ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈলে সহকারী শিক্ষককে মারধরের অভিযোগ সুপারের বিরুদ্ধে 

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ

ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল উপজেলার গোগর দাখিল মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক কে সামান্য ঘটনাকে কেন্দ্র করে একজন সহকারী শিক্ষককে মারধরের অভিযোগ উঠেছে সুপারের বিরুদ্ধে।

জানা যায়,রাণীশংকৈল উপজেলার গোগর দাখিল মাদরাসার সুপারের বিরুদ্ধে গত রোববার ২৭ নভেম্বর ২০২২ গোগর আদর্শ দাখিল মাদরাসায় এ ঘটনাটি ঘটে।উক্ত প্রতিষ্ঠানে বার্ষিক পরিক্ষার রুটিন নিয়ে কথাকাটাকাটি হলে মাদরাসার সুপার আনোয়ারুল ইসলাম একই মাদরাসার সহকারী শিক্ষক ফারুককে মারধর করেছেন বলে অভিযোগ তুলেছেন শিক্ষক ও ছাত্র ছাত্রীরা। স্থানীয় জনতা ও মাদরাসার অন্যান্য শিক্ষকরা জানান,পরীক্ষা চলাকালীন সহকারী শিক্ষক ফারুকের সঙ্গে অমানবিক আচরণ করেছে সুপার। এসময় তিনি ফারুক নামের এক শিক্ষককে ঘাড় ধরে ধাক্কা মারলে তিনি মাটিতে পড়ে যায়। তারপরেও তিনি ক্ষান্ত হননি। এক পর্যায়ে মাদরাসার স্টাফ উভয়কে নিয়ন্ত্রণে আনে। মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটি সভাপতি সফিউর রহমান বলেন,অনাকাঙ্খিত ঘটনার জন্য আমি দূঃখিত এ ধরনের ঘটনা সুপারের কাছে আশা করিনি।মাদ্রাসার সুপার আনোয়ারুল ইসলাম কৌশলে অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন,তিনি সহকারী শিক্ষককে মারধর করেননি।তবে তিনি তার হাত ধরে অফিসে নিয়ে যাচ্ছিলেন।

সে সময় তিনি মাদরাসার বারান্দায় উঠার সময় হোঁচট খেয়ে পড়ে ব্যাথা পেয়েছেন।শিক্ষককে লাঞ্ছিত করায় স্থানীয়রা সুপারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম দূনীতির অভিযোগ তুলে ধরেন।এ নিয়ে মাদরাসা চত্বরে স্থানীয়রা এক সালিশি বৈঠকের আয়োজনো করা হয়েছিল। স্থানীয় সাদেকুল ইসলামসহ অন্যান্যরা জানান,সালিশি বৈঠকে সুপার তার নিজের অপরাধের কথা স্বীকার করে অঙ্গীকার নামা লিখে দিয়েছেন স্থানীয়দের কাছে। এ নিয়ে খবর পেয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার তৈয়ব আলী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এবং তিনি বলেন,পরীক্ষার ডিউটিকে কেন্দ্র করে ঘটনটি ঘটেছে। এ নিয়ে ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে তবে ঘটনাটি নিয়ে আগামী বুধবার মাদরাসার মাঠে শালিশ বসা হবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.