৪০০ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করল এক কিশোরী

৪০০ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করল এক কিশোরী

ভারতের মহারাষ্ট্রের বীড জেলার ঘটনা। গত ছয় মাস ধরে ৪০০ জনের বেশি ব্যক্তি ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ করেছে ১৬ বছরের এক কিশোরী। ওই কিশোরীর দাবি, থানায় অভিযোগ করতে গিয়ে পুলিশের একজন কর্মীর লালসার শিকার হতে হয়েছে তাকে। বর্তমানে ওই কিশোরী দুই মাসের অন্তঃসত্ত্বা।

 

 

এ ব্যাপারে চলতি সপ্তাহে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। মহারাষ্ট্রের বীড জেলার পুলিশ সুপার রাজা রামাস্বামী বলেছেন, কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে তিন জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেছেন, নির্যাতিতার অভিযোগের ভিত্তিতে শিশুবিবাহ, ধর্ষণ, যৌননিগ্রহ এবং পকসো আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত ছয় মাসে ৪০০ ব্যক্তি ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ রয়েছে। পুলিশের একজন সদস্যও ধর্ষণে অভিযুক্ত। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।

কিশোরী অভিযোগে উল্লেখ করেছেন, তার মা মারা গেছেন বেশ কয়েক বছর আগে। আট মাস আগে তার বাবা বিয়ে দিয়ে দেন। শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাকে মারধর করে। খারাপ ব্যবহার করে। সেখান থেকে পালিয়ে বাবার কাছে ফিরে এসেছিল সে। কিন্তু বাবা আশ্রয় দেয়নি। তার পর বীড জেলার আম্বাজোগাই বাসস্ট্যান্ডে বাধ্য হয়ে ভিক্ষা চাইতে শুরু করে সে। ওই সময় থেকেই তার ওপর অত্যাচার শুরু হয়।

 

শিশু অধিকার রক্ষা কমিটিকে ওই কিশোরী জানিয়েছে, বহু লোক আমাকে নির্যাতন করেছে। আমি আম্বাজোগাই থানায় অভিযোগ জানাতে অনেক বার গেছি। কিন্তু অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি। এক পুলিশকর্মীও আমার ওপর অত্যাচার করেছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.