বাংলাদেশের হয়ে দারুণ বল করেন নাসুম আহমেদ

ডেস্ক

সম্বল যখন ১৩১ রান, তখন লড়াই করাটাই তো অনেক বড় ব্যাপার টি-টোয়েন্টিতে। বাংলাদেশের লক্ষ্যও ছিল তাই। বোলারদের প্রতি বার্তা ছিল, যতটা সম্ভব বেশি ডট বল করার।

সেই ডট বলের চেষ্টাতেই শুধু সফল হননি নাসুম আহমেদ, ১৯ রানে ৪ উইকেট নিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে গুঁড়িয়ে দেওয়ার মূল ভূমিকা পালন করেছেন এই বাঁহাতি স্পিনার।

 

সর্বশেষ জিম্বাবুয়ে সফরে নাসুম খেলেছিলেন একটি ম্যাচই। সেটিতে ৩ ওভারে গুনেছিলেন ৩৭ রান। তবে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচের আগের দিন হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গো জানিয়েছিলেন, নাসুম খেলবেন। বাড়তি দায়িত্ব নেওয়ার কথাও মনে করিয়ে দিয়েছিলেন। নাসুম সেটি নিয়েছেনও।
বোলিংয়ে ইনিংসের প্রথম বলেই মেহেদী হাসান উইকেট পাওয়ার পর দ্বিতীয় ওভারেই নাসুমকে এনেছেন মাহমুদউল্লাহ। নাসুম সফল হয়েছেন প্রথম ওভারেই।

নাসুম জানালেন, ফিল্ডিংয়ে নামার আগেই অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ বলেছিলেন বেশি বেশি ডট বল করার কথা, ‘আমরা যখন ১৩১ রান করেছি, তখন নামার আগে (মাহমুদউল্লাহ) রিয়াদ ভাই বলছিলেন এ রানেই লড়াই করার কথা। ডট বল করে যতটুকু পারি চেষ্টার কথা বলেছিলেন। ওই ডট বলের চিন্তাই করছিলাম।’

 

 

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি–টোয়েন্টিতে এক ইনিংসে বাংলাদেশের সেরা বোলিং পারফরম্যান্স এখন নাসুমের

মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের এ উইকেটের ব্যাটিং সহজ ছিল না। বল স্বাভাবিকভাবেই ব্যাটে আসছিল ধীরে। তবে নাসুমের দ্বিতীয় বলেই ছক্কা মেরে দেন জশ ফিলিপে।

সাকিব তাঁকে আরেকটু আক্রমণাত্মক হতে বলেছিলেন, ‘যখন প্রথম দুটো বল করলাম ব্যাক অব লেংথে, তখন সাকিব ভাই আমাকে বললেন, এই উইকেটে ধীরগতির বলটাই ভালো। এবং আরেকটু সামনে করলে ভালো হয়। তো ওটাই চেষ্টা করেছি।

 

 

১২টি ডট বল নেওয়া নাসুম প্রতি ওভারেই উইকেট নিয়েছেন।

নাসুমের চার ওভার মাহমুদউল্লাহ করিয়েছেন তিনটি ভিন্ন স্পেলে। ১২টি ডট বল নেওয়া নাসুম প্রতি ওভারেই উইকেট নিয়েছেন।

নাসুম জানালেন, মাহমুদউল্লাহ ও সাকিবের পরামর্শ মানার ফল পেয়েছেন, ‘চারটা ওভার যে করেছি, সব সময়ই সাকিব ভাই ও রিয়াদ ভাই আমার সঙ্গে কথা বলেছেন। রিয়াদ ভাই বলেছিলেন, “ওকে ওর মতো বল করতে দে।” তো ডট বল করার চেষ্টাতেই সফল হয়েছি।’

 

 

উইকেটের সহায়তা পেয়ে স্পিনে দারুণ ফাঁদ পেতেছিলেন নাসুম

উইকেটে সহায়তা ছিল স্পিনারদের, সঙ্গে নিজেদের চেষ্টার কথাও বলেছেন নাসুম, ‘অস্ট্রেলিয়া দলকে নিয়ে একটাই চিন্তা ছিল যে আমরা জিতব। কাল আমি দোয়াও করছিলাম, আল্লাহ, এখনো আমরা একটা ম্যাচও জিতিনি। এবার যেন জিততে পারি। তো সবাই মিলে চেষ্টা করেছি, আলহামদুলিল্লাহ, সফল হয়েছি।’

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি–টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের হয়ে এখন সেরা বোলিং ফিগারটাও নাসুমের। তিনি ছাড়িয়ে গেছেন সাকিবকে। ২০১৬ সালে ব্রিজটাউনে সাকিব ৩ উইকেট নিয়েছিলেন ২৭ রানে।

 

চলমান কঠোর বিধিনিষেধ আবার বাড়লো

 

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে দেশে চলমান কঠোর বিধিনিষেধ আরও পাঁচ দিন বাড়িয়ে ১০ আগস্ট পর্যন্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার ।

মঙ্গলবার করোনাভাইরাসের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে সরকারের উচ্চপর্যায়ের এক সভা শেষে এ তথ্য জানান বৈঠকের সভাপতি ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

তিনি বলেন, দোকানপাট খোলা হলেও সংশ্লিষ্টদের টিকা নিয়ে খুলতে হবে। নিজ নিজ ওয়ার্ড থেকে সবাইকে টিকা নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

সর্বশেষ ঘোষণা অনুযায়ী, এখন ৫ আগস্ট পর্যন্ত বিধিনিষেধ রয়েছে। তবে ১ আগস্ট থেকে রপ্তানিমুখী শিল্পকারখানা খুলে দেওয়ার পর প্রশ্ন উঠেছে, তাহলে ৫ আগস্টের পর বিধিনিষেধ আর বাড়বে কি না।

করোনার সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে ঈদের পর ২৩ জুলাই থেকে বিধিনিষেধ চলছে, যা ৫ আগস্ট পর্যন্ত চলবে। এবার সরকার থেকে কঠোরতম বিধিনিষেধের কথা বলা হলেও শেষ পর্যন্ত ব্যবসায়ীদের দাবির মুখে সেটা আর রাখতে পারেনি।

গত শুক্রবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের এক আদেশে জানানো হয়, ১ আগস্ট থেকে রপ্তানিমুখী সব শিল্প ও কলকারখানা চলমান বিধিনিষেধের আওতাবহির্ভূত করা হয়েছে। এই সিদ্ধান্তের পর শ্রমিকেরা গ্রামের বাড়ি থেকে দুর্ভোগ নিয়ে ঢাকাসহ বিভিন্ন কলকারখানার অভিমুখে রওনা হন।

 

 

