Ultimate magazine theme for WordPress.

কী লেখা ছিল সালমান শাহর সুইসাইড নোটে?

দীর্ঘ ২৪ বছর পর নব্বইয়ের দশকের জনপ্রিয় চিত্রনায়ক সালমান শাহর মৃত্যুর ঘটনায় তদন্ত প্রতিবেদন তৈরি করতে পেরেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। দীর্ঘ এই তদন্তে হত্যার প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তবে ২৪ বছর আগে লেখা সালমান শাহ’র সুইসাইড নোটটি আবারও তুলে ধরে পিবিআই।

সোমবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সালমান শাহর হত্যার রহস্য উদঘাটন নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে পিবিআই’র প্রধান বনজ কুমার মজুমদার এসব তথ্য জানায়।

তিনি বলেন, ‘সেই সময়ের একটি সুইসাইডাল নোট উদ্ধার করা হয়। আমরা সেটা নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছি। হ্যান্ড রাইটিং এক্সপার্টকে আমরা সুইসাইট নোটটি দেখিয়েছি। উনি হাতের লেখা দেখে- তা সালমান শাহর বলে চিহ্নিত করেছেন।’

যা লেখা ছিল সুইসাইড নোটে-
‘আমি চৌঃ মোঃ শাহরিয়ার। পিতা কমরূদ্দীন আহমেহ চৌধুরী। ১৪৬/৫ গ্রীনরোড ঢাকা#১২১৫ ওরফে শালমান শাহ। এই মর্মে অঙ্গিকার করছি যে, আজ অথবা আজকের পর যে কোন দিন আমার মৃত্যু হলে তার জন্য কেউ দায়ী থাকবে না। স্বেচ্ছায়, স্বজ্ঞানে, সুস্থ মস্তিষ্কে আমি আত্মহত্যা করছি।’

পিবিআই প্রধান বলেন, ‘১০ সাক্ষীর ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি পর্যালোচনা করা হয়েছে। একজন সাক্ষীকে অন্তত ১০ বার ডেকে নিয়ে এসেছি। কারণ সেই সময়ের স্মৃতি কতটুকু তাদের মনে আছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনসহ সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকসহ সকলের মতামত বিশ্লেষণ করে প্রমাণ পাই সালমান শাহ খুন হননি।’

সামিরার বরাত দিয়ে পিবিআই প্রধান বলেন, ‘শাবনূরকে বিয়ে করে সালমান শাহ দুই স্ত্রী নিয়ে সংসার করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু সামিরা রাজি ছিলেন না। এখান থেকেই পারিবারিক দাম্পত্য কলহের শুরু হয়। তাছাড়া আগে থেকেই সামিরার শ্বাশুড়ির সঙ্গে ঝগড়া-বিবাদের ফলে সালমান শাহ ১৯৯১ সালে দু’বার আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন। সেসময় সালমান শাহ একবার ৯০টি ঘুমের ট্যাবলেট খেয়েছিলেন এবং একবার সেভলন খেয়েছিলেন।’

তবে সালমান শাহর সঙ্গে অতিরিক্ত অন্তরঙ্গ সম্পর্কের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন শাবনুর। এই চিত্রনায়িকার বরাত দিয়ে পিবিআই প্রধান বলেন, ‘একজন অভিনয় শিল্পী হিসেবে সহযোগী শিল্পীর সঙ্গে যেমন সম্পর্ক থাকা প্রয়োজন, সালমান শাহর সঙ্গে তার তেমন সম্পর্কই ছিল। এর বাইরে কোনও সম্পর্ক ছিল না।’

১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর মারা যান চলচ্চিত্র অভিনেতা চৌধুরী মোহাম্মদ শাহরিয়ার ইমন ওরফে সালমান শাহ। সে সময় এ বিষয়ে অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করেছিলেন তার বাবা প্রয়াত কমরউদ্দিন আহমদ চৌধুরী।

Leave A Reply

Your email address will not be published.