Ultimate magazine theme for WordPress.

শঙ্কার কথা যুক্তরাষ্ট্রের কূটনীতিকদের জানালেন ইশরাক

ভোটের একদিন আগে যুক্তরাষ্ট্রের কূটনীতিকদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন। ভোট নিয়ে নানা আশঙ্কার কথা তুলে ধরেছেন তিনি। তবে জনগণ ভোট দিতে পারলে বিপুল ভোটে বিজয়ী হওয়ার প্রত্যাশার কথাও জানিয়েছেন ধানের শীষের প্রার্থী।

শুক্রবার দুপুরে গুলশানে যুক্তরাষ্ট্র কূটনীতিকের সঙ্গে বৈঠক করেন ইশরাক। পরে তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন।

এটা সৌজন্য ও পূর্বনির্ধারিত বৈঠক ছিল জানিয়ে ইশরাক বলেন, ‘এটা আমাদের সৌজন্য সাক্ষাৎকার ছিল। আরও ১০ দিন আগেই নির্ধারিত ছিল। সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে তারা আমাদের মতামত জানতে চেয়েছেন, উনারা আমাদের কাছে জানতে চেয়েছেন নির্বাচনের সার্বিক পরিস্থিতি কেমন ছিল, এখন কেমন রয়েছে। কিছুদিন আগে আমাদের একটি প্রচারণায় হামলা করা হয়েছিল, আমরা সেগুলো অবহিত করেছি এবং শনিবার ভোটের দিন কী কী শঙ্কা রয়েছে তারা সেগুলো আমাদের কাছে জানতে চেয়েছেন, আমরাও বলেছি।’

ইশরাক বলেন, ‘ইভিএমের যে বিষয়টা আমরা সেটা বলেছি, ঢাকার বাইরে থেকে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের নিয়ে এসেছে আমরা সেগুলো জানিয়েছি। তারা জেলা থেকে কমিটি করে ঢাকায় বিভিন্ন লোকদের জোড়া করছে, কেন্দ্র দখলের পাঁয়তারা করা হচ্ছে। আর তারাও পূর্বের অভিজ্ঞতা থেকে অনেক কিছু দেখেছেন, জানেন।’

বিএনপির প্রার্থী বলেন, ‘ধানের শীষের গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। জনগণ শনিবার কাকে ভোট দেবেন সিদ্ধান্ত নিয়ে নিয়েছেন। জনগণের রায় সুনির্দিষ্টভাবে প্রদানের জন্য আমাদের পক্ষ থেকে যা যা করা দরকার আমরা তাই তাই করবো। কেউ যদি কেন্দ্র দখলের চেষ্টা করে আমরা দখল করব না। তবে আমরা কেন্দ্র পাহারা দেব এবং দখলমুক্ত করব। ভোটারদের ভোট দেয়ার জন্য সব ধরনের পরিবেশ তৈরি করব।’

এক প্রশ্নের জবাবে ইশরাক বলেন, ‘ভোটাররা ভোট দিতে পারবে কি না তা শনিবার দেখা যাবে। একাদশ সংসদ নির্বাচনের আগের রাতে কেন্দ্র দখল করে সিল মারা হয়েছিল, এবার জনগণের প্রশ্ন এখন তারা কীভাবে চুরি করবে? এবারতো ইভিএমে আগের রাতে তো সিল মারা যাবে না!’

ইশরাক অভিযোগ করে বলেন, ‘বিভিন্ন বাড়িতে গিয়ে পুলিশ-ডিবি নেতাকর্মীদের হয়রানি করছে। হানা দিচ্ছে বাড়ি বাড়ি গিয়ে। আতঙ্ক তৈরি হয়েছে।’

ইশরাক বলেন, ‘গতকাল আমাদের প্রচারণায় বড় একটি হামলার ঘটনা ঘটেছে। আমাদের সিনিয়র নেতা রুহুল কবির রিজভী গুরুতর আহত হয়েছেন। তিনি ইসলামী ব্যাংক হসপিটালে ভর্তি রয়েছেন। তার পায়ে কোপ মারা হয়েছে। এটা নিয়ে কোনো তৎপরতা দেখছি না। গণমাধ্যমকর্মীরা আমাদের শেষ আশ্রয়স্থল।’ এ সময় তিনি গণমাধ্যমকে সত্যে ঘটনা তুলে ধরার আহ্বান জানান।

সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমরা নির্বাচন কমিশনের কাছে প্রতিদিন অভিযোগ দিয়ে যাচ্ছি, কিন্তু তাদেরকে অভিযোগ দিয়ে কোনো লাভ নেই। এর কোনো প্রতিকার হয় না।’

এদিন গোপীবাগ বড় মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করে জুরাইন কবরস্থানে বাবার কবর জিয়ারত করেন ইশরাক হোসেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.