ঢামেকের কাছে বকেয়া বিল চায় ৩০ হোটেল

নিজস্ব প্রতিবেদক

করোনাকালে চিকিৎসক, নার্সসহ অন্য স্বাস্থ্যকর্মীদের কোয়ারেন্টিন সেবাদানকারী ৩০টি হোটেলের তিন মাসের বিল পরিশোধ করেনি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (ঢামেক)। এই বিল বকেয়া রয়েছে ১১ মাস ধরে।

কোয়ারেন্টিন সেবা দিতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হোটেলমালিকদের সংগঠন বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল হোটেল অ্যাসোসিয়েশন রোববার পাওনা পরিশোধের দাবিতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিবের কাছে একটি আবেদন করেছে।

সংগঠনের কো-চেয়ারম্যান খালেদুর রহমান  বলেন, ‘করোনা মহামারির মধ্যে আন্তর্জাতিক ফ্লাইটগুলো এখনো বন্ধ আছে। ফলে আমাদের এই খাতে ধস নামে। কোনো বিদেশি অতিথি না থাকায় হোটেলগুলোই সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত।’ তিনি বলেন, ‘চিকিৎসকেরা হোটেলগুলোতে কোয়ারেন্টিন সেবা নেওয়ায় আমরা কিছুটা আশার আলো দেখতে পেয়েছিলাম। তবে বিল বকেয়া থাকায় অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। আমাদের হোটেলের কর্মীরাও আট মাস ধরে বেতন না পেয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন।’

বকেয়া না পাওয়ায় ডেসকো, ওয়াসাসহ পাওনাদারদের বিল পরিশোধ করা যাচ্ছে না বলে জানান খালেদুর রহমান।
বকেয়া পরিশোধের দাবিতে সোমবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক বরাবর ৩০টি হোটেল কর্তৃপক্ষের পক্ষে একটি স্মারকলিপি দেওয়া হবে বলে জানা গেছে। এ ছাড়া আজ ঢাকা মেডিকেলের প্রশাসনিক ভবনের সামনে একটি মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করার কথাও রয়েছে।

ঢাকা মেডিকেল কলেজের পরিচালক মো. নাজমুল হক এ বিষয়ে বলেন, হোটেলের বিল পরিশোধ নিয়ে গত বছরে নিরীক্ষায় আপত্তি আসে। এ ক্ষেত্রে অনুমোদন নিতে হবে। গত বছরের জুলাইয়ে বিল পরিশোধের জন্য মন্ত্রণালয়ের কাছে অনুমোদন চাওয়া হয়েছিল। এখনো পাওয়া যায়নি। তিনি বলেন, ‘কয়েক দিনের মধ্যে বিষয়টির একটি সমাধান হবে বলে আমি আশা করছি।

Loading...