মেসির বেতন এবং রোনালদোর বেতন ফাঁস

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর ফেরাটাই ছিল বিস্ময়জাগানিয়া। তাঁকে কেনার দৌড়ে শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত এগিয়ে ছিল ম্যানচেস্টার সিটি। পারিশ্রমিকও নাকি দেওয়া হতো আকাশচুম্বী। কিন্তু শেষ দানে এসে দাঁও মেরে দেয় ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। নগর প্রতিদ্বন্দ্বীদের হতাশ করে ঘরের ছেলেকে ঘরে ফেরায় ওল্ড ট্র্যাফোর্ডের ক্লাবটি।

মেসির বেতন

দীর্ঘ এক যুগ পর ওল্ড ট্রাফোর্ডে রোনালদোর এই ফেরায় তাঁর আয়ের অঙ্কটা ঠিক কত—এ নিয়ে গুঞ্জন তো চলছেই। ইংলিশ দৈনিক ডেইলি মেইলের অনলাইন সংস্করণ সেটি বের করে এনেছে।

তবে মজার ব্যাপারটা হলো, আজই ফরাসি দৈনিক লে’কিপ পিএসজিতে লিওনেল মেসির বেতন কত, সেই অঙ্কটা তুলে ধরেছে। পিএসজিতে ৩ মৌসুমে প্রায় ১১০০ কোটি টাকা পাবেন বলে জানা গেছে। একই দিনে ফাঁস হলো ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে রোনালদোর বেতনের অঙ্কও। ‘প্রতিদ্বন্দ্বিতা’ বটে!

প্রাথমিকভাবে জানা গিয়েছিল, ওল্ড ট্রাফোর্ডে সপ্তাহে ৪ লাখ ৮০ হাজার পাউন্ড বেতন পাবেন ৩৬ বছর বয়সী রোনালদো। কিন্তু ব্রিটিশ ট্যাবলয়েড ‘মেইল অনলাইন’ জানিয়েছে, অঙ্কটা আসলে সপ্তাহে ৩ লাখ ৮৫ হাজার পাউন্ড (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৪ কোটি ৫১ লাখ টাকা)। সংবাদমাধ্যম এর আগে জানিয়েছিল, জুভেন্টাস ছেড়ে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে যোগ দিতে কিছুটা বেতন কমিয়েছেন রোনালদো। তবু এখন তিনি ইউনাইটেডের সর্বোচ্চ পারিশ্রমিকপ্রাপ্ত ফুটবলার।

হিসাবটা আরেকটু খোলাসা করা যায়। জুভেন্টাসে সপ্তাহে ৫ লাখ পাউন্ড বেতন পেতেন রোনালদো। বছরে অঙ্কটা ২ কোটি ৬০ লাখ পাউন্ড। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে সাপ্তাহিক ৩ লাখ ৮৫ হাজার পাউন্ড বেতন ধরে বছরে পাবেন ২ কোটি ২০ হাজার ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় অঙ্কটা প্রায় ২৩৪ কোটি ৭৪ লাখ টাকা)।

এই হিসাব অনুযায়ী জুভেন্টাসের তুলনায় প্রায় ৬০ লাখ পাউন্ড বেতন কমিয়ে ইউনাইটেডে যোগ দিয়েছেন পর্তুগিজ তারকা। তাঁকে জুভেন্টাস থেকে কিনতে প্রায় ১ কোটি ৩০ লাখ পাউন্ড খরচ হয়েছে ইউনাইটেডের।

অন্যদিকে পিএসজিতে প্রথম মৌসুমে মেসির বেতন পাবেন ৩ কোটি ইউরো। পরে আরও দুই মৌসুম থাকলে ৪ কোটি ইউরো করে মেসির বেতন পাবেন।

সে যা-ই হোক, যদি প্রশ্ন করা হয় রোনালদোর মোট সম্পদের মূল্য কত? মানে, তাঁর বেতন, বোনাস, এনডোর্সমেন্ট, ব্যবসায়িক লেনাদেনা এবং অন্য সব খাত থেকে আয়কৃত অর্থ মিলিয়ে মোট সম্পদের দাম কত? সে অঙ্কটা চোখ কপালে তোলার মতো! প্রায় ৫০ কোটি ডলার। তাঁর মোট সম্পদের পরিমাণ টাকার অঙ্কে লিওনেল মেসির চেয়ে বেশি বলে বিবেচনা করা হয়। যদিও ক্যারিয়ারের বেশির ভাগ সময়ই আকর্ষণীয় সব চুক্তির মুখ দেখেছেন আর্জেন্টাইন তারকা।

গোল ডট কম রোনালদোর আয়ের যে অঙ্ক দেখিয়েছে, সে হিসাব অনুযায়ী, ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে তিনি সর্বোচ্চ পারিশ্রমিকপ্রাপ্ত খেলোয়াড়। সপ্তাহে ৩ লাখ ৮০ হাজার পাউন্ড বেতন নিয়ে তালিকার দুইয়ে ম্যানচেস্টার সিটি মিডফিল্ডার কেভিন ডি ব্রুইনা।

