ঢাকায় দগ্ধ এইচএসসি পরীক্ষার্থী ঈশিতার মৃত্যু

রাজধানীর আজিমপুর গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী ঈশিতা ইয়াসমিন সিমি (১৯) আজ মঙ্গলবার সকালে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। পরিবার বলছে, গত শনিবার লেখাপড়া নিয়ে মা বকা দেওয়ার পরে অভিমান করে ঈশিতা নিজের গায়ে আগুন ধরিয়ে দেন। এরপর তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

বার্ন ইনস্টিটিউটের আবাসিক চিকিৎসক পার্থ শংকর পাল জানান, ঈশিতার শরীরের ৮০ শতাংশ দগ্ধ হয়। তিনি নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন ছিলেন।

ঈশিতার চাচা মিজানুর রহমান জানান, গভর্নমেন্ট ল্যাবরেটরি স্কুলের কোয়ার্টারে ঈশিতাদের বাসা। তাঁর বাবা মো. ইদ্রিস ওই স্কুলে চাকরি করেন। শনিবার রাতে লেখাপড়াসংক্রান্ত বিষয়ে তাঁর মা তাঁকে বকা দেন। এতে অভিমান করে ঈশিতা নিজের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন। রাতেই তাঁকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়।

ঈশিতার বান্ধবী মারজান মেহজাবিন বলেন, ‘যতটুকু জানতে পেরেছি, পরিবার ও লেখাপড়া নিয়ে হতাশা ছিল তার মধ্যে। এ কারণে হয়তো এ ঘটনা ঘটতে পারে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.