মুক্তি পেলেন মিয়ানমারে আটক মার্কিন সাংবাদিক ড্যানি ফেনস্টার

মুক্তিপেলেন মিয়ানমারে আটক মার্কিন সাংবাদিক ড্যানি ফেনস্টার

মিয়ানমারে কারাগার থেকে মুক্তি পেলেন মার্কিন সাংবাদিক ড্যানি ফেনস্টার। এর আগে ওই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী ও রাষ্ট্রদ্রোহর অভিযোগ এনেছিল মিয়ানমার জান্তা সরকার।

 

তাকে ১১ বছরের কারাদণ্ড ঘোষণা করার তিনদিনের মাথায় মুক্তি দিলো মিয়ানমার। তার প্রতিষ্ঠানের প্রধান এবং জাতিসংঘের সাবেক এক মার্কিন রাষ্ট্রদূত এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

 

ড্যানির আইনজীবী জানিয়েছেন, পাঁচ মাস কারাভোগ করেছেন তিনি। ইয়াঙ্গুন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে গত ২৪ মে আটক হন ড্যানি। তিনি অনলাইন ম্যাগাজিন ফ্রন্টিয়ার মিয়ানমারের ব্যবস্থাপনা সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন।

তার বিরুদ্ধে মিয়ানমারের জান্তা সরকারের বিরুদ্ধে সাধারণ মানুষের বিক্ষোভে উস্কানি দেওয়াসহ বেশ কয়েকটি অভিযোগ আনা হয়। আটকের পর থেকেই তিনি কারাগারে ছিলেন।

সোমবার জাতিসংঘে নিযুক্ত সাবেক মার্কিন রাষ্ট্রদূত বিল রিচার্ডসন বলেন, মিয়ানমারে তার হাতে ড্যানি ফেনস্টারকে হস্তান্তর করা হয়েছে। তিনি কাতার হয়ে খুব শিগগির বাড়ি ফিরতে পারবেন।

তিনি বলেন, আমরা খুবই আনন্দিত যে, শেষ পর্যন্ত ড্যানি মুক্তি পেয়েছেন এবং প্রিয়জনদের সঙ্গে আবারও দেখা করতে পারবেন। প্রথম থেকেই ড্যানির মুক্তির জন্য চেষ্টা করে আসছেন এই সাবেক রাষ্ট্রদূত।

 

গত ১ ফেব্রুয়ারি আকস্মিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে বেসামরিক সরকারকে সরিয়ে ক্ষমতা দখল করে সামরিক বাহিনী। সে সময় দেশটির বেসামরিক সরকারের প্রধান অং সান সু চিসহ আরও বেশ কয়েকজন কর্মকর্তাকে আটক করা হয়। তার এক সপ্তাহ পর থেকেই সামরিক সরকারের বিরুদ্ধে রাজপথে নামে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ।

বেসামরিক সরকারের হাতে ক্ষমতা ফিরিয়ে দিতে জান্তা সরকারের বিরুদ্ধে দিনের পর দিন বিক্ষোভ করছে মিয়ানমারের মানুষ। বিক্ষোভকারীদের কঠোর হাতে দমনে অভিযান চালিয়েছে সেনাবাহিনী। এতে বহু মানুষ প্রাণ হারিয়েছে এবং হাজার হাজার মানুষকে আটক করা হয়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.