বাংলাদেশ সফরে থাকছেন না অ্যারন ফিঞ্চ

বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া সিরিজ করোনার ভয়াবহতার জন্য হয়  আদৌ মাঠে গড়াবে কিনা, তা নিয়ে  ধোঁয়াশা সৃষ্টি হয়েছিল। অনেক নাটকীয়তার পরে অবশেষে নিশ্চিত হয় অস্ট্রেলিয়া আসবে বাংলাদেশে। তবে আগামী মাসের ৩ তারিখ থেকে শুরু হতে যাওয়া সিরিজের জন্য ২৯ তারিখে বাংলাদেশে আসতে চেয়েছিল অজিরা।  কিন্তু বিধি বাম! চলমান ওয়েস্ট ইন্ডিজ-অস্ট্রেলিয়া সিরিজে  জৈবসুরক্ষা বলয়ে  করোনা ঢুকে যাওয়ার কারণে  সিরিজ পিছিয়েছে দুই দিন। যার কারণে বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া সিরিজ বিলম্ব হতে পারে।  এমনকি ম্যাচের সূচিও  বদলে যেতে পারে। 

অস্ট্রেলিয়ার সাথে সিরিজ মুশফিকুর রহিম খেলতে পারবেন কিনা সে ব্যাপারে অনিশ্চয়তা কাজ করছে। জিম্বাবুয়ে  সিরিজ চলাকালীন মুশফিকুর রহিম পারিবারিক কারণে দেশে ফেরেন। অস্ট্রেলিয়া সিরিজে থাকতে হলে মুশফিককে ২১ জুলাই থেকে কোয়ারেন্টিন শুরু করতে হতো কিন্তু মুশফিক কোয়ারেন্টিন না করায়  করোনা ঝুঁকির কথা ভেবে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া মুশফিকের ব্যাপারে একবিন্দু ছাড় দিতে রাজি নয়।

এদিকে  মুশফিকের খেলা নিয়ে দোদুল্যমান অবস্থা  থাকলেও  অজি অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ  যে এই সিরিজ  খেলতে পারবেন না এটা নিশ্চিত। হঠাৎ করে হাঁটুর ইনজুরিতে পড়ায় চলমান ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ ও বাংলাদেশের বিপক্ষে পুরো সিরিজ  মাঠের বাইরে থাকতে হবে ফিন্স কে।

এদিকে ফিঞ্চের অনুপস্থিতিতে অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়কত্ব করতে পারেন ওয়েড। দেশে ফিরে হাঁটুর অস্ত্রোপচার করবেন ফিঞ্চ। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া আশা করছে, বছরের শেষে হতে যাওয়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগেই মাঠে ফিরবেন দলের অধিনায়ক। ফিঞ্চ না থাকায় ম্যাথু ওয়েডের অধিনায়কত্ব করার সুযোগ বেড়ে গেল আরেকটু। এদিকে হাঁটুর ইঞ্জরিতে পড়া অজি অধিনায়ক দেশে ফিরেই অস্ত্রোপচার করবেন। তবে স্বস্তির খবর হলো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগেই ফিন্সকে দল পাবে অজিরা এমনি আশা করছেন চিকিৎসক।

 

সম্পাদনা: আরিফুল ইসলাম লিখন।

Loading...