Ultimate magazine theme for WordPress.

ইরানে ২৩ এমপির শরীরে করোনা ভাইরাস

চীন থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ইরানে এখন পর্যন্ত ৭৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। দেশটিতে প্রায় দেড় হাজার মানুষ এই সংক্রমণে আক্রান্ত।

এরইমধ্যে মঙ্গলবার ইরানের পার্লামেন্টের ডেপুটি স্পিকার আব্দুল রেজা মিসরিও এক ঘোষণায় জানিয়েছেন, দেশটিতে অন্তত ২৩ জন সংসদ সদস্যের শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে।

ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের খবরে বলা হয়েছে, করোনা আতঙ্কে গত কিছু ধরেই দেশটির পার্লামেন্ট অধিবেশন স্থগিত রয়েছে।

এর আগে করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ খোমেনির উপদেষ্টামণ্ডলীর এক সদস্য মারা গেছেন। ৭১ বছর বয়সী এই ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার নাম মোহাম্মদ মীর মোহাম্মদী। এর আগে ভ্যাটিকান সিটিতে ইরানের সাবেক রাষ্ট্রদূত ও কূটনীতিক হাদি খাসরুশাহি এবং গিলান প্রদেশের নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য মোহাম্মদ আলি রামাজানি দস্তক কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে মারা যান।

মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যমগুলোর খবরে বলা হয়েছে, ইরানের জরুরি চিকিৎসা সেবা বিভাগের প্রধান কর্মকর্তাও করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। ধারণা করা হচ্ছে, দেশটির শীর্ষ কর্মকর্তা তথা সংসদ সদস্যরা জনগণের সংস্পর্শে আসায় তারাও করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছেন। চীনের বাইরে এখন পর্যন্ত ইরানই করোনা ভাইরাসে সর্বোচ্চ সংখ্যক মানুষের প্রাণহানি হয়েছে।

মঙ্গলবার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে দেয়া এক ঘোষণায় দেশটির উপস্বাস্থ্য মন্ত্রী আলী রেজা রাইসি বলেছেন, ‘ইরানে এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ৩৩৬ জন। যাদের মধ্যে ২৩ জন সংসদ সদস্য রয়েছেন। রয়েছেন সরকারের উচ্চ পর্যায়ের কিছু কর্মকর্তাও। এই ভাইরাসে ইরানে এখন পর্যন্ত অন্তত ৭৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যুর সংখ্যা প্রতিদিনই বাড়ছে।’

উল্লেখ্য, চীন থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসে এ পর্যন্ত ৩ হাজার ১১৯ জন নিহত হয়েছে। যেখানে শুধু চীনেই মৃতের সংখ্যা ২ হাজার ৯৪৪ জন। চীনের বাইরে নিহত হয়েছে ১৭৫ জন।

নিহত হওয়া দেশগুলোর মধ্যে ইরানে ৭৭, ইটালিতে ৫২, দক্ষিণ কোরিয়ায় ২৮, জাপান ৬, ডায়মন্ড প্রিন্সেস জাহাজে ৭, হংকং ২, যুক্তরাষ্ট্র ৬, ফ্রান্স ৩, ফিলিপাইন, থাইল্যান্ড, সান ম্যারিনো, অস্ট্রেলিয়া ও তাইওয়ানে ১ জন করে।

গোটা বিশ্বে এই মারণ ভাইরাসে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৯০ হাজার ৪৪১ জনে দাঁড়িয়েছে। চীনে আক্রান্তের সংখ্যা ৮০ হাজার ১৫১ জন এবং চীনের বাইরে ১০ হাজার ২৯০ জন। আক্রান্তদের মধ্যে ৭ হাজার ৯৪ জনের অবস্থা আশঙ্কানক। এখন পর্যন্ত মোট ৪৮ হাজার ১২৮ জন সুস্থ হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.