Ultimate magazine theme for WordPress.

মৃতের পাশে কুরআন তিলাওয়াত বৈধ কি না?

ড. খোন্দকার অবদুল্লাহ জাহঙ্গীরে জিজ্ঞোসা ও জবাব বইতে এর উত্তর যেভাবে দিয়েছেন…

আপনার কাছে আমার প্রশ্ন হলো, মৃত মানুষের পাশে কুরআর পড়ার কোনো সুবিধা আছে কি না! বিষয়টি কি এমন যে আজীবন কুরআন শুনতে পায় নি, অনেক ব্যস্ত ছিল দুনিয়ায়, এখন মরার পরে অখণ্ড অবসর; তাই আমি কুরআম পড়ছি আপনার পাশে, আপনি মরে গিয়ে শুনছেন! আল্লাহ কি মরা মানুষের শোনার জন্য কুরআন নাযিল করেছেন? এটা আমার প্রশ্ন। আসলে জীবিত মানুষের মৃত আত্মাকে জীবন্ত করার জন্য আল্লাহ কুরআন দিয়েছেন

(আওয়ামান কানা মাইতান ফাআহইয়ানাহু অযাআলনালাহু নুউরান ইয়ামশি বিহি ফিন নাস)

তার অন্তর মৃত ছিল, কুরআনের নুরে সে আলোকিত হবে। কাজেই মৃত মানুষের পাশে কুরআন পড়া, এটা ইসলামের মূল চেতনার পরিপন্থী। দ্বিতীয়ত, মৃত মানুষের পাশে কুরআন পড়লে কোনো সোয়াব বা বরকত হয়, এটা কুরআন-হাসীস কোথাও নেই।

তৃতীয়ত রাসুল (স.) এবং সাহবাদের জীবনে অগণিত মানুষ মারা গিয়েছেন, কেউ মৃত মানুষের পাশে কুরআন পড়ান নি। তবে মৃতপথযাত্রী, কখনো জীবিত আছেন, মৃত্যুবরণ করবেন এমন মানুষের কাছে সূরা ইয়াছিন পড়ার কথা একটি হাদীসে এসছে। হাসীসটা সনদগতভাবে দুর্বল। কিন্তু মরার পর তার পাশে কুরআন পড়া, এটা কুরআনকে এক ধরনের অবজ্ঞা করা। এটা থেকে আমাদের বিরত থাকা উচিত।

Leave A Reply

Your email address will not be published.