ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞায় পড়ছে দক্ষিণ আফ্রিকা

করোনার নতুন ধরনে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞায় পড়ছে দক্ষিণ আফ্রিকা

দক্ষিণ আফ্রিকায় ছড়াচ্ছে করোনার একটি নতুন ধরন। এটির বৈজ্ঞানিক নাম রাখা হয়েছে বি.১.১.৫২৯। করোনার এই নতুন ধরনের সংক্রমণ ঠেকাতে আফ্রিকার ছয়টি দেশের ওপর ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে যুক্তরাজ্য।

 

যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্যবিষয়ক সেক্রেটারি সাজিদ জাভিদ বলেন, করোনার নতুন ধরন সংক্রমণ দেখা দেওয়ায় উদ্বিগ্ন দেশটির বিজ্ঞানীরা।

সাংবাদিকদের সঙ্গে ব্রিফিংয়ে তিনি বলেন, আমরা এখনও পর্যাপ্ত তথ্য জানি না, কত সংখ্যক মানুষ দক্ষিণ আফ্রিকায় সংক্রমিত হয়েছেন। তবে এটি অবশ্যই উদ্বেগের কারণ এবং সতর্ক হওয়ার সঠিক সময়।

 

দক্ষিণ আফ্রিকার বিভিন্ন দেশের সঙ্গে ফ্লাইট বন্ধের বিষয়টি নিশ্চিত করেন তিনি। তিনি বলেন, আমরা সর্বোচ্চ সুরক্ষা দেওয়ার জন্য চেষ্টা করছি।

 

ইসরায়েলও ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা এনেছে দক্ষিণ আফ্রিকার ক্ষেত্রে। আফ্রিকার দক্ষিণের দেশগুলোর মধ্যে দক্ষিণ আফ্রিকাসহ সাতটি দেশ ভ্রমণে বিধিনিষেধ জারির পাশাপাশি নতুন ধরন সংক্রমণের ওপর নজর রাখছে তারা। নিজেদের নাগরিকদেরও ওই অঞ্চলে ভ্রমণে বিধিনিষেধ জারি করেছে তারা।

এদিকে অস্ট্রেলিয়া জানিয়েছে, তারা দক্ষিণ আফ্রিকায় পাওয়া করোনাভাইরাসের নতুন ধরনের ওপর নজর রাখছে। ঝুঁকির পরিমাণ বেশি বলে মনে হলে দক্ষিণ আফ্রিকা ও এর আশপাশের দেশ থেকে অস্ট্রেলিয়ায় ঢুকতে ইচ্ছুকদের জন্য সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে বলেও জানিয়েছে তারা।

 

নিউজিল্যান্ডও জানিয়েছে, তারা কোভিডের এই নতুন ধরন ঠেকাতে প্রস্তুত। এছাড়া ভারতের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় রাজ্যগুলোকে ‘ঝুঁকিপূর্ণ দেশ’ থেকে আগতদের ওপর নজর রাখতে নির্দেশনা দিয়েছে।

 

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.