একপর্যায়ে রোববার দুপুর পর্যন্ত গণপরিবহন চালুর অনুমোদন দেয় সরকার। লঞ্চের সময় অবশ্য গতকাল সোমবার ভোর পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছিল।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে দেশে চলমান কঠোর বিধিনিষেধ আরও পাঁচ দিন বাড়িয়ে ১০ আগস্ট পর্যন্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার ।

মঙ্গলবার করোনাভাইরাসের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে সরকারের উচ্চপর্যায়ের এক সভা শেষে এ তথ্য জানান বৈঠকের সভাপতি ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

তিনি বলেন, দোকানপাট খোলা হলেও সংশ্লিষ্টদের টিকা নিয়ে খুলতে হবে। নিজ নিজ ওয়ার্ড থেকে সবাইকে টিকা নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

সর্বশেষ ঘোষণা অনুযায়ী, এখন ৫ আগস্ট পর্যন্ত বিধিনিষেধ রয়েছে। তবে ১ আগস্ট থেকে রপ্তানিমুখী শিল্পকারখানা খুলে দেওয়ার পর প্রশ্ন উঠেছে, তাহলে ৫ আগস্টের পর বিধিনিষেধ আর বাড়বে কি না।

করোনার সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে ঈদের পর ২৩ জুলাই থেকে বিধিনিষেধ চলছে, যা ৫ আগস্ট পর্যন্ত চলবে। এবার সরকার থেকে কঠোরতম বিধিনিষেধের কথা বলা হলেও শেষ পর্যন্ত ব্যবসায়ীদের দাবির মুখে সেটা আর রাখতে পারেনি।

গত শুক্রবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের এক আদেশে জানানো হয়, ১ আগস্ট থেকে রপ্তানিমুখী সব শিল্প ও কলকারখানা চলমান বিধিনিষেধের আওতাবহির্ভূত করা হয়েছে। এই সিদ্ধান্তের পর শ্রমিকেরা গ্রামের বাড়ি থেকে দুর্ভোগ নিয়ে ঢাকাসহ বিভিন্ন কলকারখানার অভিমুখে রওনা হন।

একপর্যায়ে রোববার দুপুর পর্যন্ত গণপরিবহন চালুর অনুমোদন দেয় সরকার। লঞ্চের সময় অবশ্য গতকাল সোমবার ভোর পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছিল।

 

 

আবারো সব নৌযান বন্ধ
মহামারী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে গত ২৩ জুলাই থেকে ৫ আগস্ট পর্যন্ত কঠোর লকডাউন ঘোষণা করে সরকার। তবে রপ্তানিমুখী সব পোশাক কারখানা খুলে দেওয়ায় কাজে যোগ দিতে শুক্রবার রাত থেকেই হাজার হাজার শ্রমিক ও সংশ্লিষ্টরা ঢাকা, গাজীপুর ও নারায়ণগঞ্জসহ বিভিন্ন এলাকায় যাত্রা শুরু করেন।

তাদের নিরাপদে কর্মস্থলে ফেরার সুযোগ দিতে সরকার শনিবার রাত থেকে রোববার দুপুর ১২টা পর্যন্ত গণপরিবহন চলাচলের অনুমতি দেয়। ভিড় থাকায় পরে রোববার ১২টায় লঞ্চ বন্ধ না করে চালু রাখার ঘোষণা দেয় সরকার।

৩৮ ঘণ্টা চালু থাকার পর সোমবার সকাল ১০টায় লঞ্চ চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এখনো পর্যন্ত সরকারি যে ঘোষণা রয়েছে, তাতে ৫ আগস্ট পর্যন্ত সব ধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ থাকবে।

সোমবার রাজধানীর সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনালে ঘুরে দেখা যায়, ভোর ৫টা থেকে ৬টা পর্যন্ত কর্মস্থলে ফেরা যাত্রীদের চাপ থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সে চাপ কমতে থাকে। ভোরে যাত্রীদের ভিড়ে পন্টুনে মানা হয়নি স্বাস্থ্যবিধি। সেখানে মাস্ক ছাড়াই যাত্রীদের যাতায়াত করতে দেখা গেছে।

লঞ্চ টার্মিনালে হকাররা ঝালমুড়ি, আম, আপেল, খেজুরসহ বিভিন্ন জিনিসপত্র নিয়ে একজনের কাছ থেকে আরেকজনের কাছে গিয়ে বিক্রি করছেন। তাদের কারও মুখে নেই মাস্ক। হাত পরিষ্কার না করেই খাচ্ছেন কেউ কেউ।

 

 

আলোচিত মডেল পিয়াসা মদ, ইয়াবাসহ আটক
ফলে সরকার ঘোষিত স্বাস্থ্যবিধি রক্ষা হচ্ছে না কোথাও। তবে সব যাত্রী নিজ নিজ গন্তব্যে চলে যাওয়ায় সকাল ৭টার পরে সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল একে বারে জনশূন্য হয়ে পড়ে।

টার্মিনালে সারি সারি লঞ্চ, কিন্তু কোনো যাত্রী নেই। নেই কোনো হাঁক ডাক৷ এরপর সকাল ১০টায় লঞ্চ চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

এমভি মোহনা-৭ লঞ্চের সুপারভাইজার মো. তিয়াস বলেন, তারা রাত সাড়ে ৪টায় সদরঘাট এসেছি। মাত্র জনা ৪০ যাত্রী নিয়ে এখন লঞ্চ ছেড়ে যাবে। কোনো যাত্রী নেই। আসার সময় হাজার দুই যাত্রী নিয়ে এসেছি। সবচেয়ে বেশি যাত্রী এসেছে বেতুয়া, ইলিশা থেকে। ১০টার পর থেকে আবার ৫ আগস্ট পর্যন্ত লঞ্চ চলাচল বন্ধ। এখানে থেকে কি করব, তাই চলে যাচ্ছি।

তিনি বলেন, সকাল থেকে মাত্র পাঁচ/ছয়টি লঞ্চ ছেড়ে গেছে। প্রতি লঞ্চেই এ রকম ২৫/৩০ জন করে যাত্রী নিয়ে গেছে।

ইলিশা থেকে ঢাকায় আসা রাকিব হাসান বলেন, গার্মেন্টসে চাকরি করি। ১ তারিখ থেকে খুলেছে, যেতে পারিনি। আজ যাব। অনেক কষ্টে ঢাকায় এসেছি। লঞ্চ না চললে আসতে পারতাম না। তখন হয়তো চাকরিটা থাকতো না। এজন্য সরকারকে ধন্যবাদ।

 

