Ultimate magazine theme for WordPress.

প্রস্রাব করলেই মহিলার শরীর থেকে বেরচ্ছে মদ! বিস্মিত চিকিৎসকরাও

জীবনের ষাটটি বসন্ত কাটিয়ে ফেলেছেন তিনি। কোনওদিন এক বিন্দুও মদ্যপান করেননি। অথচ ৬১ বছর বয়সের ওই মহিলার প্রস্রাবের সঙ্গে বেরচ্ছে মদ। আপনার মতোই অবাক হয়ে গিয়েছিলেন ওই মহিলাও।

সমস্যা জানতে দৌড়ে গিয়েছিলেন চিকিৎসকের কাছে। তবে চিকিৎসকরা অবাক হচ্ছেন না। বরং তাদের দাবি, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পেনিসিলভেনিয়ার ওই মহিলার মতো প্রায় প্রত্যেকের শরীরেই ব্যতিক্রমী রোগ বাসা বাঁধতে পারে।

মদ্যপান না করেও কেন এমন রোগাক্রান্ত হলেন ওই মহিলা? প্রথমে অবশ্য মনে করা হচ্ছিল ওই মহিলা সিরোসিস অফ লিভার কিংবা খারাপ ধরনের কোনও ডায়াবেটিসে ভুগছেন। আশঙ্কা সত্যি কি না, তা যাচাই করতে বেশ কয়েকটি পরীক্ষা-নিরীক্ষাও করা হয়।

তাতে দেখা গিয়েছে তার শরীরে তৈরি হচ্ছে পচা শর্করা। তবে পরে চিকিৎসকরা নিশ্চিত হন যে ওই মহিলা ‘ইউনারি অটো ব্রিয়রি সিনড্রোম’ নামে এক ধরনের বিরল রোগে ভুগছেন। যার ফলে কোনওদিন মদ না ছুঁয়েও, তার শরীরে মদ উৎপন্ন হচ্ছে।

কিন্তু কেন এমন রোগ হল মহিলার? বিশেষজ্ঞদের মতে, এক ধরনের ব্যাকটেরিয়া মহিলার পরিপাকতন্ত্রে মাদকযুক্ত ইথানল তৈরি করছে। স্বাভাবিকভাবেই মহিলার ব্লাডারে বাড়ছে শর্করার মাত্রা। তাতেই ভরে যাচ্ছে ব্লাডার। তার ফলে মহিলার প্রস্রাবের সঙ্গে ক্রমাগত বেরচ্ছে মদ।

চিকিৎসকের কথা শুনেই তাজ্জব হয়ে যান পেনিসিলভেনিয়ার ওই মহিলা। কীভাবে তিনি সুস্থ হবেন, তা নিয়ে দুশ্চিন্তা পড়ে যান রোগী এবং তার পরিজনেরা। তারা প্রথমে মনে করেছিলেন অ্যান্টি ফাংগাল চিকিৎসাতেই কাজ হবে। সেই অনুযায়ী অ্যান্টি ফাংগাল চিকিৎসাও শুরু হয়। তবে পরে চিকিৎসকরা বোঝেন অ্যান্টি ফাংগাল চিকিৎসায় তাকে সুস্থ করে তোলা কার্যত অসম্ভব।

তখনই লিভার প্রতিস্থাপনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সেই অনুযায়ী শুরু হয়েছে মহিলার লিভার প্রতিস্থাপনের পদ্ধতি। বিরল এই রোগের ফলে মানসিকভাবেও ভেঙে পড়েছেন মহিলা।

Leave A Reply

Your email address will not be published.