দল নির্বাচন নিয়ে প্রশ্নে রেগে গেলেন কোহলি

সংবাদ সম্মেলনে এসে নিজের বিরক্তিটা লুকাতে পারলেন না ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি। অবশ্য পারার কথাও নয়। কারণ, একটু আগেই বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো পাকিস্তানের কাছে পরাজিত হয়েছে ভারত। সম্মানজনক কোনো পরাজয় হলেও হয়তো সান্ত্বনা খুঁজে পাওয়া যেত, কিন্তু হারের ব্যবধান যখন ১০ উইকেটের মতো বিশাল, তখন সেই ম্যাচ থেকে হতাশা ছাড়া আর কিছুই পাওয়া সম্ভব হয় না।

টি-টোয়েন্টিতে যেকোনো প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে এটা পাকিস্তানের সবচেয়ে বড় জয়। ওদিকে এর আগে কোনো দলের বিপক্ষেই ১০ উইকেটে হারেনি ভারত।

সংবাদ সম্মেলনে এক পাকিস্তানি সাংবাদিক বিরাট কোহলিকে প্রশ্ন করেন, তাঁর দল পাকিস্তানের বিপক্ষে জেতার বিষয়ে অতি আত্মবিশ্বাসী ছিল কি না। প্রশ্নটি শুনে বেশ বিরক্তই মনে হলো কোহলিকে, এটা খুবই অবাক করা একটা ব্যাপার যে মানুষ এই খেলা (ভারত-পাকিস্তান) সম্পর্কে যা ভাবে এবং বাস্তবে মাঠে যা হয়, এর মধ্যে কোনো মিলই নেই। খুব ভালো হতো তারা যদি আমাদের জার্সি পরে মাঠে নেমে বুঝত যে আমরা কতটা চাপে থাকি।

এরপর তো ভারতীয় অধিনায়ককে অনেকটা রাগান্বিতই মনে হলো, ‘আপনি কখনোই কোনো প্রতিপক্ষকে হালকাভাবে নিয়ে মাঠে নামবেন না, বিশেষ করে যদি সেটা পাকিস্তানের মতো কোনো দল হয়, যারা নিজেদের দিনে পৃথিবীর যেকোনো দলকে হারিয়ে দিতে পারে। ওদের বিপক্ষে খেলতে নামার আগে সামর্থ্যের প্রতি সম্মান রেখেই নামতে হবে। আমরা যেকোনো দলের বিপক্ষে মাঠে নামার সময় তাদের প্রতি সম্মান দিয়েই নামি এবং কোনো প্রতিপক্ষকেই আলাদা চোখে দেখি না। আমরা এমন কোনো দল নই, যারা মনে করে যে এই এক ম্যাচ জেতাই জীবনের সবকিছু।

অন্য সব হারের মতো এই হারকেও স্বাভাবিকভাবেই নিচ্ছেন কোহলি, ‘সবকিছুর ওপরে ক্রিকেট এবং এই খেলাকে আমরা অত্যন্ত সম্মান করি। কোনো নির্দিষ্ট দিনে আমরা যদি ভালো খেলতে না পারি, আমরা সেটা মেনে নিই এবং আমাদের প্রতিপক্ষকে ভালো খেলার জন্য কৃতিত্ব দিই। আমরা কোন জায়গায় ভুল করেছি, সেটা আমরা জানি, ফলে আমরা কোনো অজুহাত না দিয়ে সেই ভুলগুলো শুধরে সামনের ম্যাচগুলোর দিকে নজর দিতে চাই।

কিন্তু এর আগেই কোহলিকে চমকে দিয়েছেন এক সাংবাদিক। তিনি জানতে চেয়েছেন, ওপেনার রোহিত শর্মার পরিবর্তে একাদশে তরুণ বাঁহাতি ব্যাটসম্যান ঈশান কিশানকে নেওয়ার কথা ভাবছেন কি না। প্রশ্নটি শুনে কোহলি হতভম্ব হয়ে যান। ওই সাংবাদিকের উদ্দেশে পাল্টা প্রশ্ন ছুড়ে দেন, ‘আপনি নিজেই আমাকে বলুন, একটা টি-টোয়েন্টি ম্যাচে আপনি কি আপনার দল থেকে রোহিত শর্মাকে বাদ দিতেন? আপনি জানেন এর আগের টি-টোয়েন্টি ম্যাচে রোহিত শর্মা কত রান করেছে? কী অবিশ্বাস্য প্রশ্ন!

এরপর প্রশ্নকারীকে অপমানই করেছেন কোহলি, আমার কাছে যে দলকে সবচেয়ে ভালো মনে হয়েছে, আমি সেই দলকেই মাঠে নামিয়েছি। যদি বিতর্ক জন্ম দেওয়ার জন্য কোনো প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করতে চান, তাহলে সেটা জানিয়েই প্রশ্নটা করবেন। আমি তখন সেভাবেই জবাব দেব।

বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো পাকিস্তানের কাছে হারটার ক্রিকেটীয় ব্যাখ্যা দিয়েছেন কোহলি, ‘তারা সব বিভাগেই আমাদের থেকে ভালো খেলেছে। আপনি প্রতিপক্ষের তুলনায় অনেক ভালো না খেললে কখনোই ১০ উইকেটে পরাজিত করতে পারবেন না। আমরা ওদের চাপে ফেলার অনেক চেষ্টা করেছি, কিন্তু ওরা খুব ভালোভাবেই সেগুলো সামাল দিয়েছে। ওরা আমাদের চেয়ে অনেক ভালো খেলেছে এবং এটা মেনে নেওয়ায় লজ্জার কিছু নেই। আপনি মাঠে জেতার জন্যই নামেন, কিন্তু সব সময় জেতা সম্ভব হয় না।

Leave A Reply

Your email address will not be published.