একই স্থান থেকে এসেছেন আরেক পোশাক শ্রমিক আয়শা আক্তার। তিনি জানান, অনেক কষ্টে লঞ্চে উঠেছেন। লঞ্চে পা ফেলার জায়গা ছিল না। কোনো রকমে এক কোণায় বসে এসেছেন। হঠাৎ করে গার্মেন্টস খোলায় এত ভিড়। আমাদের যদি আগে বলে দিতো, তাহলে ঢাকা ছেড়ে যেতাম না। আমাদের বলেছে ৫ তারিখের পড়ে খোলা হবে। মালিকরা শুধু আমাদের নিয়ে খেলা করে।

বাংলাদেশ লঞ্চ মালিক সমিতির সহ-সভাপতি সাইদুর রহমান রিন্টু বলেন, দেড় দিন লঞ্চ চলার পর সোমবার সকাল ১০টা থেকে ফের বন্ধ হয়ে গেছে নৌযান। গত দেড় দিনে আমরা আশানুরূপ যাত্রী পাইনি। সরকার ধাপে ধাপে অনুমিত দেওয়ায় এ সুবিধা কেউ নিতে পারেনি। আমাদের যদি শুক্রবার দিন একবারে বলে দিতো যে রোববার সকাল পর্যন্ত লঞ্চ চলবে, তাহলে আমরা প্রচার করে দিতে পারতাম।

কিন্তু সেটা না হওয়ায় পাটুরিয়া-শিমুলিয়া ঘাটে যাত্রীদের দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে। আমরা আজ থেকে ৫ আগস্ট পর্যন্ত সরকারের নির্দেশ মতো লঞ্চ বন্ধ রাখবো।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষের ট্রাফিক বিভাগ জানায়, দক্ষিণাঞ্চলের ২১ জেলার যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম হলো নৌপথ। শনিবার রাত সাড়ে ১২টা থেকে সকাল ৯টা পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন রুটে সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল থেকে ছেড়ে গেছে মাত্র ১০টি লঞ্চ। এর মধ্যে পাঁচটি লঞ্চে কোনো যাত্রী ছিল না।

এসময়ে সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনালে এসেছে প্রায় ৩৭টি লঞ্চ। দক্ষিণাঞ্চলে লঞ্চগুলো সাধারণত ভোর ৫ থেকে ৬টার মধ্যে চলে আসে।

 

 

অর্ধেক যাত্রী নিয়ে নৌযান চলাচল
এদিকে গত ১ জুলাই থেকে কঠোর লকডাউন ঘোষণা করে সরকার। এরপর মঙ্গলবার এক জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে কঠোর বিধি-নিষেধ শিথিল করায় ১৪ জুলাই মধ্যরাত থেকে ২৩ জুলাই সকাল ৬টা পর্যন্ত ধারণক্ষমতার অর্ধেক যাত্রী নিয়ে নৌযান চলাচল করলেও ২৩ জুলাই ৬টার পর আবার সব বন্ধ হয়ে যায়।

কিন্তু ৩০ জুলাই দেশের সব রপ্তানিমুখী পোশাক কারখানা খোলায় প্রথমে ১৬ ঘণ্টা, পরে আরো ২২ ঘণ্টাসহ মোট ৩৮ ঘণ্টার জন্য লঞ্চ চলাচলের অনুমতি দেয় সরকার। ৩৮ ঘণ্টা শেষে সোমবার সকাল ১০টা থেকে ৫ আগস্ট পর্যন্ত অভ্যন্তরীণ নৌপথে সব ধরনের যাত্রীবাহী নৌযান চলাচল বন্ধ থাকবে।

 

 

আরও পড়ুন…
ফের বাড়তে পারে বিধিনিষেধ

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার এখনো ঊর্ধ্বমুখী। এ অবস্থায় সরকারের দেয়া চলমান বিধিনিষেধের মেয়াদ আরও বাড়তে পারে।
তবে জীবন-জীবিকার স্বার্থে কিছুক্ষেত্রে শিথিলতাও থাকতে পারে। ১ আগস্ট রোববার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের একজন কর্মকর্তা সাংবাদিকদের বলেন, করোনায় মৃত্যুর হার এখনো দুইশর বেশি। এ অবস্থায় বিধিনিষেধ তুলে দেওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের আরেকজন কর্মকর্তা একেটিভিকে বলেন, বর্তমানে করোনার যে পরিস্থিতি, তা বিবেচনা করে বিধিনিষেধ বাড়ানো হতে পারে। তবে জীবন-জীবিকার কথা চিন্তা করে কিছুক্ষেত্রে শিথিলতাও থাকতে পারে।

সংক্রমণ ঠেকাতে অন্তত ১০ দিন বিধিনিষেধ বাড়ানোর জন্যে গত ৩০ জুলাই স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে সুপারিশ করা হয়।

এদিন অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এ বি এম খুরশীদ আলম বলেন, যেভাবে করোনার সংক্রমণ বাড়ছে, আমরা কীভাবে এই সংক্রমণ সামাল দেব? রোগীদের কোথায় জায়গা দেব?

এদিকে, স্বাস্থ্য অধিদফতরের এ সুপারিশ নিয়ে পর্যালোচনা করছে সরকার। আগামী ৩ অথবা ৪ আগস্ট এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলেও জানা গেছে।

বিষয়টি নিয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, সুপারিশ অবশ্যই আমাদের মাথায় আছে। কারণ সবকিছুর সমন্বয় আমাদের করতে হবে। সেজন্য আমরা বলছি যে, একটু সময় নেব। ৩ বা ৪ তারিখে এ বিষয়টি পরিষ্কার করে দেব।

৫ তারিখের পর কী হবে- জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘কী হবে, সেটির এখনো সিদ্ধান্ত পাইনি। প্রধানমন্ত্রী সিদ্ধান্ত জানাবেন। সে পরিপ্রেক্ষিতে আমরা ব্যবস্থা নেব।

 

 

হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে মামলার তদন্ত ডিবিতে

 

আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত নেত্রী হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে হওয়া ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলার তদন্তভার ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা শাখায় (ডিবি) স্থানান্তর করা হয়েছে। আজ রোববার বিকেলে গুলশান থানা থেকে মামলার তদন্তভার ডিবির স্পেশাল সাইবার ক্রাইম বিভাগে দেওয়া হয়েছে।

ডিএমপির গুলশান বিভাগের উপকমিশনার সুদীপ কুমার চক্রবর্ত্তী এ তথ্য জানান।
এদিকে হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আরও দুই মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। গুলশান থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ও পল্লবী থানায় টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ আইনে করা মামলায় আজ তাঁকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

উপকমিশনার সুদীপ কুমার চক্রবর্ত্তী আজ বিকেলে একেটিভিকে বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় রিমান্ডে থাকা হেলেনা জাহাঙ্গীরকে ডিবির কাছে সোপর্দ করা হয়েছে। তিন দিনের রিমান্ডের আজ দ্বিতীয় দিন।

