Ultimate magazine theme for WordPress.

ইতালিতে আরও ৩৪৯ জনের মৃত্যু

করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় ইতালিতে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে। তারপরও মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে ৩৪৯ জন মারা গেছে। যা একদিনে দেশটিতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মারা যাওয়ার রেকর্ড। নতুন আক্রান্ত হয়েছে ৩ হাজার ২৩৩ জন। এ নিয়ে মোট মৃত্যুর সংখ্যা ২ হাজার ১৫৮ জন এবং আক্রান্ত ২৭ হাজার ৯৮০ জন। চিকিৎসাধীন আছে ২৩ হাজার ৭৩ জন।

ইতালিতে বর্তমানে ২৩ হাজার ৭৩ জন আক্রান্ত রয়েছেন। তাদের মধ্যে ২১ হাজার ২২২ জনের অবস্থা সাধারণ অবস্থায় (স্থিতিশীল অথবা উন্নতির দিকে) এবং বাকি ১ হাজার ৮৫১ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২ হাজার ৭৪৯ জন। আক্রান্তের সংখ্যা অনুপাতে মৃত্যুর হার ৪৪ শতাংশ এবং সুস্থতার হার ৫৬ শতাংশ।

ইউরোপের দেশটিতে দিনদিন অবস্থার অবনতিই হচ্ছে। এ দিকে করোনা ভাইরাসের কারণে ইতালিতে জরুরি অবস্থা জারি করে পুরো দেশকে লকডাউন করা হয়েছে। ফার্মেসি এবং খাবার দোকান ছাড়া সবকিছু বন্ধ রয়েছে। ফলে গোটা ইতালি থমকে আছে। অর্থনৈতিক অবস্থা অবনতির দিকে।

সরকার নির্দেশনা দিয়েছে, জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বাইরে কেউ যেন না যায়। ইতালির প্রধনামন্ত্রী জিউসেপ কন্তে করোনার মহামারি সামাল দিতে প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নিয়েছেন।

ইতালির মানুষজন এখন কার্যত বন্দি জীবনযাপন করছে। সুপার মার্কেটগুলোতে একসঙ্গে সবাইকে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না। নিয়ন্ত্রণের মধ্যে চলছে সরকার ঘোষিত প্রতিষ্ঠান। সুপার মার্কেট ও ক্লিনিকে মাস্ক ছাড়া প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না।

অন্যদিকে, ইতালিজুড়ে মাস্কের প্রচণ্ড অভাব দেখা দিয়েছে। বিক্রেতারা বলছেন, আগামী সপ্তাহে আসতে পারে নতুন মাস্ক। তবে নিশ্চয়তা দিতে পারেনি কেউ।

করোনার ভয়াবহতায় গোটা ইতালিই এখন ফাঁকা। সরকার নতুন ডিক্রি জারি করে সকল প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দিয়েছে। সরকারের অনুমোদিত প্রতিষ্ঠান ছাড়া কোনো ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা নেই। বিভিন্ন স্থানে প্রশাসন রাস্তা নিয়ন্ত্রণ করছে। যানবাহন এবং চলাফেরায় নিয়ন্ত্রণ আনতে নিরাপত্তা জোরদার রাখা হয়েছে।

উল্লেখ্য, চীনে করোনা ভাইরাস প্রায় নিয়ন্ত্রণে চলে এসেছে। কিন্তু চীনের বাইরে অন্যান্য দেশে ব্যাপক আকারে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা। এতে বিশ্বব্যাপী প্রচণ্ড আতঙ্ক ও ভয়ের সৃষ্টি হয়েছে। করোনা ভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বজুড়ে ৬৩৯ জনসহ মোট মৃত্যু হয়েছে ৭ হাজার ১৫৮ জনের। শুধু চীনেই মৃতের সংখ্যা ৩ হাজার ২২৬। চীনের বাইরে মারা গেছে ৩ হাজার ৯৩২ জন।

এ ভাইরাসে বিশ্বজুড়ে মোট আক্রান্ত হয়েছে ১ লাখ ৮২ হাজার ৪৫৭ জন। এর মধ্যে ৭৯ হাজার ২১১ জন সুস্থ হয়েছে বাড়ি ফিরেছেন। এছাড়া চীনে আক্রান্তের সংখ্যা ৮০ হাজার ৮৮১ এবং চীনের বাইরে ১ লাখ ১ হাজার ৫৭৬ জন মানুষ।

বর্তমানে ৯৬ হাজার ৮৮ জন আক্রান্ত রয়েছেন। তাদের মধ্যে ৮৯ হাজার ৯২৫ জনের অবস্থা সাধারণ (স্থিতিশীল অথবা উন্নতির দিকে) এবং বাকি ৬ হাজার ১৬৩ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। আক্রান্তের অনুপাতে মৃত্যুর হার ৮ শতাংশ এবং সুস্থতার হার ৯২ শতাংশ।

চীনে উদ্ভূত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রতিদিনই বাড়ছে মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা। এখন পর্যন্ত বিশ্বের ১৬২টি দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে।

যেসব দেশে করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে-

এর মধ্যে চীনে ৩ হাজার ২২৬, ইটালিতে ২ হাজার ১৫৮, ইরানে ৮৫৩, স্পেন ৩৪২, ফ্রান্স ১৪৮, দক্ষিণ কোরিয়ায় ৭৫, যুক্তরাষ্ট্র ৮৭, যুক্তরাজ্য ৫৫ জন সহ ১৬২টি দেশে মৃত্যু হয়েছে ৭ হাজার ১৫৮ জনের।

Leave A Reply

Your email address will not be published.