Ultimate magazine theme for WordPress.

বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে ওয়ানডে সিরিজ শুরু আজ

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আজ রবিবার সিলেটে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশের তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ। আজ সিরিজের প্রথম ম্যাচ দুপুর একটায় শুরু হবে। সিরিজের পরের দুটি ম্যাচ ৩ ও ৬ মার্চ।

টাইগার অধিনায়ক মাশরাফি বিন মতুর্জা জানিয়েছেন, একটা একটা করে ম্যাচ ধরে এগোতে চান। তবে এই সিরিজ নিয়ে যত বেশি কথা হচ্ছে, তার চেয়ে অনেক বেশি কথা হচ্ছে মাশরাফিকে নিয়ে।

২০১৯ বিশ্বকাপে দলও ভালো করেনি; মাশরাফি বল হাতে ছিলেন একেবারেই অনুজ্জ্বল। এতে তখন থেকেই দলে তার জায়গা ও অধিনায়কত্ব নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। ফলে আজ শুরু হতে যাওয়া এই সিরিজটাকে কেউ বলছেন, অধিনায়ক মাশরাফির শেষ সিরিজ। কেউ আরেক ধাপ এগিয়ে বলছেন, মাশরাফির শেষ আন্তর্জাতিক সিরিজ। মাশরাফি নিজে এসব প্রশ্নে বিরক্তি প্রকাশ করলেন।

এদিকে পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ মাঠে নামে ১৯৯৭ সালে। কেনিয়ার জিমখানা স্টেডিয়ামে প্রেসিডেন্ট কাপ ত্রিদেশীয় সিরিজের সেই ম্যাচের পর এখন পর্যন্ত ৭২বার ওয়ানডে ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে দুই দল। এর মধ্যে ৪৪ ম্যাচে জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে টাইগাররা। অন্যদিকে ২৮ বার জয়ের দেখা পেয়েছে জিম্বাবুয়ে।

দলীয় সর্বোচ্চ ইনিংসের দিক দিয়ে এগিয়ে আছে জিম্বাবুয়ে। টাইগারদের বিপক্ষে তাদের এক ইনিংসে সর্বোচ্চ রান ৭ উইকেট হারিয়ে ৩২৩ রান। বাংলাদেশের সর্বোচ্চ সংগ্রহ ৮ উইকেট হারিয়ে ৩২০ রান। সর্বনিম্ন রানের দিক থেকেও অবশ্য এগিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার দেশটি। সাকিবের ঘূর্ণিতে চট্টগ্রামে ৪৪ রানে অল আউট হয়েছিল জিম্বাবুয়ে। অন্যদিকে টাইগারদের সর্বনিম্ন রান ৯২।

ব্যক্তিগত রানের দিক দিয়ে এগিয়ে আছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। ৪৫ ম্যাচে তার সংগ্রহ ১৪০৪ রান। জিম্বাবুয়ের হয়ে সবচেয়ে বেশি রান করেছেন ব্রেন্ডন টেইলর। ৫০ ম্যাচে ১৩৭৭ রান করেছেন তিনি।

দুদলের হয়ে সর্বোচ্চ উইকেটশিকারীর লড়াইয়ে বেশ বড় ব্যবধানে এগিয়ে সাকিব। ৪৫ ম্যাচে ৭৪ উইকেট শিকার করেছেন তিনি। অন্যদিকে জিম্বাবুয়ের হয়ে রে প্রাইস ২৫ ম্যাচে ৩৫ উইকেট শিকার করেছেন।

এক ইনিংসে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রান ও উইকেট দুই দিক দিয়েই এগিয়ে আছে জিম্বাবুয়ের ক্রিকেটাররা। দেশটির চার্লস কভেন্ট্রি এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ১৯৪ রানের ইনিংস খেলেছেন। টাইগারদের হয়ে সর্বোচ্চ ইনিংসটি তামিম ইকবালের। মজার ব্যাপার, যে ম্যাচে কভেন্ট্রি ১৯৪ করেন সে ম্যাচেই ১৫৪ রানের ইনিংসটি খেলেছিলেন তামিম।

টাইগারদের হয়ে এক ইনিংসে সেরা বোলিং ফিগার বাঁহাতি স্পিনার আব্দুর রাজ্জাকের (২৯/৫)। অন্যদিকে মাত্র ২০ রানে ৬ উইকেট নিয়ে জিম্বাবুয়ের সেরা বোলিং ফিগার ব্রায়ান স্ট্র্যাংয়ের।

Leave A Reply

Your email address will not be published.