Ultimate magazine theme for WordPress.

ডোনাল্ড ট্রাম্পকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত ভারত

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সোমবার তার প্রথম সরকারি সফরে ভারতে পা রাখছেন। নভেম্বরে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে দুই দিনের এই রাষ্ট্রীয় সফর আসছেন তিনি। ট্রাম্প ভারত সফরে আসা অষ্টম মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

গুজরাটের আমেদাবাদে সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে “নমস্তে, ট্রাম্প” অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। সেখানেই সংবর্ধনা জানানো হবে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে ভারতে আসছেন স্ত্রী মেলানিয়া ট্রাম্পও।

কয়েকমাস আগে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির যুক্তরাষ্ট্র সফরে ডোনাল্ড ট্রাম্পের তত্ত্বাবধানে টেক্সাসে আয়োজন করা হয় “হাউডি, মোদি!” নামকত এক অভিনব অনুষ্ঠানের। ভারতীয়-মার্কিন সম্প্রদায়ের উদ্যোগে ওই অনুষ্ঠান হয়। যেখানে মোদির পাশাপাশি উপস্থিত ছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্টও।

অনেকেই মনে করেন, “হাউডি, মোদি!” অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আসলে সুকৌশলে নিজের ভোট ব্যাংক বাড়িয়ে নেওয়ার কৌশল ছিল ডোনাল্ড ট্রাম্পের। কেননা, মার্কিন নির্বাচনে ভারতীয় মার্কিনিদের একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে বলে মনে করা হয়।

আবার অনেকেই বলছেন চলমান অর্থনৈতিক মন্দা কাটাতে আমেরিকাকে পাশে দরকার ভারতের। ট্রাম্পের এই সফর তাই ভারতের জন্যও যথেষ্ট গুরুত্ব রাখে। মার্কিন প্রেসিডেন্টের এই সফরের পর দু’দেশের মধ্যে বাণিজ্যিক চুক্তিও সম্পাদন হতে পারে বলে মনে করছেন অনেকেই।

কেননা, কয়েকমাস আগে দু’দেশের মধ্যে পারস্পরিক বাণিজ্য পরিস্থিতি জটিল হয়ে পড়ে। যুক্তরাষ্ট্র ভারতকে বাণিজ্য ক্ষেত্রে বিশেষ সুবিধা দান বন্ধ করে দেয়। পাল্টা পদক্ষেপ হিসেবে ভারতের পক্ষ থেকেও ২৮টি মার্কিন দ্রব্যের পণ্য শুল্ক বাড়িয়ে দেওয়া হয়। ট্রাম্পের এই সফর ভারত-মার্কিন বাণিজ্য পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার ক্ষেত্রে অনেকটাই উপযোগী হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভারত সফর নিয়ে উল্লেখযোগ্য কিছু বিষয়-

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প রবিবার রাতে ওয়াশিংটন ডিসি ছাড়ার আগে বলেন: “আমরা লক্ষ লক্ষ মানুষের সঙ্গে থাকব। প্রধানমন্ত্রী মোদির সঙ্গে আমার সম্পর্ক খুবই ভাল… তিনি একজন ভাল বন্ধু”। তিনি আরও বলেন যে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তাকে জানিয়েছেন “এই ইভেন্টটি (“নমস্তে, ট্রাম্প”) এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে বড় ইভেন্ট হবে”।

ট্রাম্পের সফরের কয়েক ঘণ্টা আগে প্রধানমন্ত্রী মোদি টুইট করে জানান যে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট এই সফরে এসে আসলে ভারতকেই “সম্মান” দিচ্ছেন। “ভারত ডোনাল্ড ট্রাম্পকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত। আমেদাবাদের ঐতিহাসিক অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে তাকে স্বাগত জানানো হবে। তিনি আমাদের সঙ্গে থাকবেন এটা যথেষ্ট সম্মানের বিষয়”।

তবে সকলের নজর থাকবে দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রী মোদি এবং প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বৈঠকের দিকে। কেননা ওই বৈঠকে ইন্দো-মার্কিন বাণিজ্য চুক্তি নিয়ে আলোচনা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এর আগে দু’দেশের মধ্যে পারস্পরিক বাণিজ্য পরিস্থিতি জটিল হয়ে পড়ে। আমেরিকা ভারতকে বাণিজ্য ক্ষেত্রে বিশেষ সুবিধা দান বন্ধ করে দেওয়ায়, পাল্টা পদক্ষেপে ভারত ২৮টি মার্কিন দ্রব্যের শুল্ক বাড়িয়ে দেয়। ট্রাম্পের এই সফর ভারত-মার্কিন বাণিজ্য পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার ক্ষেত্রে তাই অনেকটাই উপযোগী হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

