Ultimate magazine theme for WordPress.

জোর করে ক্ষমতা দখলের লক্ষ্য লুটপাট করা: ড. কামাল

ঢাকা- দেশ থেকে হাজার হাজার কোটি টাকা পাচার করা রাষ্ট্রীয় পর্যায়ের ডাকাতি এবং পাচারকারীদের রাষ্ট্রীয় ডাকাত আখ্যা দিলেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ও গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে একুশে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে গণফোরাম আয়োজিত আলোচনা সভায় এ কথা বলেন ড. কামাল। রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ‘একুশ মানে অধিকার আদায়ের অঙ্গীকার’ শীর্ষক এ সভা হয়।

ওই বক্তব্যে কামাল হোসেন বলেন, ‘যারা জোর করে ক্ষমতা দখল করে, তাদের লক্ষ্য লুটপাট করা, টাকা পাচার করা। তাই তারা অবাধ, নিরপেক্ষ নির্বাচন দেওয়ার সাহস করে না। তারা রাষ্ট্রের মালিক নয়। জনগণ এ রাষ্ট্রের মালিক। তাই মালিকের মতো আচরণ করতে হবে। অধিকার আদায় করে নিতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘অস্ত্র দিয়ে, বিভেদ সৃষ্টি করে, সাম্প্রদায়িকতার আশ্রয় নিয়ে আমাদের বঞ্চিত করে দেশের পুঁজি বা অর্থপাচার করবে। কার বাবার সম্পত্তি তোমরা পাচার করছ? তাদের ধরে না কেন? বলা হয় না কেন- কোথায় থেকে তোমরা এ ক্ষমতাটা পেলে?’

কামাল হোসেন বলেন, ‘এটা হলো রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে ডাকাতি। আমরা গ্রাম পর্যায়ে ঐক্যবদ্ধ হয়ে ডাকাতকে যেভাবে ধরি, আজকের রাষ্ট্রের ডাকাতদের সেভাবে ধরতে হবে। এরা নিজেদের চিহ্নিত করে রেখেছে।’

তিনি বলেন, ‘গত ৪৮ বছর আমরা জনগণকে প্রতিশ্রুতি দিয়ে আসছি, এগুলো বাস্তবায়ন করতে হবে। দেশের মানুষকে মালিকের ভূমিকা পালন করতে হবে। এখানে কারো দয়ামায়ার কিছু নাই। এটা আমাদের প্রাপ্য অধিকার। তাই ক্ষমতার মালিককে যেভাবে ক্ষমতা প্রয়োগ করতে হয় সেভাবে করতে হবে।’

গণফোরামের সভাপতি বলেন, ‘দুর্নীতিবাজরা কখনও দাবি করতে পারে না তারা উত্তরাধিকার সূত্রে মালিক হয়ে গেছে। মালিক এ দেশের সবাই। দেশে গণতন্ত্র চলতে না দিলে সাময়িকভাবে তারা ক্ষমতাকে হাতে নিয়ে এর অপব্যবহার করে এবং দেশের অর্থ পাচার করে। তাই সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে দেশে কার্যকর গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে হবে।’

কামাল হোসেন বলেন, ‘জনগণের ঐক্যের শক্তিতে ভর করে আমরা স্বাধীনতা রক্ষা করেছিলাম। স্বাধীনতার আগে ও পরে বিভেদ সৃষ্টি করার কম চেষ্টা হয়নি। সাম্প্রদায়িকতার আশ্রয় নিয়ে, ধর্মের দোহাই দিয়ে মানুষের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করা হয়েছিল। কিন্তু তারা সফল হয়নি। তাই আমাদের নিরাশ হওয়ার কোনো কারণ নাই।’

Leave A Reply

Your email address will not be published.