Ultimate magazine theme for WordPress.

ঢাকা উত্তরায় বিএনপির কাউন্সিলর প্রার্থীর ওপর হামলা

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে উত্তরা ১ নম্বর ওয়ার্ডের বিএনপি সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান সেগুন দুই দফা হামলার শিকার হয়েছেন।

শনিবার সকাল পৌনে আটটায় ঠেলাগাড়ি প্রতীকের প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান সেগুন তার স্ত্রী আসমা হাবিবকে সঙ্গে নিয়ে নওয়াব হাবিবুল্লাহ স্কুল কেন্দ্রে আসলে আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী আফসার উদ্দিন খানের (ঝুড়ি মার্কা) সমর্থকরা মারধর করে তাকে কেন্দ্রে থেকে বের করে দেয়।

অপরদিকে, সকাল ৯টা ২০ মিনিটের দিকে বিএনপির ওই কাউন্সিলর প্রার্থী প্রিজাইডিং অফিসার বাগ্ময়ী দত্তের কাছে অভিযোগ দিতে গেলে দ্বিতীয় দফা আক্রমণের শিকার হন। এ সময় তার শার্টের কলার চেপে ধরতে দেখা যায় একজন যুবককে।

মোস্তাফিজুর রহমান সেগুন অভিযোগ করে বলেন, ‘সকাল থেকেই আমার এবং আমার লোকজনের উপর হামলা চালাচ্ছে আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী আফসার খানের লোকজন। তারা টঙ্গি ও আশপাশের এলাকা থেকে বহিরাগতদের এনে হামলা চালাচ্ছে। পুলিশের সামনেই হামলার ঘটনা ঘটে কিন্তু তারা কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না।

তিনি আরও বলেন, ‘আমি বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে আমার এজেন্টদের বের করে দেওয়ার খবর পেয়েছি। ১০ নম্বর সেক্টরের একটি কেন্দ্রে আমার এজেন্টের মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়েছে।’

সেগুনের স্ত্রী আসমা হাবিব অভিযোগ করে বলেন, ‘হামলাকারীরা আমাকেও মারধর করেছে। আমাদের লোকজনকে কেন্দ্র ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না অথচ আওয়ামী লীগের সমর্থকরা বহিরাগতদের নিয়ে কেন্দ্রের ভিতরে অবাধ বিচরণ করছে।’

সকাল আটটায় ঢাকার দুই সিটিতে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। চলবে বিকাল চারটা পর্যন্ত। এবারের ভোটে ঢাকা উত্তরে ৩০ লাখ ১০ হাজার ২৭৩ জন ভোটার ভোট দেবেন। ঢাকা উত্তরে মেয়র পদে ছয়জন, সাধারণ কাউন্সিলরের ৫৪টি পদে ২৫১ জন এবং সংরক্ষিত কাউন্সিলর ১৮টি পদে ৭৭ জন লড়াই করছেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.