ইরানের গভর্নরের গালে চড়

সম্প্রতি গভর্নর হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন। এ উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছিলেন। কিন্তু নাটকীয়ভাবে তাঁর ওই অনুষ্ঠানে ব্যাঘাত ঘটে। গভর্নরের বক্তৃতার সময় এক ব্যক্তি মঞ্চে ওঠেন। দর্শকের সারি থেকে সরাসরি মঞ্চে উঠে বক্তৃতারত গভর্নরের মুখে চড় মারেন। শনিবার ঘটনাটি ঘটেছে ইরানে। খবর সিএনএনের।

ইরানের উত্তর–পূর্বাঞ্চলের তাবরিজ শহরে এ ঘটনা ঘটে। লাঞ্ছিত ব্যক্তির নাম জেইনোল আবেদিন খোররাম। সম্প্রতি তিনি পূর্ব আজারবাইজান প্রদেশের গভর্নর হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন। নিয়োগ পাওয়ার পর তাবরিজে ইমাম খোমেনি মসজিদে এক অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করছিলেন। তখনই ঘটে অনাকাঙ্ক্ষিত এই ঘটনা।

ইরানের আধাসরকারি সংবাদ সংস্থা ফার্স অনলাইনে এ ঘটনার একটি ভিডিও ফুটেজ পোস্ট করেছে। তাতে দেখা যাচ্ছে, এক ব্যক্তি ধীরে ধীরে খোররামের কাছে যাচ্ছেন। গিয়েই মুখে চড় মারার পর ধাক্কাধাক্কি করছেন তাঁকে। এরপর নিরাপত্তারক্ষীরা ওই ব্যক্তিকে আটকান এবং তাঁকে মঞ্চ থেকে নামিয়ে আনেন।

নিরাপত্তার ব্যত্যয় ঘটিয়ে ইরানে সাধারণত এমন ঘটনা ঘটতে দেখা যায় না। ওই অনুষ্ঠানে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনির একাধিক প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রের অন্য কর্মকর্তারাও অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন।

ইরানের আরেক আধাসরকারি সংবাদ সংস্থা তাসনিম জানতে পেরেছে গভর্নরকে চড় মারা ওই ব্যক্তির নাম আইয়ুব আলিজাদেহ। ইরানের সশস্ত্র বাহিনীর সদস্য তিনি। এদিকে রাষ্ট্রায়ত্ত টিভি আরআইবিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে প্রাদেশিক গভর্নর জানিয়েছেন, তাঁকে চড় মারা ওই ব্যক্তিকে তিনি ব্যক্তিগতভাবে চেনেন না।

হামলাকারীর উদ্দেশ্য সম্পর্কে এখনো নিশ্চিত করে কিছু জানা যায়নি। তবে গভর্নর খোররামের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী গ্রেফতার হওয়ার পর ওই ব্যক্তি পুলিশকে বলে‍ছেন, করোনার টিকা দেওয়ার একটি কেন্দ্রে নারীর পরিবর্তে একজন পুরুষ তাঁর স্ত্রীকে টিকা দিয়েছেন। বিষয়টিতে মর্মাহত হয়ে তিনি গভর্নরকে চড় মেরেছেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.