স্বামীকে মুক্ত করতে এসে ধর্ষণের শিকার এক নারী

স্বামীকে মুক্ত করতে এসে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক নারী। জানা যায় যে, কক্সবাজারের টেকনাফ থেকে মাদক মামলায় গ্রেপ্তার স্বামীকে জামিনে মুক্ত করতে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় আসেন ওই নারী।  ফতুল্লায় আসার পরবর্তীতে  ওই নারী দু’দফা ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ৪০ বছর বয়সী ওই নারীর কাছে থাকা ৫৫ হাজার টাকাও ছিনিয়ে নিয়েছে ধর্ষক।

এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ওই নারী ফিরোজ মিয়া (২৮) নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে আজ মঙ্গলবার বিকেলে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা করেছেন। তথ্য সূত্র মতে ফিরোজ মিয়া জামালপুর জেলার ইসলামপুর থানার আমপুর গ্রামের লেবু মিয়ার ছেলে। অভিযুক্ত ফিরোজ মিয়া ফতুল্লার ইসদাইর এলাকায় ভাড়া থাকেন।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, ওই নারীকে ধর্ষক ৫৫ হাজার টাকা নিয়ে  ১৫ জুলাই ফতুল্লায় আসতে বলেন। তিনি কথা দেন যে, টাকার বিনিময়ে ওই নারীর স্বামীকে আদালত থেকে জামিনে মুক্ত করে দেবেন। ওই ব্যক্তির কথা মতন ধর্ষণের শিকার নারী ২০ জুলাই কক্সবাজারের টেকনাফ থেকে ফতুল্লায় ৫৫০০০ টাকা নিয়ে আসেন। এরপর এরপর অভিযুক্ত ফিরোজ  তার ভাড়া বাড়িতে ওই নারীকে আশ্রয় দেওয়ার নাম করে সেখানে নিয়ে যান এবং ঘুমন্ত অবস্থায় ওই নারীকে প্রথমবার ধর্ষণ করেন। দ্বিতীয় দিন  তার স্বামীর সাথে দেখা করার কথা বলে আরো একটি বাসায় নিয়ে গিয়ে দ্বিতীয় দফায় তাকে ধর্ষণ করেন এবং তার সাথে থাকা ৫৫ হাজার টাকা নিয়ে যান। এরপর এই ঘটনা তিনি যেন আর কাউকে না বলেন এবং বিভিন্ন ভয়-ভীতি দেখিয়ে চাষাড়া নামক স্থানে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয় ।

এদিকে  নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রকিবুজ্জামান বলেন, “নারীর অভিযোগে মামলা গ্রহণ করা হয়েছে। আসামিক  ফিরোজ মিয়াকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।”

 

সম্পাদনা:  আরিফুল ইসলাম লিখন।

Loading...