ইউনাইটেড গোলকিপার দাভিদ দে হেয়া সপ্তাহে ৩ লাখ ৭৫ হাজার পাউন্ড বেতন নিয়ে তিনে। সিটিতে সপ্তাহে সমান ৩ লাখ পাউন্ড করে বেতন পান জ্যাক গ্রিলিশ ও রাহিম স্টার্লিং। চেলসিতে এনগোলো কান্তের সাপ্তাহিক বেতন ২ লাখ ৯০ হাজার পাউন্ড।

সর্বকনিষ্ঠ হিসেবে রেকর্ড ভাঙা-গড়াটা তাঁর জন্য নতুন কিছু না।

মেসির বেতন

অনূর্ধ্ব-৮ বছর বয়সী হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন বার্মিংহাম সিটিতে। ১৬ বছর ৩৮ দিন বয়সে এই বার্মিংহাম সিটিরই সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে মূল দলে অভিষিক্ত হন জুড বেলিংহাম। সেটি ২০১৯ সাল। পরের বছর তাঁকে দলে ভেড়ায় বরুসিয়া ডর্টমুন্ড।

জার্মান ক্লাবটির হয়ে প্রথম প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচেই পেলেন গোলের দেখা— ১৭ বছর ৭৭ দিন বয়সে। সেটি ডর্টমুন্ডের ইতিহাসে সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে গোলের রেকর্ড।

মেসির বেতন

ইংল্যান্ডের বয়সভিত্তিক দলের ধাপ পাড়ি দিয়ে বেলিংহাম জাতীয় দলে ডাক পান গত বছর। সেখানেও ‘অভ্যাস’ পাল্টাতে পারলেন না। ওয়েন রুনি ও থিও ওয়ালকটের পর ইংল্যান্ডের তৃতীয় সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে অভিষিক্ত হন ১৭ বছর ১৩৬ বয়সে।

গত ইউরোয় ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে ইংল্যান্ডের বদলি খেলোয়াড় হিসেবে মাঠে নামার সময় বেলিংহামের বয়স ছিল ১৭ বছর ৩৪৯ দিন। এর মধ্য দিয়ে ইংল্যান্ডের সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে বড় কোনো টুর্নামেন্টে খেলার রেকর্ড গড়েন। পাশাপাশি ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপেও সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে মাঠে নামার রেকর্ড গড়েন। যদিও ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে সে ম্যাচের ছয় দিন পর ইউরোর রেকর্ডটি নিজের করে নেন পোল্যান্ডের কাসপার কোজলোজস্কি।

মেসির বেতন

চ্যাম্পিয়নস লিগে কাল রাতে বেসিকতাস-ডর্টমুন্ড ম্যাচেও সর্বকনিষ্ঠ হিসেবে একটি রেকর্ড গড়েছেন বেলিংহাম। ডর্টমুন্ডের ২-১ গোলে জয়ের ম্যাচে প্রথম গোলটি বেলিংহামের। এর মধ্য দিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগে সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় (১৮ বছর ৭৮ দিন) হিসেবে অন্তত টানা দুই ম্যাচে গোলের রেকর্ড গড়লেন ইংলিশ মিডফিল্ডার।

এর আগে গত মৌসুমে কোয়ার্টার ফাইনাল ফিরতি লেগে ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে মাঠে নেমে গোল করেছিলেন তিনি। দুই লেগ মিলিয়ে পরে ৪-২ ব্যবধানের জয় পেয়েছিল ম্যানচেস্টার সিটি।

বেলিংহাম এই রেকর্ড গড়তে পেছনে ফেললেন পিএসজি তারকা কিলিয়ান এমবাপ্পেকে। ২০১৭ সালের মার্চে মোনাকোর হয়ে ১৮ বছর ৮৫ দিন বয়সে রেকর্ডটি গড়েছিলেন ফরাসি তারকা। ৭ দিন কম বয়স নিয়ে সেই রেকর্ড নিজের করে নিলেন বেলিংহাম। ম্যাচটা বেসিকতাসের মাঠে হওয়ায় সর্বকনিষ্ঠ হিসেবে আরও একটি রেকর্ড গড়েছেন তিনি।

মেসির বেতন

চ্যাম্পিয়নস লিগে ইংল্যান্ডের সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে গোলের রেকর্ড গড়েছেন প্রতিপক্ষের মাঠে। এর আগে রেকর্ডটি ছিল ট্রেন্ট আলেক্সান্দার-আর্নল্ডের। ২০১৭ সালে ১৯ বছর ১০ দিন বয়সে মারিবোরের মাঠে কীর্তিটি গড়েছিলেন তিনি।

 

