ইজতেমা ময়দানে স্বেচ্ছাশ্রমে কাজ করছে হাজারো শিক্ষার্থী

রাজধানী ঢাকার সন্নিকটে টঙ্গীর তুরাগ নদের তীরে আগামী ১০ জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া বিশ্ব ইজতেমার প্রস্তুতিকাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। ইজতেমাকে সামনে রেখে প্রতিদিন টঙ্গী, গাজীপুর, উত্তরা, তুরাগ ও মিরপুরসহ এলাকার বিভিন্ন মাদ্রাসার হাজার হাজার স্বেচ্ছাসেবী ছাত্র-শিক্ষক ময়দানে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। স্বেচ্ছাসেবী ছাত্ররা ময়দানে নামাজের জন্য দাগ কাটা, ছামিয়ানার পাটের চট টানানো, আগাছা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করার কাজ করছেন।

সোমবার ইজতেমা ময়দান সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, ইজতেমাকে সামনে রেখে এগিয়ে চলছে সবধরণের প্রস্তুতির কাজ। হাজার হাজার মাদ্রাসা ছাত্র-শিক্ষকসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ স্বেচ্ছাশ্রমে ময়দানে কাজ করছেন। নাইলনের রশি ও পাটের চট দিয়ে প্যান্ডেল তৈরির কাজ, ছাতা মাইক টানানো, টয়লেট পরিষ্কার-পরিচ্ছন, মুক্কাবির মঞ্চ তৈরি, খুঁটি নম্বর ও খিত্তা নম্বর বসানো, বালি ফেলে উচুঁ নিচু জায়গা সমান করাসহ ময়দান পরিষ্কারের কাজ করছেন। ইতোমধ্যে প্রায় ৮৫ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে বলে ইজতেমা আয়োজক কমিটির পক্ষে বলা হয়েছে।

ইজতেমা ময়দানে স্বেচ্ছাশ্রমে কাজ করছে হাজারো শিক্ষার্থী

উত্তরা তুরাগ এলাকার জামিয়া সুবহানিয়া মাদ্রাসা থেকে মুফতি নূরে আলমের নেতৃত্বে সাড়ে ৪০০ ছাত্র ইজতেমা ময়দানের প্রস্তুতিকাজে অংশ নিয়েছেন। তিনি জানালেন, ময়দানের প্রস্তুতিকাজে প্রতিদিন হাজার হাজার মাদ্রাসা ছাত্র-শিক্ষক ও স্বেচ্ছাসেবী নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। 

ঢাকার মিরপুর দারুর রাশাদ মাদ্রাসার শিক্ষক আব্দুর রশিদ জানান, তার নেতৃত্বে প্রায় ৪০ জন মাদ্রাসা ছাত্র ময়দানের উচুঁ নিচু জায়গা বালি দিয়ে ভরাট করা, ময়দানে দাগ কাটা, পাটের চট দিয়ে ছামিয়ানা তৈরি করাসহ বিভিন্ন কাজ করছেন। তিনি বলেন, ইজতেমার দাওয়াতি কাজ নবীওয়ালা কাজ। দেশ-বিদেশের লাখ লাখ মুসল্লি টঙ্গীর ময়দানে মুরুব্বিদের বয়ান শুনে হেদায়েতের পথ পাওয়ার জন্য হাজির হয়। বিশ্ব ইজতেমায় আগত মেহমানরা ইবাদত বন্দেগিতে যাতে কোন কষ্ট না পান সেজন্য ময়দানের কাজে সহযোগিতা করছি।

ময়দান জুড়ে শব্দ প্রতিরোধক বিশেষ ছাতা মাইক ও ইউনিসেফ মাইক : ইজতেমা ময়দানের মাইক জামাতের দায়িত্বে নিয়োজিত সেনাবাহিনীর সাবেক ওয়ারেন্ট অফিসার মো. আলমগীর ভূঁইয়া বলেন, ইজতেমায় আগত লাখো মুসল্লি যাতে নিরবচ্ছিন্নভাবে মুরুব্বিদের বয়ান শুনতে পারেন সেজন্য পুরো ময়দানে প্রায় ২শ ৪০টি ছাতা মাইক স্থাপনের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। এছাড়া বিদেশি মেহমানদের কামরায় প্রায় ৫০টি ইউনিসেফ মাইক (ধ্বনি প্রতিরোধক) স্থাপন করা হচ্ছে।

তুরাগ নদে ৭টি পন্টুন সেতু নির্মাণ : বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে আগত ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের যাতায়াত নির্বিঘœ করতে তুরাগ নদের উপর ৭টি ভাসমান পন্টুন সেতু নির্মাণ করেছেন সেনাবাহিনীর ইঞ্জিনিয়ারিং কোরের সদস্যরা । এব্যাপারে পন্টুন সেতু নির্মাণ কাজে নিয়োজিত করপোরাল আব্দুল কাইয়ূম জানান, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে তুরাগ নদের উপর ৭টি ভাসমান পন্টুন সেতু নির্মাণ করা হয়েছে ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের যাতায়াতের জন্য। 

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে টঙ্গী বিশ্ব ইজতেমা ময়দানের শীর্ষ মুরুব্বি ও ময়দানের জিম্মাদার প্রকৌশলী মাহফুজ হান্নান বলেন, ইজতেমা ময়দানের প্রস্ততিকাজ পুরোদমে চলছে। আগামী ১০ জানুয়ারির মধ্যে সকল প্রস্তুতি শেষ হবে, ইনশাআল্লাহ। 

Loading...