পরীমণিকে সাড়ে ৪ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ সাভার থানায়

সাভার মডেল থানায় সাড়ে চার ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে আলোচিত নায়িকা পরীমণি ও তার সহযোগী কস্টিউম ডিজাইনার জিমিকে। গতকাল দুপুর আড়াইটার দিকে দুটি গাড়ি নিয়ে সাভার মডেল থানায় উপস্থিত হন পরীমণি। ঢাকা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল্লাহিল কাফির কক্ষে তাকে বোট ক্লাবের সেই রাতের ঘটনা নিয়ে পুলিশ বিভিন্ন প্রশ্ন করেছে। জানতে চাওয়া হয়, কী কারণে তিনি বোট ক্লাবে গিয়েছিলেন? সেখানে কী হয়েছিল? পরীমণি তার বক্তব্য পুলিশের কাছে তুলে ধরেন। জিজ্ঞাসাবাদের সময় কঠোর নিরাপত্তা বজায় রাখা হয় সাভার থানায়। এ সময় মিডিয়াকে সাভার মডেল থানায় প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি। থানার মূল ফটকটি বন্ধ করে রাখা হয়।

উল্লেখ্য যে, গত ৯ জুন সাভারের বিরুলিয়ায় ঢাকা বোট ক্লাবে মধ্যরাতে পরীমণি দুটি গাড়িসহ দলবল নিয়ে প্রবেশ করেন। সেখানে বোট ক্লাব পরিচালনা পর্ষদের অন্যতম সদস্য ব্যবসায়ী নাসির ইউ মাহমুদের সঙ্গে মদপান নিয়ে তার ঝামেলা হয়। এরপর পরীমণি নাসির ইউ মাহমুদ ও অমিসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে গত ১৪ জুন সাভার থানায় ধর্ষণ চেষ্টা মামলা দায়ের করেন। পরে দেখা গেছে বোট ক্লাব ঘটনার আগের দিন পরীমণি মধ্যরাতে ঢাকার অল কমিউনিটি ক্লাবে গিয়েও মাতলামি ও ভাঙচুর করেন। অল কমিউনিটি ক্লাব সেই সব ভাঙচুর ও মাতলামির দৃশ্য মিডিয়াতে প্রচার করে। অন্যদিকে বোট ক্লাব কর্তৃপক্ষ অভিযোগ করেছে সে রাতে অমি, জিমি, বনিসহ চারজনকে নিয়ে মধ্যরাতে পরীমণি গিয়ে জোর করে বিদেশি মদের বোতল নিয়ে রওনা হলে নাসির ইউ মাহমুদ বাধা দেন। একপর্যায়ে কথা কাটাকাটির রেশ ধরে পরীমণি ক্লাবে ভাঙচুর চালায়। ঘটনার একপর্যায়ে নাসির তাকে চড় মারেন বলে জানা যায়। এরই রেশ ধরে ধর্ষণ চেষ্টার মামলা ও সংবাদ সম্মেলন করেন পরীমণি। পুলিশ সবকিছুর তদন্ত করে দেখছে।

Loading...