পুঁজিবাজার তদারকি কমিটির বৈঠক মঙ্গলবার

পুঁজিবাজার নিয়ে আগামী মঙ্গলবার বৈঠকে বসতে যাচ্ছে অর্থ মন্ত্রণালয়। সেখানে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর, বিএসইসি চেয়ারম্যান, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান, অর্থ বিভাগের সিনিয়র সচিব, ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব বাংলাদেশের (আইসিবি) ব্যবস্থাপনা পরিচালক উপস্থিত থাকবেন। এটি পুঁজিবাজার সমন্বয় ও তদারকির জন্য ৫ সদস্যের পুনর্গঠন কমিটির প্রথম বৈঠক। সংশ্লিষ্ট সূত্রে পাওয়া গেছে এ তথ্য। এর আগে গত ২৫ নভেম্বর আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মফিজ উদ্দীন আহমেদকে প্রধান করে এ কমিটি পুনর্গঠন করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। কমিটি এমন সময় বৈঠকে বসবেন যখন পুঁজিবাজার নিয়ে কয়েকটি সিদ্ধান্তে বাংলাদেশ ব্যাংক ও বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) মতবিরোধ চলছে। অর্থ মন্ত্রণালয়ে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের যুগ্ম সচিব ড. নাহিদ হোসেন সই করা এ সংক্রান্ত চিঠিতে বলা হয়েছে- পুঁজিবাজারের উন্নয়নে অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে অংশীজনের মতবিনিময় সভার প্রস্তাবগুলো যথাযথ বাস্তবায়ন কাজ সমন্বয় ও তদারকির জন্য অর্থ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।

 

 

 

এদিকে কয়েক মাস ধরে দুই নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ ব্যাংক এবং বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের মতো বিভিন্ন ইস্যুতে মতবিরোধ দেখা দিয়েছে। যার নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে শেয়ারবাজারে। এর আগে মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) বৈঠকে বসে দুই নিয়ন্ত্রক সংস্থা। বৈঠক শেষে বিএসইসি কমিশনার শেখ শামসুদ্দিন আহমেদ বলেন, পুঁজিবাজারের অদাবিকৃত ডিভিডেন্ড নিয়ে গঠিত স্ট্যাবিলাইজেশন ফান্ডের ব্যাপারে একমত বাংলাদেশ ব্যাংক। তবে বিষয়টি নিয়ে কিছু আইনগত অস্পষ্টতা রয়েছে। এসব বিষয় নিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গে কথা হয়েছে। বিএসইসি-বাংলাদেশ ব্যাংক উভয়পক্ষ এ বিষয়ে আন্তরিক। আমাদের কারও সঙ্গে কারও কোনো মতবিরোধ নেই। তবে সন্ধ্যার দিকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক জানায়, বৈঠকে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। অর্থ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা জানান, সরকারের নীতি-নির্ধারণী পর্যায়ে পুঁজিবাজার উন্নয়নে ইতিবাচক মনোভাব রয়েছে। সেটি লক্ষ্য রেখেই অর্থ মন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত তদারকি কমিটি আরও সংস্কার করেছে। আশা করছি আসছে বৈঠকে পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্ট সমস্যা নিরসন এবং ইতিবাচক সিদ্ধান্ত আসবে।

 

 

 

এডিটঃ রেজুয়ানা রাহমান মিতু

 

র‌্যালিতে

 

সরকার যদি অবৈধই হয় তা হলে দাবি করছেন কেন

সু চির মামলার রায় স্থগিত

Leave A Reply

Your email address will not be published.