গত বৃহস্পতিবার রাত আটটার দিকে হেলেনা জাহাঙ্গীরের গুলশানের বাসায় অভিযান চালায় র‍্যাব। প্রায় সোয়া চার ঘণ্টার অভিযানে ওই বাসা থেকে বিদেশি মদ, বিদেশি মুদ্রা, হরিণ ও ক্যাঙারুর চামড়া, ক্যাসিনোর সরঞ্জাম ও ওয়াকিটকি সেট উদ্ধার করা হয়। রাত সোয়া ১২টার দিকে হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আটক করে র‍্যাবের সদর দপ্তরে নেওয়া হয়।

এরপর দিবাগত রাত দুইটার দিকে র‍্যাবের একটি দল মিরপুরে হেলেনা জাহাঙ্গীরের মালিকানাধীন জয়যাত্রা টেলিভিশন ও জয়যাত্রা ফাউন্ডেশন ভবনে অভিযান চালায়। পরদিন ব্রিফিং করে র‌্যাব জানায়, হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে ভিন্ন আইনে পাঁচটি মামলা করা হবে।

আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক উপকমিটির সদস্য ছিলেন হেলেনা জাহাঙ্গীর। গত ১৭ জানুয়ারি তাঁকে এই পদ দেওয়া হয়। গত রোববার তাঁকে সংগঠন থেকে অব্যাহতি দিয়ে সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়।

 

আরও পড়ুন…

হেলেনা জাহাঙ্গীর তিন দিনের রিমান্ডে

আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত নেত্রী হেলেনা জাহাঙ্গীরকে তিন দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার অনুমতি দিয়েছেন আদালত। পুলিশের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালত আজ শুক্রবার রাতে এই আদেশ দেন।

একেটিভিকে এই তথ্য নিশ্চিত করেন ঢাকার সিমএমএম আদালতের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) হেমায়েত উদ্দিন খান।

এর আগে আসামি হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আদালতে হাজির করে গুলশান থানায় করা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় পাঁচ দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার আবেদন করে পুলিশ। উভয় পক্ষের শুনানি নিয়ে আদালত তিন দিন রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

গত বৃহস্পতিবার রাত আটটার দিকে হেলেনা জাহাঙ্গীরের গুলশানের বাসায় অভিযান চালায় র‍্যাব। প্রায় সোয়া চার ঘণ্টার অভিযানে ওই বাসা থেকে বিদেশি মদ, বিদেশি মুদ্রা, হরিণ ও ক্যাঙারুর চামড়া, ক্যাসিনোর সরঞ্জাম ও ওয়াকিটকি সেট উদ্ধার করা হয়। রাত সোয়া ১২টার দিকে হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আটক করে র‍্যাবের সদর দপ্তরে নেওয়া হয়। এরপর দিবাগত রাত দুইটার দিকে র‍্যাবের একটি দল মিরপুরে হেলেনা জাহাঙ্গীরের মালিকানাধীন জয়যাত্রা টেলিভিশন ও জয়যাত্রা ফাউন্ডেশন ভবনে অভিযান চালায়। রাতভর ওই অভিযান চলে।

আজ শুক্রবার বিকেলে কুর্মিটোলায় র‍্যাব সদর দপ্তরে আয়োজিত এক ব্রিফিংয়ে র‍্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক খন্দকার আল মঈন বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হেলেনা জাহাঙ্গীর স্বীকার করেছেন, তিনি উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গের মানহানি ও সুনাম নষ্ট করেছেন। যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমতি না নিয়েই আইপি টিভি চ্যানেল পরিচালনা করছিলেন হেলেনা জাহাঙ্গীর। তিনি জেলায় জেলায় প্রতিনিধি নিয়োগের নামে চাঁদাবাজি করেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে মিরপুরে অবস্থিত ওই টেলিভিশন কার্যালয়ে অভিযান চালিয়ে সেটি সিলগালা করে দেওয়া হয়েছে। টিভির সম্প্রচার-সরঞ্জাম জব্দ করেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।

 

আওয়ামী লীগের উপকমিটির সদস্য ছিলেন হেলেনা জাহাঙ্গীর

ব্রিফিংয়ে আল মঈন জানান, হেলেনা জাহাঙ্গীরের ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন, বিশেষ ক্ষমতা আইন, বন্য প্রাণী সংরক্ষণ আইন ও টেলিযোগাযোগ আইনে পৃথক মামলা হবে।

আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক উপকমিটির সদস্য ছিলেন হেলেনা জাহাঙ্গীর। গত ১৭ জানুয়ারি তাঁকে এই পদ দেওয়া হয়। গত রোববার তাঁকে সংগঠন থেকে অব্যাহতি দিয়ে সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়। এতে বলা হয়, হেলেনা জাহাঙ্গীর আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক উপকমিটির সদস্য ছিলেন। কিন্তু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারিত তাঁর সাম্প্রতিক কর্মকাণ্ড সংগঠনের নীতিবহির্ভূত হওয়ায় আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক উপকমিটির সদস্যপদ হতে তাঁকে অব্যাহতি দেওয়া হলো।

এর আগে ২০২০ সালের ডিসেম্বরের দিকে হেলেনা জাহাঙ্গীর কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য হন। আবদুল মতিন খসরু মারা গেলে ওই আসনে মনোনয়নের জন্য দলীয় ফরম সংগ্রহ করেছিলেন। তবে মনোনয়ন পাননি।

সম্প্রতি ফেসবুকে নেতা বানানোর ঘোষণা দিয়ে ছবি পোস্ট করে আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দেন হেলেনা জাহাঙ্গীর। ‘বাংলাদেশ আওয়ামী চাকরিজীবী লীগ’ নামের একটি সংগঠনের ব্যানারে সংগঠনটির জেলা, উপজেলা ও বিদেশি শাখায় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নিয়োগ দেওয়া হবে বলে ঘোষণা দেওয়া হয়, যা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। কথিত এই সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি হিসেবে হেলেনা জাহাঙ্গীর ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে মাহবুব মনিরের নাম উল্লেখ করা হয়।

 

আরও পড়ুন…
হেলেনা-জাহাঙ্গীরকে-আটক

হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আটক করেছে র‌্যাব

আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত নেত্রী ব্যবসায়ী হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আটক করেছে র‌্যাব। আজ রাত সোয়া ১২টার দিকে তাঁকে আটক করে র‍্যাব সদর দপ্তরে নেওয়া হয়।

