Ultimate magazine theme for WordPress.

করোনাভাইরাসে আন্তর্জাতিক ও দেশীয় বিমানের ফ্লাইট বাতিল

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ১১টি ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। এর মধ্যে দু’টি আন্তর্জাতিক ও চারটি দেশীয় ফ্লাইট রয়েছে। শনিবার (১৪ মার্চ) সন্ধ্যায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও মোকাব্বির হোসেন ব্রেকিংনিউজকে এ সিদ্ধান্তের কথা জানান।

বাতিল হওয়া দেশীয় ফ্লাইট চারটি হলো- ১৫ মার্চ ঢাকা-যশোর, ১৫ ও ১৬ মার্চ ঢাকা-রাজশাহী ও ১৬ মার্চ ঢাকা-সৈয়দপুর রুটের ফ্লাইট। আন্তর্জাতিক ফ্লাইট সাতটি হলো- ২৪, ২৯, ৩০ এবং ৩১ মার্চ ঢাকা-কাঠমান্ডু; ১৬, ২৩ ও ৩০ মার্চ ঢাকা-ব্যাংকক ফ্লাইট। এর মধ্যে ১৯ ও ২২ মার্চ ঢাকা-কাঠমান্ডু ফ্লাইট পূর্ব নির্ধারিত সময় অনুযায়ী ছেড়ে যাবে।

তিনি আরও বলেন, ১৭ থেকে ২০ মার্চ পর্যন্ত কক্সবাজারে বি-৩৭৩ বিমানের পরিবর্তে ড্যাশ-৮ বিমান পরিচালিত হবে। মূলত যাত্রী সংখ্যা কমে যাওয়ায় আমরা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছি। কারণ বি-৩৭৩ বিমান বেশি সংখ্যক যাত্রী নিয়ে চলাচল করে।

বিমান ঢাকা-কাঠমান্ডু রুটে সপ্তাহে সাতটি ফ্লাইট পরিচালনা করে থাকে। উদ্ভূত পরিস্থিতি রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী এয়ারলাইন্স দু’টি ফ্লাইট বাতিল করেছে। তবে আগামী ১৯ মার্চের ফ্লাইটটি যথারীতি পরিচালিত হবে বলেও জানান তিনি।

এরআগে বিমান শুক্রবার থেকে ভারতের বিভিন্ন গন্তব্যে সব ফ্লাইট বন্ধ করে দেয়। ভারত সরকারের সিদ্ধান্তের কারণে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ছাড়াও দেশীয় বেসরকারি এয়ারলাইন্স ইউএস-বাংলা ও নভোএয়ার ভারতে তাদের সব ফ্লাইট বন্ধ করেছে।

বিমান ভারতের কলকাতা রুটে সপ্তাহে ১৪টি এবং দিল্লিতে ৭টি ফ্লাইট পরিচালনা করে থাকে। ভারত সরকারের সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে আগামী ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত সেদেশে সব ফ্লাইট বন্ধ থাকবে।

বাংলাদেশ থেকে ভারতের দিল্লি, কলকাতা ও চেন্নাই রুটে দেশীয় চার এয়ারলাইন্স সপ্তাহে মোট ৩৭টি ফ্লাইট পরিচালনা করে আসছে। প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের কারণে যাত্রী সংকটে পড়ে বিমান ১০টি আন্তর্জাতিক রুটে ফ্লাইট কমিয়েছে।

এছাড়া ঢাকা-কুয়েত ও ঢাকা-কাতার রুট পুরোপুরি বন্ধ করে দিয়েছে রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী এয়ারলাইন্স বিমান। বিমান সূত্রে জানা গেছে, যাত্রীর অভাবে ১০ রুটে ফ্লাইট সংখ্যা ৬১ থেকে ৩১টিতে নামিয়ে আনা হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.