উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উন বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সংলাপ ও সংঘাত

একেটিভি ডেস্ক

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উন বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সংলাপ ও সংঘাত—উভয়ের জন্য তাঁর দেশের প্রস্তুত থাকা দরকার। তবে বিশেষ করে সংঘাতের জন্য উত্তর কোরিয়ার পুরোপুরি প্রস্তুত থাকা প্রয়োজন।
রাজধানী পিয়ংইয়ংয়ে দলের জ্যেষ্ঠ নেতাদের সঙ্গে এক বৈঠকে কিম এমন মন্তব্য করেন বলে আজ শুক্রবার বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে জানানো হয়। কিমের এ বক্তব্য দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম প্রকাশ করেছে।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষমতায় আসার পর এই প্রথম তাঁর প্রশাসনের উদ্দেশে সরাসরি মন্তব্য করলেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম।
বাইডেনের সঙ্গে কিমের যে সম্পর্ক, তাতে একধরনের উত্তেজনা লক্ষণীয়। সবশেষ মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে কিমকে ‘ঠগ’ বলে অভিহিত করেছিলেন বাইডেন।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে বাইডেনের শপথ নেওয়ার দিন কয়েক আগে উত্তর কোরিয়া সামরিক কুচকাওয়াজ করে। এই কুচকাওয়াজের মধ্য দিয়ে পিয়ংইয়ং অস্ত্রশক্তির মহড়া প্রদর্শন করে।
গত এপ্রিলে উত্তর কোরিয়াকে বৈশ্বিক নিরাপত্তার জন্য গুরুতর হুমকি হিসেবে বর্ণনা করেন বাইডেন। মার্কিন প্রেসিডেন্টের এমন মন্তব্যে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানায় উত্তর কোরিয়া। পিয়ংইয়ংয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়, বাইডেনের এ মন্তব্য উত্তর কোরিয়ার প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের বৈরীনীতি অব্যাহত রাখার বিষয়টিকেই প্রতিফলিত করে।
উত্তর কোরিয়ার ক্ষমতাসীন ওয়ার্কার্স পাটির কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে কিম যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সংলাপ ও সংঘাত—উভয়ের জন্য তাঁর দেশের প্রস্তুত থাকার কথা বলেন। তিনি বলেন, বিশেষ করে উত্তর কোরিয়ার মর্যাদা, নিরাপত্তা ও স্বার্থ রক্ষায় সংঘাতের জন্য তাঁর দেশের পুরোপুরি প্রস্তুত থাকা দরকার।
কিম সতর্ক করে বলেন, কোরীয় উপদ্বীপে বাইরের যেকোনো শক্তির অপতৎপরতার বিরুদ্ধে পিয়ংইয়ং তীব্র ও তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া দেখাবে।
বাইডেনের পূর্বসূরি ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে কিমের তিন দফায় সাক্ষাৎ হয়। কিন্তু এসব সাক্ষাতে বিশেষ কোনো ফল আসেনি।
বাইডেন উত্তর কোরিয়াকে মোকাবিলায় কূটনীতির পাশাপাশি কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার পক্ষে তাঁর অবস্থান জানিয়ে দিয়েছেন।

 

Loading...