র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার আল মঈন একেটিভিকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসা থেকে কয়েক বোতল মদ, বিভিন্ন ধরনের মাদকদ্রব্য, বন্য প্রাণীর চামড়া ও ওয়াকিটকি সেট উদ্ধার করা হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এর আগে র‌্যাবের একটি দল রাত আটটার দিকে রাজধানীর গুলশান ২ এর ৩৬ নম্বর সড়কে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসায় অভিযান শুরু করে। র‍্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক কর্নেল কে এম আজাদ বলেন, হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসা থেকে তাঁকে রাত সোয়া ১২টার দিকে র‍্যাব সদর দপ্তরে নিয়ে যাওয়া হয়। কিছু বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানতে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক উপকমিটির সদস্যপদ থেকে গত রোববার হেলেনা জাহাঙ্গীরকে অব্যাহতি দিয়ে আনুষ্ঠানিক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়। বিজ্ঞপ্তিতে উপকমিটির সদস্যসচিব ও আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদক মেহের আফরোজ সই করেন। এতে বলা হয়, হেলেনা জাহাঙ্গীর আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক উপকমিটির সদস্য ছিলেন। কিন্তু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারিত তাঁর সাম্প্রতিক কর্মকাণ্ড সংগঠনের নীতিবহির্ভূত হওয়ায় আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক উপকমিটির সদস্যপদ হতে তাঁকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তি দেওয়ার আগে গত শনিবার রাতে মেহের আফরোজ একেটিভিকে বলেছিলেন, হেলেনা জাহাঙ্গীর উপকমিটির সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করতে পারছেন না। তাঁর কিছু কিছু কাজ সংগঠনকে বিব্রত করছে। এ জন্য তাঁকে উপকমিটির সদস্যপদ থেকে অব্যাহতি দেওয়ার নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে। শিগগিরই আনুষ্ঠানিকভাবে তা জানানো হবে। জয়যাত্রা টেলিভিশনের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও হেলেনা জাহাঙ্গীর আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক কেন্দ্রীয় উপকমিটির সদস্য হয়েছিলেন গত ১৭ জানুয়ারি। এর আগে ২০২০ সালের ডিসেম্বরের দিকে তিনি কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য হন। আবদুল মতিন খসরু মারা গেলে ওই আসনে মনোনয়নের জন্য দলীয় ফরম সংগ্রহ করেছিলেন। তবে মনোনয়ন পাননি।

সম্প্রতি ফেসবুকে নেতা বানানোর ঘোষণা দিয়ে ছবি পোস্ট করে আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দেন হেলেনা জাহাঙ্গীর। বাংলাদেশ আওয়ামী চাকরিজীবী লীগ নামের একটি সংগঠনের ব্যানারে সংগঠনটির জেলা, উপজেলা ও বিদেশি শাখায় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নিয়োগ দেওয়া হবে বলে ঘোষণা দেওয়া হয়, যা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। কথিত এই সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি হিসেবে হেলেনা জাহাঙ্গীর ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে মাহবুব মনিরের নাম উল্লেখ করা হয়।

 

আরও পড়ুন….

হেলেনা-জাহাঙ্গীর

হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে আরেকটি মামলা

অনুমোদন ও বৈধ কাগজপত্র ছাড়া জয়যাত্রা টিভির সম্প্রচারের অভিযোগে আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত নেত্রী হেলেনা জাহাঙ্গীরের নামে পল্লবী থানায় আরেকটি মামলা হয়েছে।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন আইনে র‍্যাব-৪–এর একজন উপপরিদর্শক (এসআই) গতকাল শুক্রবার রাতে ওই মামলা করেন। এ নিয়ে হেলেনা জাহাঙ্গীরের নামে রাজধানীর গুলশান থানায় দুটি, পল্লবী থানায় একটিসহ তিনটি মামলা হলো।

আজ শনিবার সকালে পল্লবী থানার এসআই নাসিরউদ্দিন একেটিভিকে বলেন, ‘শুক্রবার রাত ২৩টা ৩০ মিনিটে (সাড়ে ১১টায়) বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন আইনের ৩৫, ৫৫ ও ৭৩ ধারায় ওই মামলা করা হয়।

সরকারের অনুমোদন ছাড়া হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে বৈধ কাগজপত্র ব্যতীত অবৈধভাবে জয়যাত্রা টিভির সম্প্রচার ও অনুষ্ঠান পরিচালনার অভিযোগ আনা হয়েছে মামলায়। মামলার বাদী র‍্যাব-৪–এর উপপরিদর্শক ইদ্রিস আলী ৷

আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত নেত্রী হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে হওয়া ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলার তদন্তভার ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা শাখায় (ডিবি) স্থানান্তর করা হয়েছে। আজ রোববার বিকেলে গুলশান থানা থেকে মামলার তদন্তভার ডিবির স্পেশাল সাইবার ক্রাইম বিভাগে দেওয়া হয়েছে।

ডিএমপির গুলশান বিভাগের উপকমিশনার সুদীপ কুমার চক্রবর্ত্তী এ তথ্য জানান।
এদিকে হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আরও দুই মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। গুলশান থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ও পল্লবী থানায় টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ আইনে করা মামলায় আজ তাঁকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

উপকমিশনার সুদীপ কুমার চক্রবর্ত্তী আজ বিকেলে একেটিভিকে বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় রিমান্ডে থাকা হেলেনা জাহাঙ্গীরকে ডিবির কাছে সোপর্দ করা হয়েছে। তিন দিনের রিমান্ডের আজ দ্বিতীয় দিন।

গত বৃহস্পতিবার রাত আটটার দিকে হেলেনা জাহাঙ্গীরের গুলশানের বাসায় অভিযান চালায় র‍্যাব। প্রায় সোয়া চার ঘণ্টার অভিযানে ওই বাসা থেকে বিদেশি মদ, বিদেশি মুদ্রা, হরিণ ও ক্যাঙারুর চামড়া, ক্যাসিনোর সরঞ্জাম ও ওয়াকিটকি সেট উদ্ধার করা হয়। রাত সোয়া ১২টার দিকে হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আটক করে র‍্যাবের সদর দপ্তরে নেওয়া হয়।

এরপর দিবাগত রাত দুইটার দিকে র‍্যাবের একটি দল মিরপুরে হেলেনা জাহাঙ্গীরের মালিকানাধীন জয়যাত্রা টেলিভিশন ও জয়যাত্রা ফাউন্ডেশন ভবনে অভিযান চালায়। পরদিন ব্রিফিং করে র‌্যাব জানায়, হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে ভিন্ন আইনে পাঁচটি মামলা করা হবে।

আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক উপকমিটির সদস্য ছিলেন হেলেনা জাহাঙ্গীর। গত ১৭ জানুয়ারি তাঁকে এই পদ দেওয়া হয়। গত রোববার তাঁকে সংগঠন থেকে অব্যাহতি দিয়ে সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়।

