‘জবাব দিলেই দুই দিনে প্রাণ হারতো ৫ হাজার মার্কিন সেনা’

মার্কিন হামলায় ইরানের জেনারেল কাশেম সোলায়মান হত্যার পর প্রতিশোধের আগুন জ্বলছে দেশটি। সর্বোচ্চ নেতা থেকে প্রেসিডেন্টেরও একই কথা নেবেই হত্যার প্রতিশোধ। এরই মধ্যে ইরাকে মার্কিন দুটি ঘাটিতে হামলার মাধ্যমে জবাব দিতে শুরু করেছে দেশটি।

ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী আিইআরজিসি’র অ্যারোস্পেস ফোর্সের প্রধান আমির আলী বলেছেন, ইরাকের মার্কিন দুই ঘাটিতে হামলায় বহু মার্কিন সেনা হতাহত হয়েছেন। তবে আমরা চাইলে প্রথম ধাপেই পাঁচশ মার্কিন সেনাকে হত্যা করতে পারতাম। প্রথম ধাপের হামলাটি ব্যাপক সংখ্যায় মার্কিন সেনা হত্যার লক্ষ্য নিয়ে করা হয়নি বলে তিনি জানিয়েছেন।

আমির আলী হাজিযাদেহ হচ্ছেন আইআরজিসি’র ক্ষেপণাস্ত্র বিভাগের প্রধান কমান্ডার।

হাজিযাদেহ আরও বলেন, আমেরিকা যদি ইরানের হামলার পাল্টা আঘাত হানার চেষ্টা করতো তাহলে ৪৮ ঘণ্টার নতুন করে দুই ধাপে চার থেকে পাঁচ হাজার মার্কিন সেনা প্রাণ হারাতো। ইরানের এই জেনারেল বলেন, ‘আমরা’ শহীদ সোলায়মানি’ নামের যে অভিযান শুরু করেছিলাম তা ছিল একটি বৃহৎ অভিযান। এই অভিযানের কয়েকটি ধাপ ছিল। আমরা যদি অভিযান অব্যাহত রাখার প্রয়োজন অনুভব করতাম তাহলে তা গোটা অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়তো। পশ্চিম এশিয়া তথা মধ্যপ্রাচ্যের সর্বত্রই এই অভিযান চলতো বলে তিনি জানান।

গত দুই ধপার হামলায় হতাহতদেরকে আমরিকা নয়টি বিমানে করে ইহুদিবাদী ইসরাইল ও জর্দানে নিয়ে গেছে বলে তিনি জানান। হাজিযাদেহ বলেন, হতাহতদরে সরাতে সি-১৩০ বিমানও ব্যবহার করা হয়েছে।

Loading...