হৃদয় নিংড়ানো ভালোবাসায় বিদায় নিলেন চৌহালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা

চৌহালী প্রতিনিধিঃ
কর্মের প্রতি ছিল একাগ্রতা, দায়িত্বের প্রতি ছিলেন নিষ্ঠাবান। ক্ষমতার দম্ভ দেখাননি সিরাজগঞ্জের অবহেলিত উপজেলা চৌহালীর সাধারণ মানুষের সাথে ৷ তার কার্যালয় ছিল উন্মুক্ত, যে  কোনো শ্রেণি পেশার মানুষের কথা তিনি গভীর মনোযোগ দিয়ে শুনতেন। সাধ্যমত নিয়মের মধ্যে থেকে সমাধানের চেষ্টা করতেন। প্রশাসনিক কর্মকর্তা-কর্মচারিদের সমন্বয়ের মাধ্যমে চৌহালী উপজেলা ও উপজেলা প্রশাসনে তিনি সুশাসন প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।
তার সময়ে সরকারি সেবা তিনি সাধারণ জনগণের মাঝে পৌঁছিয়ে দিয়েছিলেন। জাতীয় দিবসগুলি অত্যন্ত দক্ষতার সহিত পালন করেছিলেন। উপজেলা প্রশাসনের সহকর্মী কর্মকর্তা-কর্মচারী, সাংবাদিক ও সাধারণ জনগণের হৃদয়ে এক অনন্য উচ্চতায় স্থান করে নিয়েছিলেন। তিনি আর কেউ নন চৌহালীর বিদায়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আফসানা ইয়াসমিন।
চৌহালী উপজেলা প্রশাসনের সকল কর্মকর্তা কর্মচারী, সাংবাদিকবৃন্দ, সকল শ্রেণি-পেশার মানুষ অশ্রুসিক্ত ফুলেল ভালোবাসায় বিদায় দিলেন চৌহালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আফসানা ইয়াসমিনকে।
বৃহুস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) বিকেলে তিনি চৌহালীর মাটি ছেড়ে চলে যান, এ সময় এক আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়। বিদায়কালীন সময় উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন, তিনি বিদায়কালীন সময়ে আবেগ তাড়িত অশ্রুসিক্ত নয়নে বলেন, চৌহালী বাসীকে তিনি মনে রাখবেন সারাজীবন । যোগদানের দুই বছর তিন মাসের মধ্যেই তিনি সকলের প্রিয়ভাজন হয়ে ওঠেন।
উপজেলা অফিসার্স ক্লাব, রাজনৈতিক সংগঠন, বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক, পেশাজীবী সংগঠন, চৌহালী প্রেসক্লাব, উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ, স্থানীয় গণ্যমান্য সুধীজন ইউএনও আফসানা ইয়াসমিনের সাথে দেখা করে ফুল, ক্রেস্ট ও বিভিন্ন উপহার  দিয়ে অশ্রুসিক্ত বিদায় জানান ৷
এদিকে বিদায়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আফসানা ইয়াসমিন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক হিসেবে বগুড়া গমন করেন ৷ তিনি  গত ৫ আগষ্ট ২০২০ সালে   প্রথম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে চৌহালীতে যোগদান করেন।
চৌহালী প্রেসক্লাবের সভাপতি ইদ্রিস আলী  বলেন- বিদায়ী ইউএনও মহোদয় সাংবাদিক বান্ধব সৎ কর্মকর্তা ছিলেন, সাংবাদিকদের সাথে  তিনি সবসময়  ভাল আচরণ করেছেন।
উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ মজনু মিয়া বলেন, স্যার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক বগুড়া হিসেবে বদলী হওয়ার কারণে চলে যাচ্ছেন, তিনি অনেক ভাল মানুষ ছিলেন, আমরা একজন  সৎ ও দক্ষ কর্মকর্তাকে বিদায়  জানালাম।
বিদায়ী ইউএনও  সম্পর্কে বলতে গিয়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ ফারুক হোসেন সরকার বলেন- বিদায়ী নির্বাহী কর্মকর্তা আফসানা ইয়াসমিনকে  নিয়ে কাজ করে আমি পরিতৃপ্ত হয়েছি, উপজেলা পরিষদের মাধ্যমে উপজেলার উন্নয়ন কর্মকান্ড সাধন করেছি, আমি তার জীবনের সাফল্য কামনা করছি।
প্রতিবেদকের কাছে একান্ত সাক্ষাৎকারে আবেগ তাড়িত হয়ে তিনি বলেন,”আমি চেষ্টা করেছি সরকারি নির্দেশনা মেনে আমার দায়িত্ব পালন করতে। এক্ষেত্রে চৌহালীর জনগন ও সকল পর্যায়ের জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতা এবং সমর্থন ছিল, পেয়েছি সকলের নিরন্তর ভালোবাসা। চৌহালীতে কাজ করতে পেরে আমি নিজেকে ভাগ্যবান মনে করছি। আমি মনে করি এটি আমার চাকরি জীবনের সেরা সঞ্চয়, এজন্য চৌহালী বাসীর নিকট  কৃতজ্ঞ।
Leave A Reply

Your email address will not be published.