 

হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আটক করেছে র‌্যাব

 

এর আগে র‌্যাবের একটি দল রাত আটটার দিকে রাজধানীর গুলশান ২ এর ৩৬ নম্বর সড়কে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসায় অভিযান শুরু করে। র‍্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক কর্নেল কে এম আজাদ বলেন, হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসা থেকে তাঁকে রাত সোয়া ১২টার দিকে র‍্যাব সদর দপ্তরে নিয়ে যাওয়া হয়। কিছু বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানতে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক উপকমিটির সদস্যপদ থেকে গত রোববার হেলেনা জাহাঙ্গীরকে অব্যাহতি দিয়ে আনুষ্ঠানিক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়। বিজ্ঞপ্তিতে উপকমিটির সদস্যসচিব ও আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদক মেহের আফরোজ সই করেন। এতে বলা হয়, হেলেনা জাহাঙ্গীর আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক উপকমিটির সদস্য ছিলেন। কিন্তু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারিত তাঁর সাম্প্রতিক কর্মকাণ্ড সংগঠনের নীতিবহির্ভূত হওয়ায় আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক উপকমিটির সদস্যপদ হতে তাঁকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তি দেওয়ার আগে গত শনিবার রাতে মেহের আফরোজ একেটিভিকে বলেছিলেন, হেলেনা জাহাঙ্গীর উপকমিটির সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করতে পারছেন না। তাঁর কিছু কিছু কাজ সংগঠনকে বিব্রত করছে। এ জন্য তাঁকে উপকমিটির সদস্যপদ থেকে অব্যাহতি দেওয়ার নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে। শিগগিরই আনুষ্ঠানিকভাবে তা জানানো হবে। জয়যাত্রা টেলিভিশনের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও হেলেনা জাহাঙ্গীর আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক কেন্দ্রীয় উপকমিটির সদস্য হয়েছিলেন গত ১৭ জানুয়ারি। এর আগে ২০২০ সালের ডিসেম্বরের দিকে তিনি কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য হন। আবদুল মতিন খসরু মারা গেলে ওই আসনে মনোনয়নের জন্য দলীয় ফরম সংগ্রহ করেছিলেন। তবে মনোনয়ন পাননি।

সম্প্রতি ফেসবুকে নেতা বানানোর ঘোষণা দিয়ে ছবি পোস্ট করে আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দেন হেলেনা জাহাঙ্গীর। বাংলাদেশ আওয়ামী চাকরিজীবী লীগ নামের একটি সংগঠনের ব্যানারে সংগঠনটির জেলা, উপজেলা ও বিদেশি শাখায় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নিয়োগ দেওয়া হবে বলে ঘোষণা দেওয়া হয়, যা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। কথিত এই সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি হিসেবে হেলেনা জাহাঙ্গীর ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে মাহবুব মনিরের নাম উল্লেখ করা হয়।

 

৮৫ টাকার জুয়া খেলে জিতলো ৬ কোটি টাকা

 

কথায় আছে না, রাখে আল্লাহ্ মারে কে! যুক্তরাষ্ট্রের ইন্ডিয়ানা অঙ্গরাজ্যের ফ্রেন্স লিক ক্যাসিনোতে মাত্র ১ ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় ৮৫ টাকা) জুয়া খেলে এক ব্যক্তি আঙ্গুল ফুলে কলা গাছ জিতে নিয়েছেন ৬৯ হাজার ৬২৩ ডলার (যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৬ কোটি টাকা)।

 

এই ঘটনা এই ক্যাসিনোর ইতিহাসে প্রথম কেউ এতো বিশাল বড় অংকের অর্থ জেতার ঘটনা ঘটল বলে গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

 

ফের বাড়তে পারে বিধিনিষেধ

ক্যাসিনোর স্লট মেশিনে মাত্র এক ডলার দিয়ে এতো বড় অংকের অর্থ জেতার ঘটনা সরাচর ঘটে না বলে ক্যাসিনো কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

জুয়া

এই জ্যাকপটের ব্যাপারে ক্যাসিনোর স্লটের পরিচালক জেফ হুইরেট জানান, ইন্ডিয়ানায় ১৬বছরে এতো বিশাল অংকের অর্থ জ্যাকপট জেতার ঘটনা বিরল।

 

বিশেষ করে কোনো ব্যক্তি মালিকানাধীন ক্যাসিনোতে তো এতো বিশাল অংকের অর্থ জেতার ঘটনা ঘটে না বলেই চলে।

জুয়া খেলে এক ব্যক্তি আঙ্গুল ফুলে কলা গাছ

 

 

আরো পড়ুন…

মদ-জুয়া-ক্লাব নিয়ে সংসদে উত্তপ্ত আলোচনা

 

রাজধানীর বিভিন্ন ক্লাব, মদ ও জুয়া নিয়ে সংসদে উত্তপ্ত আলোচনা হয়েছে। চিত্রনায়িকা পরীমণির ঘটনার সূত্র ধরে জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য মুজিবুল হক চুন্নু পয়েন্ট অব অর্ডারে আলোচনার সূত্রপাত ঘটালেও তাতে আওয়ামী লীগ-বিএনপিসহ অন্য দলের এমপিরা অংশ নেন। এ প্রেক্ষাপটে আলোচনায় কিছুক্ষণের জন্য সংসদ সরব হয় ওঠে। এ সময় মদের অনুমোদন নিয়ে পরস্পরের ওপর দোষারোপ করা হয়।

জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য মুজিবুল হক চুন্নু ছাড়াও আওয়ামী লীগের শেখ ফজলুল করিম সেলিম, বিএনপির একজন সংসদ সদস্য, তরীকত ফেডারেশনের সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী এবং বিরোধীদলীয় প্রধান হুইপ মশিউর রহমান রাঙ্গা আলোচনায় অংশ নেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ সময় সংসদে উপস্থিত ছিলেন।

চুন্নু আলোচনার শুরুতে বলেন, কয়েক দিন ধরে একজন চিত্রনায়িকার বিষয়ে আলোচনা হচ্ছে। যেখানে ঘটনাটি ঘটেছে সেটি উত্তরা বোট ক্লাব। কে করল এই ক্লাব? এই ক্লাবের সদস্য কারা হয়। শুনেছি ৫০-৬০ লাখ টাকা দিয়ে এর সদস্য হতে হয়। এত টাকা দিয়ে কারা এর সদস্য হয়? আমরা তো ভাবতেই পারি না। সারা জীবন এত ইনকামও করি না।
রাজধানীর কয়েকটি ক্লাবের নাম উল্লেখ করে চুন্নু বলেন, এসব ক্লাবে মদ খাওয়া হয়। জুয়া খেলা হয়। বাংলাদেশে মদ খেতে হলে লাইসেন্স লাগে। সেখানে গ্যালন গ্যালন মদ বিক্রি হয়। লাইসেন্স নিয়ে খেতে হলে এত মদ তো বিক্রি হওয়ার কথা নয়। সরকারি কর্মকর্তারা এখানে কীভাবে সদস্য হয়? এত টাকা কোথা থেকে আসে?

