Ultimate magazine theme for WordPress.

করোনাভাইরাস: চীনা পর্যটকদের জন্য সীমান্ত বন্ধ করল সিঙ্গাপুর

দক্ষিণ এশিয়ায় প্রথম দেশ হিসেবে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সব চীনা ভ্রমণকারীদের জন্য সীমান্ত বন্ধ ঘোষণা করেছে সিঙ্গাপুর। শনিবার রাত ১২টা থেকে দেশটিতে চীনা পর্যটকদের জন্যে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করা হবে।

বার্তা সংস্থা চায়না মর্নিং পোস্টের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এছাড়া গত বৃহস্পতিবার জেনেভায় এক জরুরি বৈঠকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) বিশ্বব্যাপী সতর্কতা জারি করেছে।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান টেড্রোস অ্যাডানম গ্যাব্রিয়েসুস বলেন, চীনে কি হচ্ছে সেটার চেয়ে বেশি জরুরি বিশ্বের অন্যান্য দেশে কি ঘটছে। উদ্বেগের বিষয় হলো দুর্বল স্বাস্থ্য ব্যবস্থার দেশগুলোতে এ ভাইরাস দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে পারে।
চায়না মর্নিং পোস্ট জানায়, গত ১৪ দিনের মধ্যে চীনে ভ্রমণকারীসহ নতুন ভ্রমণকারীদের জন্যেও সিঙ্গাপুরের সীমান্তে বন্ধ থাকবে।
চীনের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ব্যবসায়িক অংশীদার হচ্ছে সিঙ্গাপুর। চীনা পর্যটকদের জন্যে অন্যতম আকর্ষণীয় স্থান সিঙ্গাপুর।  সিঙ্গাপুরের পর্যটন সংস্থা জানায়, গত বছরের নভেম্বর পর্যন্ত পায় আড়াই লাখ পর্যটক দেশটি ভ্রমণ করেছেন। ২০১৮ সালে প্রায় ৩৪ লাখ চীনা পর্যটক সিঙ্গাপুর ভ্রমণ করেছিল।
শুক্রবার পর্যন্ত সিঙ্গাপুরে করোনাভাইরাসে ১৩ জন আক্রান্তের খবর পাওয়া গেছে। তাদের প্রায় সবাই করোনাভাইরাসের উৎপত্তিস্থল উহান প্রদেশ থেকে সিঙ্গাপুরে ফেরত আসে। সিঙ্গাপুরের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এখনও পর্যন্ত করোনাভাইরাসের কারণে কেউ সংক্রমণের শিকার হয়নি।
করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে হিমশিম খাচ্ছে চীনা কর্তৃপক্ষ। এই ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে বাঁচাতে নাগরিকদের চীনের উহান থেকে ফিরিয়ে নিচ্ছে বিভিন্ন দেশ। অনেক এয়ারলাইনস চীনে যাওয়া-আসার ফ্লাইট কমিয়ে দেওয়া ও বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
চীনের বাইরেও এই ভাইরাসের বিস্তার ঘটছে। চীন ছাড়া এখন পর্যন্ত ১৬টি দেশে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত রোগী শনাক্ত হয়েছে। প্রায় দশ হাজার মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এখনও পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ২১৩।

Leave A Reply

Your email address will not be published.