জেলেনস্কি: ইউক্রেনে পূর্ণ শক্তির হামলা শুরু করেছে রাশিয়া

দনবাসে রুশ বাহিনী ব্যাপক হামলা শুরু করেছে বলে জানিয়েছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি। ইউক্রেনের শতাধিক সামরিক লক্ষ্যবস্তুতেও হামলা চালিয়েছে রাশিয়া।

 

 

গার্ডিয়ান জানায়, পূর্ব ইউক্রেন দখলে রাশিয়া তাদের বহুল প্রতীক্ষিত পূর্ণ শক্তির হামলা শুরু করেছে বলে মন্তব্য করেছেন ভলোদিমির জেলেনস্কি

 

সোমবার রাতে এক ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, এখন আমরা বলতে পারি রাশিয়ান বাহিনী দনবাসের জন্য পুরোদমে যুদ্ধ শুরু করেছে যেটার পরিকল্পনা তারা অনেক আগে থেকেই করছিল। রুশ সৈন্যদের একটা বড় অংশ এই হামলায় অংশ নিচ্ছে বলেও দাবি জেলেনস্কির।

 

জেলেনস্কি যোগ করেন, যত সৈন্যই জড় করুক না কেন আমরা প্রতিরোধ করব। আমরা লড়াই করে যাব। আমরা ইউক্রেনীয় কোন কিছুই ছেড়ে দেব না।

 

 

এদিকে মস্কো জানায়, রুশ সেনাদের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ইউক্রেনের বেশ কয়েকটি সেনাঘাঁটি ধ্বংস হয়েছে। এদিকে, জেলেনস্কির কিয়েভ সফরের আমন্ত্রণে সাড়া দেননি মার্কিন প্রেসিডেন্ট। মঙ্গলবার হোয়াইট হাউজের পক্ষ থেকে জানানো হয়, কিয়েভ সফরের কোনো পরিকল্পনা নেই বাইডেনের

 

সোমবার ইউক্রেনের লাভিভ শহরের একটি কারখানায় ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় রাশিয়া। মুহূর্তেই পুরো কারখানায় আগুন ধরে যায়। লাভিভ ছাড়াও এদিন খারকিভসহ বিভিন্ন শহরে দফায় দফায় হামলা চালায় রুশ বাহিনী। ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয় বিভিন্ন ভবন।

 

এক বিবৃতিতে রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, রাশিয়ার সামরিক বাহিনী ইউক্রেনের ৩১৫টি লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানে। এর মধ্যে অস্ত্র ও সামরিক সরঞ্জামের গুদাম রয়েছে। একই সঙ্গে রুশ বাহিনী ইউক্রেনের দুটি যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করেছে। কৃষ্ণ সাগরে রুশ যুদ্ধজাহাজ মস্কভায় ইউক্রেনের ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পাল্টা প্রতিশোধ হিসেবে হামলা জোরদার করেছে মস্কো।

 

এদিকে, ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় দনবাস এলাকা দখল করতে রুশ সেনারা ব্যাপক হামলা শুরু করেছে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। তবে ইউক্রেনীয় বাহিনীও প্রতিরোধ জোরদার করেছে।

 

জেলেনস্কি দোনবাসে হামলা চালাতে অনেকদিন ধরেই প্রস্তুতি নিচ্ছিলো রুশ বাহিনী। যত সেনাই আসুক না কেনো, যত হামলাই হোকনা কেনো, আমরা লড়াই চালিয়ে যাবো।

 

এর আগে হামলা জোরদারের আশংকায় দনবাসের লোকজনকে নিরাপদে সরে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলো ইউক্রেনীয় কর্তৃপক্ষ। দনবাসের একাংশ রুশপন্থীদের দখলে আছে। দনবাস দখলে নিতে পারলে ক্রিমিয়ার সঙ্গে করিডোর স্থাপন করতে পারবে রাশিয়া।

 

এমন পরিস্থিতিতে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্যপদ পেতে তোড়জোড় শুরু করেছে ইউক্রেন। ইইউ’র সদস্যপদের জন্য একটি প্রশ্নমালা পূরণ করে জমা দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই ইউক্রেন সদস্যপদ প্রার্থী হিসেবে বিবেচিত হতে পারে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

 

এদিকে, ইউক্রেনে রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধে অংশ নেওয়ার অভিযোগে যুক্তরাজ্যের দুই নাগরিককে আটক করেছে রুশ বাহিনী। ইউক্রেনে আটক রাশিয়াপন্থী রাজনীতিক ভিক্টর মেদভেদচুকের সঙ্গে নিজেদের বিনিময়ের আহ্বান জানিয়েছেন তারা। এজন্য ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের কাছে সহায়তা চেয়েছেন দুই ব্রিটিশ নাগরিক। রাশিয়ার চলমান সামরিক অভিযানে এখন পর্যন্ত ৫০ লাখ মানুষ ইউক্রেন ছেড়েছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। সংস্থাটির প্রকাশিত এক প্রতিবেদেন বলা হয়, যারা ইউক্রেন ছেড়েছে, তাদের অধিকাংশই নারী ও শিশু।

 

 

কাবুলে হাইস্কুলে ৩ বিস্ফোরণ, বহু হতাহত

 

লেবাননকে দেউলিয়া ঘোষণা করলেন উপপ্রধানমন্ত্রী

 

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.