Ultimate magazine theme for WordPress.

শাশুড়িকে বশ করার কিছু কৌশল জেনে নিন

একটি মেয়ে সন্তান জন্ম নেয়ার পর, তার বাবার আদরের একমাত্র পরী হয়ে থাকে। মায়ের যেন চোখের মণি! আদরের মেয়েটি যখনই অন্যের বাড়িতে বিবাহের মাধ্যমে চলে যায় তখন মেয়েটির নামের সঙ্গে আরও কতগুলো নাম যোগ হয়। শ্বশুর-শাশুড়ি বলে ডাকে পুত্রবধূ, ছেলের ছোট ভাই বোন বলে ভাবি, কেউবা সরাসরি নাম ধরে। আবার অনেকে ডাকে নানান নামে।

সব অভিভাবকই চান নিজের আদরের মেয়েটি অন্যের বাড়িতে সুখে-শান্তিতে কাটুক। এটাই তাদের একমাত্র চাওয়া। কিন্তু ছোট খাটো ভুলের কারণে মেয়েরা শ্বশুর বাড়িতে পাহাতে হয় নানা জ্বালা যন্ত্রণা। তবে কিছু কৌশল অনুসরণ করেলে মেয়ার হতে পারে শাশুড়ির আদরের বউ।

জেনে নেই শাশুড়িকে বশ করার কিছু কৌশল….

*  অল্পবয়সী শাশুড়িকে বশ করবেন প্রশংসা দিয়ে। তার কর্মদক্ষতা, রান্না, ম্যানেজমেন্ট এর প্রশংসা করুন। শিখতে চান বলে আগ্রহ প্রকাশ করুন। সংসারের বিভিন্ন বিষয়ে তার পরামর্শ নিন দেখবেন খুব প্রেমে পড়ে গেছে।

* মাঝে মাঝে শাশুড়ির কাছে স্বামীর বিচার দিবেন, সিরিয়াস বিচার না কিন্তু আবার! যেমন বলবেন, ‘ মা আপনার ছেলেকে আমি বললে শুনে না, আপনি একটু বলে দিন’। তবে সিরিয়াস সমস্যাগুলো নিজেরাই সমাধান করবেন। যথাসম্ভব চেষ্টা করবেন দুজনের বাইরে যেন না যায়।

* বয়স্ক শাশুড়ি হলে শুধু গল্প করবেন তার সাথে। সময় দিন তাকে। কারণ বৃদ্ধ বয়সে তার খুব একা হয়ে পড়েন। গল্প করার কাউকে খুঁজে না পেয়ে ছেলের বউয়ের দোষ খুঁজতে থাকে। তাই অধিক সময় গল্প করবেন।

* শাশুড়ির কাছে অতীতের সুখ-দুঃখের কাহিনী, বিয়ের সময়ের গল্প বলতে বলবেন। তাদের উস্কে দিয়ে এরপর শুধু চুপচাপ বসে শুনতে থাকবেন।

* শাশুড়ি যদি পান খান, তাহলে বলার আগে হাতের মুঠে পান বানিয়ে দিবেন। মাঝে মাঝে সুপারি কেটে রেখে দিবেন। এই কাজগুলো দেখলে একসময় শাশুড়ি আপনার প্রেমে পড়ে যাবেন।

(সমাকালীন প্রকাশন এর “মেঘ রোদ্দুর বৃষ্টি” বই থেকে নেওয়া)

Leave A Reply

Your email address will not be published.