Ultimate magazine theme for WordPress.

নোবেল বললেন ফেসবুক হ্যাকড, অডিওতে শোনা গেল ‘যা ইচ্ছা তাই পোস্ট করব’

বিনোদন ডেস্ক ১৫-০৫-২০২১

ঈদের আগের রাতে (১৩ মে) উঠতি গায়ক মাঈনুল আহসান নোবেলের ফেসবুক পেজ থেকে রক তারকা ফারুক মাহফুজ আনাম জেমসকে নিয়ে একের পর এক কুরুচিপূর্ণ স্ট্যাটাসে ব্যাপক বিতর্কের সৃষ্টি হয়। ওই বিতর্কের মুখে নোবেল জানান, তার ফেসবুক পেজ হ্যাকড হয়েছে।  
তবে নোবেলের দাবি, পেজটি পুরোপুরি বেহাত হয়নি। কিছুটা নিয়ন্ত্রণ এখনও তার হাতে রয়েছে।
নোবেল জানান, ইন্ডিয়াতে (ফেসবুকের আঞ্চলিক দফতর) যোগাযোগ করা হচ্ছে। ইন্ডিয়াতে কাজ না হলে প্রয়োজনে সিলিকন ভ্যালি পর্যন্ত যাব। পেজ আমরা উদ্ধার করব।
নিয়ন্ত্রণ হাতে থাকলে তবে স্ট্যাটাসগুলো ডিলিট করছেন না কেন, এমন প্রশ্নের জবাবে নোবেল বলেন, ‘আমাকে থ্রেট দেওয়া হচ্ছে যে, স্ট্যাটাসগুলো ডিলিট করলে আরও আজেবাজে স্ট্যাটাস দেওয়া হবে। যে কারণে স্ট্যাটাসগুলো আমি ডিলিট করতেছি না। আমি আমার ফেইসবুক পেইজ সিকিউর করতে চাই।’
যদিও পেইজ হ্যাকড সম্পর্কে প্রযুক্তিসংশ্লিষ্টদের বক্তব্য, ‘নোবেলের পেজ হ্যাক হয়নি। যারা এটা ভাবছেন তারা ভুলের মধ্যে আছেন। কারণ যে কোনো পেজের অ্যাডমিন রিমুভ করতে হলে এখন আগে তার কাছে নোটিফিকেশন যাবে এবং সে যদি না চায় তাকে কোনোভাবেই পেজ থেকে রিমুভ করতে পারবে না। নোবেল শুধু নিজের মিউজিক ভিডিওর প্রচারণার জন্য এসমস্ত লেইম পোস্ট করছে’।
এদিকে নোবেল যখন তার ফেসবুক পেজ হ্যাক হওয়ার দাবি করছেন, তখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি অডিও ছড়িয়ে পড়ে। অডিও নোবেলের কণ্ঠের মতো হুবহু কণ্ঠে এক ব্যক্তিকে বলতে শোনা যায়, ‘পেইজটা এমনিই দুই-তিনদিন পর চলে যাবে, পেজে আমার শেষ খোরাকি মিটায় রাখি, যা ইচ্ছা তাই পোস্ট করব।…(অশ্লীল গালিগালাজ)।… বুঝছ না, যা ইচ্ছা তাই পোস্ট করব, যা মাথায় আসে।’
যদিও অডিওতে যে ব্যক্তিকে কথা বলতে শোনা গেছে সেটি নোবেলের ভয়েস কিনা, তা একেটিভির পক্ষ থেকে নিরপেক্ষভাবে যাচাই করা সম্ভব হয়নি।
প্রসঙ্গত, ঈদের আগের রাতে (১৩ মে) জেমসকে নিয়ে একের পর এক বেশ কিছু আপত্তিকর ও কুরুচিপূর্ণ স্ট্যাটাস দেওয়া হয় ‘নোবেল ম্যান’ ফেসবুক পেজ থেকে। এ নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে তোলপাড় চলছে। জেমসকে নিয়ে আপত্তিকর নোবেলের সব স্ট্যাটাসে নেতিবাচক কমেন্টে সয়লাব হয়ে গেছে।
‘ওই জেমস! ঈদের গান কই? নাকি ভয়েস গেছেগা’- এভাবেই ফের বিস্ফোরক ভারতের রিয়েলি টিভি শো ‘সারেগামাপা’ থেকে জনপ্রিয়তা পাওয়া নোবেল।
জেমসের ভক্তদের তীব্র কটাক্ষ করে একটি স্টাটাসে লেখা হয়, ‘তোদের সো কল্ড লেজেন্ড জেমসের কয়ডা গান রিলিজ হইসে গত কয়েক বছরে? ঝিমায় গেছে নাকি? লুল!’
জেমসকে তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করে রাতভর একের পর এক পোস্ট আসতেই থাকে। ওই সব পোস্টের আরেকটি হলো ‘বেটা বয়স হইসে। এবার বাদ দে গান বাজনা। বহুত করসোস।’
এরপর ব্যান্ড তারকা জেমসকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন নোবেল। লেখেন, ‘জেমস অভিনয় কভার করুক। তারপর বুঝবো কার গলায় কত জোর। আমি জেমসের গান ঘুমায় ঘুমায় গেয়ে দেবো। লুল।’
নোবেলের এমন ‘অস্বাভাবিক’ আচরণে ভক্তরাও তীব্র আক্রমণ শুরু করেন। চলতেই থাকে মন্তব্যের খেলা
Leave A Reply

Your email address will not be published.