রাজধানীর অভিজাত এলাকায় ডিজে পার্টি বন্ধে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়ে তিনি বলেন, গুলশান-বারিধারা এলাকায় ডিজে পার্টি হয়। সেখানে ড্যান্স হয়। মদ খাওয়া হয়। এসব আমাদের আইনে নেই, সংস্কৃতিতে নেই, ধর্মে নেই। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে বলব, আপনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে নির্দেশ দেন কেন এসব হচ্ছে? কেন বন্ধ করা হবে না? ওইসব ক্লাবের সদস্য কারা হয়? পরীমণির যে ঘটনা সেটা বোট ক্লাবে। ওই জায়গার একজন মালিক আছেন। তিনি যেতেও পারেন না। এসব দেখতে হবে।

জাপার এই সংসদ সদস্যের বক্তব্যের পর শেখ সেলিম ফ্লোর নিয়ে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশে মদ ও জুয়ার লাইসেন্স দেওয়ার জন্য বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানকে দায়ী করেন। তিনি বলেন, এ তো বোট ক্লাব, জিয়াউর রহমান স্টিমার ক্লাব করেছিলেন। বঙ্গবন্ধু মদ-জুয়ার লাইসেন্স বন্ধ করে দিয়েছিলেন। জিয়াউর রহমান আবার চালু করেছিলেন। যারা অপরাধের শুরু করেছে তাদের আগে বিচার করা উচিত। ওখান থেকে ধরতে হবে।

বিএনপির একজন সংসদ সদস্য এ সময় স্পিকারের কাছ থেকে ফ্লোর নিয়ে বলেন, আমাদের বিরোধী দলের একজন সংসদ সদস্য একটি বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করেছেন। কিন্তু সিনিয়র এক সদস্য কোথায় চলে গেলেন? বাংলাদেশে অনেক বিদেশি থাকেন। এ ছাড়া অন্য ধর্মের মানুষদের জন্য, ডোমদের জন্য মদের বৈধতা আছে। কোনো মুসলমানের জন্য আইনে অনুমতি নেই। জিয়াউর রহমান যদি মুসলমানদের মদের লাইসেন্স দিয়ে থাকেন যদি প্রমাণ করতে পারেন আমি সদস্য পদ ছেড়ে দেব। তিনি বলেন, এসব ক্লাবে মদের ব্যবসার সঙ্গে সরকারি লোক জড়িত। আমি চ্যালেঞ্জ করছি। পুলিশ এসব জায়গা থেকে টাকা নেয়। প্রধানমন্ত্রী কোনো দলের নয়, তিনি রাষ্ট্রের প্রধানমন্ত্রী। এসব খুঁজে দেখা হোক। বিএনপির এই সংসদ সদস্যের বক্তব্যের পর শেখ সেলিম আবারও ফ্লোর নেন।

তিনি বলেন, লাকী খানের ঝাঁকি নাচের কথা কী ভুলে গেলেন? হিযবুল বাহার। জিয়াউর রহমান এগুলো করেছিলেন। সরকার কোনো মুসলমানকে মদের পারমিশন দেয়নি। বন্ধ করতে গেলেই আপনারা (বিএনপি) চিল্লাচিল্লি করবেন। বলবেন, ফরেনারদের পারমিশন লাগবে। তরীকত ফেডারেশনের নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী অনির্ধারিত আলোচনায় অংশ নিয়ে বলেন, হারুন সাহেবের সদস্য পদ আজই ছেড়ে দেওয়া উচিত। তিনি বললেন, জিয়াউর রহমান মুসলমানদের মদ খাওয়ার পারমিশন দেননি। তিনি দেখাক, আইনে কোথায় বলা আছে মুসলমানরা মদ খেতে পারবেন না। আইন এখানে এনে দেখাক। পদ ছেড়ে দিক।

পরে জাতীয় পার্টির সদস্য বিরোধীদলীয় প্রধান হুইপ মশিউর রহমান বলেন, এখানে রাষ্ট্রীয় কিছু বিষয় আছে। বঙ্গবন্ধু লাইসেন্স দেননি। ২১ বছরে আইনকে মিসইউজ করে এটা করা হয়েছে। বিদেশিদের অ্যারেঞ্জমেন্টের জন্য এটা করেছে। ক্লাবগুলোতে একজন ডাক্তার দিয়ে সার্টিফিকেট নিয়ে নেয়, দৈনিক মদ খেতে হবে। তারপর লাইসেন্স নেওয়া হয়। বিএনপি এই লাইসেন্স দিয়েছিল। এখন কোনো মুসলমান যদি মদ খায় সেখানে সরকারের কিছু করার নেই। বিরোধীদলীয় প্রধান হুইপ রংপুরের ইসলামিক বক্তা আবু ত্ব-হা মোহাম্মদ আদনানকে খুঁজে বের করার দাবি জানান।

পরীমণির মামলায় আটক জাতীয় পার্টির সভাপতিমন্ডলীর সদস্য নাসির উদ্দিন মাহমুদের বিষয়ে রাঙ্গা বলেন, পরীমণি অভিযোগ করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন করেছেন। একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। দোষী হলে অবশ্যই বিচার হবে।

 

 

আরো পড়ুন…

বলিউড তারকা শিল্পা শেঠি ফেঁসে যাচ্ছেন!

 

বলিউড তারকা, অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী শিল্পা শেঠি তাঁর স্বামী রাজ কুন্দ্রার পর্ণো ব্যবসার সঙ্গে কোনোভাবে জড়িত আছে কিনা, তা বর্তমানে খতিয়ে দেখছে মুম্বাই পুলিশ। কারণ এই বলিউড অভিনেত্রী স্বামীর অধিকাংশ ব্যবসার সঙ্গে জড়িত আছে বলে জেনেছে মুম্বাই পুলিশ। শিল্পা, বলিউড এই অভিনেত্রী তাঁর স্বামীর অবৈধ পর্ণোগ্রাফি ব্যবসা সম্পর্কে কতটুকু জানতেন তারই তদন্ত করছে ক্রাইম ব্রাঞ্চ। এ ব্যাপারে পুঙ্খানুপুঙ্খ ভাবে জানতে গত ২৩ জুলাই শিল্পা আর রাজের বিলাসবহুল বাড়িতে অভিযানে গিয়েছিল মুম্বাই পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ।