দুই দেশের মধ্যে নিরাপত্তা সহায়তা নিয়েও আলোচনা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কেননা, এর আগে নিরাপত্তা চুক্তি নিয়েও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি ঘটে ভারতের। বহু বিলিয়ন ডলার খরচ করে রাশিয়ান ক্ষেপণাস্ত্র শিল্ড সিস্টেম কেনায় ভারতের সঙ্গে আমেরিকার সম্পর্কে ইষৎ উত্তেজনা দেখা দেয়। এই সফর সেই উত্তেজনা কিছুটা হ্রাস করবে বলে মনে করা হচ্ছে।

ভারতে আসার পর ডোনাল্ড ট্রাম্পকে আমেদাবাদের নবনির্মিত সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে “নমস্তে, ট্রাম্প” অনুষ্ঠানে এক অভিনব সংবর্ধনা দেওয়া হবে। এই অনুষ্ঠানটিতে ভারতের সমৃদ্ধি এবং বৈচিত্র্যময় সংস্কৃতি তুলে ধরা হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রভীশ কুমার। “নমস্তে, ট্রাম্প” অনুষ্ঠানটি আসলে টেক্সাসে আয়োজিত “হাউডি, মোদি!” অনুষ্ঠানেরই উত্তর বলে মনে করছেন অনেকেই। গত বছর মার্কিন সফরের সময় প্রধানমন্ত্রী মোদিকে স্বাগত জানাতে ওই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল।

“নমস্তে, ট্রাম্প” ইভেন্টে যোগ দিতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প আমেদাবাদের সর্দার নগর এলাকা দিয়ে যাবেন, ওই এলাকায় বেশ কয়েকটি বস্তি রয়েছে। জানা গেছে পথের পাশের বস্তিগুলো আড়াল করার জন্যে ইতিমধ্যেই ৪ ফুট লম্বা, ৫০০ মিটারের একটি প্রাচীর তৈরি করা হয়েছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, আসলে ওই প্রাচীরের মাধ্যমে মার্কিন প্রেসিডেন্টের থেকে দেশের “দরিদ্র মানুষদের আড়াল করা” হচ্ছে। স্থানীয় কর্মকর্তারা অবশ্য বলছেন, ওই প্রাচীর নির্মাণের সিদ্ধান্ত মার্কিন প্রেসিডেন্টের সফরের আগেই নেওয়া হয়েছিল।

এই সফরে দুই দেশের শীর্ষ ব্যক্তিত্ব নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা করবেন, তবে তার মধ্যে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হতে পারে ভারতের ধর্মীয় স্বাধীনতা। গত সপ্তাহে হোয়াইট হাউজের কর্মকর্তারা জানান, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প প্রধানমন্ত্রী মোদির সঙ্গে এই বিষয়টি নিয়ে “ব্যক্তিগতভাবে” আলোচনা করতে চান। বর্তমানে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতায় দেশ জুড়ে বিক্ষোভ চলছে, তার মধ্যেই ট্রাম্পের এই সফর। রবিবার রাতেও সিএএ-কে কেন্দ্র করে দুটি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

মেগা ইভেন্ট “নমস্তে, ট্রাম্প” অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ার পর গুজরাট থেকে দিল্লির উদ্দেশে রওনা দেবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। মাঝপথে আগ্রার তাজমহল দেখতে যাবেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ও তার স্ত্রী। সেই জন্যে নতুন করে সেজে উঠেছে তাজমহল, যমুনাতেও নতুন করে জল ছাড়া হয়েছে, বাড়ানো হয়েছে এলাকার নিরাপত্তা।

এদিকে ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে ভারত সফরে আসা তার স্ত্রী মেলানিয়া ট্রাম্প নাকি দিল্লির একটি সরকারি বিদ্যালয় পর্যবেক্ষণে যাবেন। প্রথমে শোনা গেছিল যে মেলানিয়া ট্রাম্পকে দিল্লির বিদ্যালয়ে স্বাগত জানাবেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। কিন্তু আপের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, তাকে এবং সিসোদিয়াকে দক্ষিণ দিল্লির সরকারি বিদ্যালয়ে মেলানিয়া ট্রাম্পকে স্বাগত জানানোর জন্যে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি কেন্দ্রের পক্ষ থেকে।

সব মিলিয়ে ট্রাম্পের সফর উপলক্ষে তিনটি শহর জুড়েই অভূতপূর্ব নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। দিল্লির আইটিসি মৌর্য হোটেলকে ত্রিস্তরীয় সুরক্ষা ব্যবস্থা দিয়ে মুড়ে ফেলা হয়েছে, কেননা সেখানেই সপরিবারে থাকবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। রয়েছে ড্রোন ক্যামেরার মাধ্যমে সামগ্রিক পর্যবেক্ষণও। এছাড়াও অতিরিক্ত নিরাপত্তা হিসেবে পাশের তাজ প্যালেস হোটেলটিও প্রস্তুর রাখা হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.