল সার্জনসহ কারাগারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Loading...