অভিযানের সময় তাঁরা রাজ কুন্দ্রাকে সঙ্গে করে নিয়ে গিয়েছিল। শিল্পা ও রাজকে পাশাপাশি বসিয়ে তারা ছয় ঘণ্টার মতো জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। ৬ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ শেষে মুম্বাই পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ জানতে পেরেছে যে শিল্পা ‘ভিয়ান ইন্ডাস্ট্রি’তে নির্দেশকের পদে নিযুক্ত ছিলেন। তবে কিছুদিন আগে এই পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন এই বলিউড নায়িকা। বর্তমানে তা তদন্ত করে দেখছে ক্রাইম ব্রাঞ্চ।

এছাড়া ভিয়ান ইন্ডাস্ট্রিজের থেকে কোন রকমের আর্থিক সুবিধা শিল্পা পেতেন কিনা সে ব্যাপারেও নজর রাখছে মুম্বাই পুলিশ। আর এজন্যই শিল্পার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খতিয়ে দেখছে তাঁরা। তবে এখনো পর্যন্ত শিল্পা শেঠি কে গ্রেপ্তার করেনি ক্রাইম ব্রাঞ্চ। তবে সূত্রমতে আবারো তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ  করা হতে পারে। এরইমধ্যে ভারতের কিছু শীর্ষ সংবাদ মাধ্যম জল আরও ঘোলা করেছে। তাঁদের দাবি, রাজের ‘হটশটস’ অ্যাপের ব্যাপারে ভালোভাবেই জানতেন শিল্পা।

শিল্পা শেঠির বিরুদ্ধে প্রধান অভিযোগ তিনি তাঁর স্বামীর সব কীর্তি আড়াল করেছেন। ক্রাইম ব্রাঞ্চের জালে আটক হওয়ার পর জানা গিয়েছে যে, ‘হটশটস’ অ্যাপে ২০ লাখের বেশি গ্রাহক ছিলেন। গভীর তদন্তের মাধ্যমে পুলিশ এক ভয়াবহ তথ্য জানতে পারে। তদন্তের মাধ্যমে তাঁরা জানতে পেরেছে যে ১০ কোটি রুপির বিনিময়ে আন্তর্জাতিক বাজারে ১২১ পর্ণো ভিডিও  শিল্পার স্বামী বিক্রি করতে চলেছিলেন।

তাঁর স্বামীর বিরুদ্ধে ইতোমধ্যে পর্ণোগ্রাফি আইন অনুযায়ী মামলা হয়েছে। এ মামলায় ভিয়ান ইন্ডাস্ট্রিজের সংশ্লিষ্টতা আছে কিনা তা জানার জন্য উক্ত প্রতিষ্ঠানের সিসিটিভি ফুটেজ গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে পুলিশ। রাজ কুন্দ্রা গ্রেফতার হবার পরেই  বিভিন্ন তথ্য ও ভিডিও ডিলিট করার প্রমাণ পেয়েছে ক্রাইম ব্রাঞ্চ। এক্ষেত্রে ডিলিট করা ডেটা পুনরায় উদ্ধার করার চেষ্টা করছে ফরেনসিক বিভাগ। ইতোমধ্যে পুলিশের তদন্তে  জানা গিয়েছে একটা মোটা অঙ্কের টাকা রাজের অ্যাকাউন্টে এসেছে কোনো এক জুয়া কোম্পানী থেকে।

অপরদিকে রাজ তাঁর গ্রেপ্তার অবৈধ উল্লেখ করে মুম্বাই হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন।  তাঁর অভিযোগ, অবৈধ ভাবে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গত ২৩ জুলাই রাজ ও এই মামলায় অন্যতম মূল অভিযুক্ত রায়ন থার্পের রিমান্ড শেষ হওয়ার কথা থাকলেও ক্রাইম ব্রাঞ্চের আবেদনে ২৭ জুলাই অব্দি তাঁদের রিমান্ড আরো বৃদ্ধি করেছেন আদালত। রিপোর্ট লেখা অব্দি শিল্পার স্বামী রাজ কুন্দ্রা সহ এই কান্ড সর্বমোট ১১ জনকে গ্রেপ্তার করেছে মুম্বাই পুলিশ।

রাজ সম্পর্কে ক্রাইম ব্রাঞ্চের আরো একটি অভিযোগ যে পুলিশের তদন্তকার্যে কোনরকম সাহায্য করছেন না তিনি। গত ১৯ জুলাই রাতে রাজ কে গ্রেফতার করে  কারাগারে পাঠায় মুম্বাই পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ।

 

আরো পড়ুন…

 

পৃথিবীর সবচেয়ে পাপ হয় যে শহরে

 

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নেভাডা অঙ্গরাজ্যের একটি শহর লাস ভেগাস। সারাবিশ্বে এটি প্রমোদ নগরী হিসাবে পরিচিত। মনোরঞ্জনের রাজধানীও বলা হয়! সব ধরনের পাপ কর্ম শহরটিতে হরহামেশাই হয়ে থাকে। জুয়ার ক্যাসিনো, পতিতাবৃত্তি ও অর্থ-পাচারের জন্য এটাকে পাপের শহর বলা হয়। পৃথিবীর বিভিন্ন জায়গা থেকে হাজার হাজার মাইল পেরিয়ে পর্যটকরা এখানে শুধু মনোরঞ্জনের জন্যই আসেন প্রতি বছর। সব সময়ে তাই ভিড় লেগেই থাকে। এই শহরেই চলে সব ধরনের পাপ কর্ম।

জুয়া খেলার জন্য পৃথিবীর সবচেয়ে বড় বড় ক্যাসিনোসহ সারা বিশ্বের বৃহত্তম বিলাসবহুল হোটেলের অধিকাংশই সেখানে অবস্থিত। অর্থ-পাচারের রাজধানী হিসেবেও খ্যাতির চূড়ায় রয়েছে শহরটি। তবে মজার বিষয় হলো, বহু ধর্ম, জাতিগোষ্ঠীর বসবাসে সমৃদ্ধ নিউইয়র্ক নগরীতে পতিতাবৃত্তি এখনো আইনত নিষিদ্ধ। অর্থের বিনিময়ে যৌনকর্মের জন্য জেল জরিমানার দণ্ড রয়েছে। এ আইনের কড়াকড়ি আরোপ থাকার ফলে নিউইয়র্কে যৌনকর্মীদের গোপন আস্তানায় প্রায়ই ধরপাকড় হয়। যৌন অপরাধের জন্য আইন লঙ্ঘনকারীদের প্রায়ই দণ্ড পেতে হয়। যদিও পতিতাবৃত্তি বৈধ করার আন্দোলনে সোচ্চার পতিতারা। তবে এখনো আশার মুখ দেখেনি তারা।

Loading...