‘পাকিস্তানের বোলাররা নিষিদ্ধ হলে আইসিসির কিছু যায়–আসে না’

খেলা ডেস্ক

ভারতের স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন।

ভারতের স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন। 

আইসিসির বিরুদ্ধে আজমলের অভিযোগ, আইসিসি হঠাৎ করেই স্পিন বোলিংয়ের নিয়ম বদলে ফেলেছে। এ কারণেই নাকি তাঁকে অবৈধ বোলিং অ্যাকশনের জন্য নিষিদ্ধ হতে হয়েছিল। ক্রিকউইক ইউটিউব চ্যানেলে তিনি বলেছেন, ‘কাউকে কিছু না বলে আপনি সব নিয়ম বদলে ফেললেন। ওই সময় আমি আট বছর ধরে ক্রিকেট খেলছিলাম। সব নিয়মই ছিল আমার জন্য। এটা নিয়ে আমার আর কিছু বলার নেই।’

আজমল নিষিদ্ধ হওয়ার সময় প্রায় ছয় মাস ক্রিকেটের বাইরে ছিলেন ভারতের স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন। সেই প্রসঙ্গ টেনে আজমল বলেছেন, ‘ওই সময় অশ্বিন ক্রিকেটের বাইরে থাকল কেন? যেন তাকে নিয়ে কাজ করা যায়, যাতে সে নিষিদ্ধ না হয়। পাকিস্তানের একজন বোলারের নিষিদ্ধ হওয়া নিয়ে তাদের (আইসিসি) কিছু যায়–আসে না। তারা শুধু টাকার কথাই ভাবে।’

২০১১ বিশ্বকাপে টেন্ডুলকারকে আউট করতে না পারার সে ঘটনা ভুলতে পারেন না আজমল।

২০১১ বিশ্বকাপে টেন্ডুলকারকে আউট করতে না পারার সে ঘটনা ভুলতে পারেন না আজমল।

আজমল যখনই কথা বলার সুযোগ পান, কথা প্রসঙ্গে টেনে আনেন মোহালিতে ২০১১ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ নিয়েও। সেই ম্যাচে শচীন টেন্ডুলকারের বিরুদ্ধে তাঁর এলবিডব্লুর আবেদনে সাড়া দিয়েছিলেন আম্পায়ার। কিন্তু টেন্ডুলকার রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান।

আজমল সেই রিভিউর সিদ্ধান্ত নিয়েও কদিন পরপরই প্রশ্ন টলেন। এদিনও প্রশ্ন তুলেছেন, ‘যে আম্পায়ার টেন্ডুলকারকে আউট দিয়েছিলেন, তিনি এটা নিয়ে নিজের সিদ্ধান্তের বিষয়ে কথা বলতে রাজি ছিলেন। ডিআরএস যন্ত্রের সাহায্য ছাড়াই এটা করা যেতে পারে। যেকোনো পর্যায়ে এটা বদলে ফেলা যায়।’

আজমল এরপর যোগ করেন, ‘আমি এ ব্যাপারটা বুঝি না। কিন্তু আমি এখনো যদি সেটা দেখি এবং যেকোনো আম্পায়ার এটা দেখলেই বলবেন যে বল স্টাম্পে আঘাত করবে। কিন্তু সেটাই কি না (ডিআরএসে) স্টাম্প মিস করে গেল। আমাকে তো এটা নিয়ে হাজার হাজার মানুষ প্রশ্ন করেছে। আমি এর কোনো উত্তর দিই না।’

Loading...