Ultimate magazine theme for WordPress.

দিল্লিতে জোর করে জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ানো এক যুবকের মৃত্যু

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ দিল্লিতে সিএএ বিরোধীদের উপর চারদিন ব্যাপী চলা সহিংসতার সময় রাস্তায় দিল্লি পুলিশ কর্তৃক নির্যাতিত ও জোর করে জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ানো এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। খবর ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকার।

নিহত ওই যুবকের নাম ফয়জান (২৪) বলে শনাক্ত করা হয়। উত্তর-পূর্ব দিল্লির কর্দমপুরীর বাসিন্দা তিনি। বৃহস্পতিবার লোক নায়ক জয়প্রকাশ হাসপাতালে মৃত্যু হয়েছে তাঁর। পরিবারের অভিযোগ, ফয়জানকে এবং ভিডিওতে দেখতে পাওয়া অন্য ব্যক্তিদের পুলিশ হেফাজতে নিয়ে ব্যাপক মারধর করা হয়।

তার মা বলেন, তাকে এবং অন্যদের জঘন্যভাবে মারধর করা হয়। তাকে লোহার রড দিয়ে মারা হয়েছিল। ওর পা ভেঙে যায়, মারের কারণে তার পুরো শরীর কালো হয়ে যায়। প্রথমে রাস্তায় ফেলে মারধর করা হয়েছিল।

তিনি আরও বলেন, আমার পরিচিত একজন ফয়জানকে চিনতে পেরে আমাকে জানিয়েছিল, আমি হাসপাতালে যাই, সেখানে ওকে না পেয়ে আমি জ্যোতি কলোনির থানায় যাই। ও থানায় ছিল, আমি তাদের (পুলিশ) ছবি দেখালাম, পুলিশ নিশ্চিত করল যে আমার ছেলে ওখানেই আছে। আমি ছেলের সঙ্গে দেখা করতে চেয়েছিলাম এবং ওকে মুক্তি দেওয়ার জন্য অনুরোধও করেছিলাম। পুলিশ ফয়জানকে আমার সঙ্গে দেখা করতে দেয়নি। আমি রাত ১টা পর্যন্ত অপেক্ষা করেছিলাম।

তিনি জানান, পরদিন সকালে তিনি আরও দু’জনকে নিয়ে থানায় ফিরে আসলে তাদেরকেও আটকের হুমকি দেয়া হয়।

তিনি বলেন, ফাইজান যখন মারা যাচ্ছিলেন তখন তারা রাত ১১ টার দিকে আমাকে ফোন করেছিল।

পুলিশ ফয়জানকে মুক্তি দেওয়ার পরে পরিবার তাকে স্থানীয় এক চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যান।

হাসপাতালের চিকিৎসক কিশোর সিংহ বলেন, ‘মঙ্গলবার নিউরোসার্জারি ওয়ার্ডে ওই যুবককে ভর্তি করা হয়। বৃহস্পতিবার সকালে তাঁর মৃত্যু হয়েছে। ওঁর শরীরে গুলি লাগে। অবস্থা অত্যন্ত আশঙ্কাজনক ছিল।’

সহিংসতা চলাকালীন সময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিওতে দেখা যায়, রাস্তার পড়ে থাকা পাঁচ যুবককে মারধর করছে দিল্লি পুলিশ এইসময় তাদেরকে ভারতের জাতীয় সঙ্গীত গাইতেও বাধ্য করা হয়। মারধরের সময় এক পুলিশ সদস্যকে বলতে শোনা যায়, ‘‘আর আজাদি চাই?’’।

ভিডিওতে ফুটপাতের পাশে নীল জামা পরা এক যুবককে পড়ে থাকতে দেখা গিয়েছিল। তিনিই নিহত ফয়জান বলে জানা গিয়েছে।

এদিকে দিল্লিতে সহিংসতায় ইতিমধ্যেই ৪২ জন মারা গেছেন। আহত হয়েছেন কয়েক শত মানুষ। পুলিশ জানিয়েছে, উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে হিংসার ঘটনায় ৫ শতাধিক মানুষকে আটক করা হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.