Ultimate magazine theme for WordPress.

উৎসব পালনের জন্য সরকার করোনাকে পাত্তা দেয়নি: মির্জা ফখরুল

উৎসব পালনের জন্যই সরকার করোনা সংক্রমণকে পাত্তা দেয়নি বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, উৎসব পালনের জন্য যখন বিদেশী মেহমানরা আসছেন তার অনেক আগেই স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে বলা হয়েছিলো করোনা খুব মারাত্মকভাবে আসছে। অবিলম্বে বন্ধ করা দরকার। কিন্তু তখন তারা এটা করেনি। কারণ তারা উৎসব পালন করার জন্য, বর্ষ পালন করার জন্য এটিকে পাত্তা দেয়নি। এখন যেহেতু উৎসব শেষ হয়েছে, তাদের মহান অতিথিরা চলে গেছেন। এখন তারা করোনার বিষয়টা আবার সামনে আনছে। মঙ্গলবার বিকেলে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

করোনা সংক্রামণ নিয়ন্ত্রণে সরকারের দৃশ্যমান কোনো ‍উদ্যোগ নেই অভিযোগ করে মির্জা ফখরুল বলেন, করোনা সংক্রামণ মারাত্মকভাবে, ভয়ংকরভাবে বাড়ছে। স্বাস্থ্য বিভাগ ১৮ দফা নির্দেশনা জারি করেছে কিন্তু এটা বাস্তবায়ন করার জন্য সরকারের যে উদ্যোগ সেটা কখনোই লক্ষ্য করা যায়নি।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে সবসময় একটা মিথ্যা প্রচারণা করা হচ্ছে যে, এখানে খুব চমৎকারভাবে সরকার করোনা সমস্যাটাকে সমাধান করছে, নিয়ন্ত্রণে রাখতে পেরেছে। কিন্তু এটা একেবারেই মিথ্যা কথা। স্বাস্থ্য বিভাগ ১৮ দফা দিয়েছেন পালন করার জন্য। সরকারের উদ্যোগটা কোথায়? স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে শুধু না, সরকারের পক্ষ থেকে যে দৃশ্যমান একটা ক্যাম্পেইনিং, প্রচার, উদ্যোগ থাকার কথা সেটা লক্ষ্য করা যাচ্ছে না।

করোনা নিয়ে প্রকৃত বিষয়গুলোকে গোপন করা হচ্ছে অভিযোগ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, সরকার ফ্যাক্টসগুলো

ডাটাগুলোকে গোপন করছে। এর আগে টেস্টই করেনি, এখনো টেস্ট হচ্ছে খুবই কম। কেউ টেস্ট করতে গেলে বলা হচ্ছে টেস্ট হবে না, পরের দিন আসো। এভাবে টেস্টগুলো হচ্ছে না। শুধু ঢাকাতেই না সারা বাংলাদেশেই টেস্টেগুলো হচ্ছে না। আমরা মনে হয় ১০ শতাংশও টেস্ট হচ্ছে না। এই অবস্থার জন্য সম্পূর্ণ দায়ী সরকার। তারা কখনোই এটাকে সঠিকভাবে উপলব্ধি করা বা সেটার জন্য একটা জাতীয় ঐক্য সৃষ্টি করা এই কাজগুলো তারা করে নাই।

করোনা সংক্রামণ থেকে রক্ষা মাস্ক পড়ার বিষয়ে প্রচারণার চালানোর প্রসঙ্গ টেনে ফখরুল বলেন, জনগণ সচেতনতার অভাবে মাস্ক পড়ে না। কেনো পড়ে না? কারণ সরকার সেটা তাদেরকে বুঝাতে সক্ষম হননি।

করোনা সংক্রামণ মোকাবিলায় জনগনের প্রতি কোনো দায়বদ্ধতা সরকারের নেই মন্তব্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, এই সরকার তো নির্বাচিতই না। নির্বাচিত না হলে তো জনগণের প্রতি সেই সরকারের কোনো দায়বন্ধতা থাকতে পারে না। মানুষ মরলো কি বাঁচলে তাতে তাদের কিছু যায় আসে না। তারা ক্ষমতায় থাকবে, লুট করবে এবং সেটা দিয়ে তারা সম্পদ গড়ে তুলবে।

সংবাদ সম্মেলনে দলের প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন নসু, সহ-দফতর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু ও চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান উপস্থিত ছিলেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.