সে যা-ই হোক, যদি প্রশ্ন করা হয় রোনালদোর মোট সম্পদের মূল্য কত? মানে, তাঁর বেতন, বোনাস, এনডোর্সমেন্ট, ব্যবসায়িক লেনাদেনা এবং অন্য সব খাত থেকে আয়কৃত অর্থ মিলিয়ে মোট সম্পদের দাম কত? সে অঙ্কটা চোখ কপালে তোলার মতো! প্রায় ৫০ কোটি ডলার। তাঁর মোট সম্পদের পরিমাণ টাকার অঙ্কে লিওনেল মেসির চেয়ে বেশি বলে বিবেচনা করা হয়। যদিও ক্যারিয়ারের বেশির ভাগ সময়ই আকর্ষণীয় সব চুক্তির মুখ দেখেছেন আর্জেন্টাইন তারকা।

গোল ডট কম রোনালদোর আয়ের যে অঙ্ক দেখিয়েছে, সে হিসাব অনুযায়ী, ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে তিনি সর্বোচ্চ পারিশ্রমিকপ্রাপ্ত খেলোয়াড়। সপ্তাহে ৩ লাখ ৮০ হাজার পাউন্ড বেতন নিয়ে তালিকার দুইয়ে ম্যানচেস্টার সিটি মিডফিল্ডার কেভিন ডি ব্রুইনা।

ইউনাইটেড গোলকিপার দাভিদ দে হেয়া সপ্তাহে ৩ লাখ ৭৫ হাজার পাউন্ড বেতন নিয়ে তিনে। সিটিতে সপ্তাহে সমান ৩ লাখ পাউন্ড করে বেতন পান জ্যাক গ্রিলিশ ও রাহিম স্টার্লিং। চেলসিতে এনগোলো কান্তের সাপ্তাহিক বেতন ২ লাখ ৯০ হাজার পাউন্ড।

সর্বকনিষ্ঠ হিসেবে রেকর্ড ভাঙা-গড়াটা তাঁর জন্য নতুন কিছু না।

মেসির বেতন

অনূর্ধ্ব-৮ বছর বয়সী হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন বার্মিংহাম সিটিতে। ১৬ বছর ৩৮ দিন বয়সে এই বার্মিংহাম সিটিরই সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে মূল দলে অভিষিক্ত হন জুড বেলিংহাম। সেটি ২০১৯ সাল। পরের বছর তাঁকে দলে ভেড়ায় বরুসিয়া ডর্টমুন্ড।

জার্মান ক্লাবটির হয়ে প্রথম প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচেই পেলেন গোলের দেখা— ১৭ বছর ৭৭ দিন বয়সে। সেটি ডর্টমুন্ডের ইতিহাসে সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে গোলের রেকর্ড।

ইংল্যান্ডের বয়সভিত্তিক দলের ধাপ পাড়ি দিয়ে বেলিংহাম জাতীয় দলে ডাক পান গত বছর। সেখানেও ‘অভ্যাস’ পাল্টাতে পারলেন না। ওয়েন রুনি ও থিও ওয়ালকটের পর ইংল্যান্ডের তৃতীয় সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে অভিষিক্ত হন ১৭ বছর ১৩৬ বয়সে।

গত ইউরোয় ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে ইংল্যান্ডের বদলি খেলোয়াড় হিসেবে মাঠে নামার সময় বেলিংহামের বয়স ছিল ১৭ বছর ৩৪৯ দিন। এর মধ্য দিয়ে ইংল্যান্ডের সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে বড় কোনো টুর্নামেন্টে খেলার রেকর্ড গড়েন। পাশাপাশি ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপেও সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে মাঠে নামার রেকর্ড গড়েন। যদিও ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে সে ম্যাচের ছয় দিন পর ইউরোর রেকর্ডটি নিজের করে নেন পোল্যান্ডের কাসপার কোজলোজস্কি।

চ্যাম্পিয়নস লিগে কাল রাতে বেসিকতাস-ডর্টমুন্ড ম্যাচেও সর্বকনিষ্ঠ হিসেবে একটি রেকর্ড গড়েছেন বেলিংহাম। ডর্টমুন্ডের ২-১ গোলে জয়ের ম্যাচে প্রথম গোলটি বেলিংহামের। এর মধ্য দিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগে সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় (১৮ বছর ৭৮ দিন) হিসেবে অন্তত টানা দুই ম্যাচে গোলের রেকর্ড গড়লেন ইংলিশ মিডফিল্ডার।

এর আগে গত মৌসুমে কোয়ার্টার ফাইনাল ফিরতি লেগে ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে মাঠে নেমে গোল করেছিলেন তিনি। দুই লেগ মিলিয়ে পরে ৪-২ ব্যবধানের জয় পেয়েছিল ম্যানচেস্টার সিটি।

আরো পড়ুন…

হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন শোয়েব আখতার

ভেঙে যাচ্ছে স্বপ্নের দল

অভিষেকেই মাথায় বলের আঘাত, হাসপাতালে নিতে হলো ওয়েস্ট ইন্ডিজের ফিল্ডারকে

‘নিখোঁজ’ চীনা টেনিস তারকাকে নিয়ে বিশ্বজুড়ে উদ্বেগ, নতুন ভিডিও প্রকাশ

হারের বৃত্তে আটকে থেকে সিরিজ হারালো বাংলাদেশ

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.